Alexa

গ্রামবাংলার ঐতিহ্য ‘ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা’

গ্রামবাংলার ঐতিহ্য ‘ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা’

ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা, ছবি: বার্তা২৪.কম

গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হল নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার সরুশুনা গ্রামে। গ্রামবাসীর আয়োজনে সোমবার (১৮ মার্চ) বিকালে এ  প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতায় নড়াইল, যশোর, মাগুরা ও ফরিদপুর জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে মোট ২২টি ঘোড়া অংশগ্রহণ করে।

পয়েন্ট ভিত্তিক এ প্রতিযোগিতায় দুই কিলোমিটার পথ অতিক্রম করে প্রথম স্থান দখল করেন যশোরের ধলগ্রামের ওহাব সরকার। তাকে পুরস্কার স্বরূপ ৭ হাজার টাকা প্রদান করা হয়।

দ্বিতীয় স্থানের অধিকারী মাগুরা জেলার রাজপাট-রাজাপুর গ্রামের হাবিবুর রহমান কাজীকে ৫ হাজার টাকা এবং যৌথভাবে তৃতীয় স্থানের ফরিদপুর জেলার আলফাডাঙ্গার বিপুল রানা ও নড়াইলের মালিডাঙ্গা গ্রামের কামরুল ইসলামকে ৩ হাজার টাকা পুরষ্কার প্রদান করা হয়।

পুরষ্কার বিতরণ করেন লাহুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা দাউদ হোসেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/19/1552951615216.jpg

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য শেখ রিয়াজ মাহমুদ মিশাম, স্থানীয় ইউপি সদস্য নাছির শেখ, সাবেক সদস্য ফরহাদ হোসেন, মোহন মুন্সী, মেলা কমিটির সভাপতি গোলাম রসুল, সাধারণ সম্পাদক শেখ আব্দুল হান্নান প্রমুখ।

সরুশনা গ্রামের বাসিন্দা জেলা পরিষদ সদস্য রেয়াজ মাহমুদ মিশাম জানান, গত ২৫ বছর যাবৎ ঘোড়দৌড়ের প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে। ঘোড়দৌড়কে ঘিরে সরুশুনা, কামারগ্রাম, দেবী, সত্রহাজী গ্রামের প্রায় প্রতিটি বাড়িতে আত্মীয়-স্বজনদের আগমনে উৎসবমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

মেলা কমিটির সভাপতি গোলাম রসুল ও সাধারণ সম্পাদক শেখ আব্দুল হান্নান বলেন, ‘গ্রামবাংলার ঐতিহ্যবাহী ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতা ইদানিং হারিয়ে যেতে বসেছে। হারানো ঐতিহ্যকে আগামী প্রজন্মের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতেই আমরা প্রতিবছর ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকি’।

ঘোড়দৌড় ঘিরে বিভিন্ন এলাকা থেকে মেলায় দুই শতাধিক দোকান বসে। হস্তশিল্প, কুঠির শিল্প, কসমেটিক, নানা আকারের বাহারী সব মিষ্টির দোকানে বিক্রি ছিলো জমজমাট। শিশুদের বিনোদনের জন্য ছিল নাগরদোলা, রেলগাড়ী ইত্যাদি।

এছাড়া রাতব্যাপী বিচারগান পরিবেশন করেন শিল্পী সোনিয়া সরকার এবং মোস্তাকিন সরকার।

ঘোড়দৌড় প্রতিযোগিতার পাশাপাশি মেলা দেখতে বিভিন্নস্থান থেকে হাজার হাজার দর্শক উপস্থিত ছিল এসময়।

আপনার মতামত লিখুন :