Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান
নবাবগঞ্জের ৪৬ নং তেলেঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি শ্রেণিকক্ষের চিত্র/ ছবি: বার্তা২৪.কম
মো.সাদের হোসেন বুলু
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
ঢাকা
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানী ঢাকার অদূরে নবাবগঞ্জ উপজেলার কৈলাইল ইউনিয়নের ৪৬ নং তেলেঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি ভবনে ফাটল ধরেছে, পলেস্তারা খসে পড়ছে। আর এই ঝুঁকি নিয়েই ভবনটিতে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান। এছাড়া শিক্ষক সংকটেও বিদ্যালয়টিতে পাঠদান ব্যাহত হচ্ছে।

বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ সূত্রে জানা যায়, ১৯৭০ সালে তেলেঙ্গা গ্রামে ৪৬ নং তেলেঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি স্থাপিত হয় এবং পরবর্তীতে আওয়ামী লীগ সরকার বিদ্যালয়টি জাতীয়করণ করে। টিনকাঠের শ্রেণিকক্ষে চলতো পাঠদান।

বর্তমানে বিদ্যালয়টিতে দুইটি ভবনে পাঁচটি কক্ষ নিয়ে চলছে শিক্ষাদান। এতে প্রাক-প্রাথমিকসহ তিনটি শ্রেণিকক্ষ রয়েছে। একটি কক্ষে অফিস ও একটি জরাজীর্ণ পরিত্যক্ত কক্ষ রয়েছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/19/1552998388241.jpg

বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৩ সালে তিন কক্ষ বিশিষ্ট একটি পাকা ভবন নির্মিত হয়। পরে ২০০৯ সালে নির্মিত দুই কক্ষ বিশিষ্ট আরও একটি পাকা ভবন নিয়ে বিদ্যালয়টি চলছে। এর মধ্যে তিন কক্ষ বিশিষ্ট পাকা ভবনটির ভীম ও কলামে ফাটল ধরেছে। দেয়াল থেকে পলেস্তারা খসে খসে পড়ছে। কয়েকটি স্থানে দেখা দিয়েছে ঝুঁকিপূর্ণ ফাটল। শ্রেণিকক্ষ সংকটে শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়েই এই ভবনে পাঠ নিচ্ছে।

তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী সালমা জানায়, মাথার ওপরে ফাটল। তাই ছাদের ভীমের ফাঁক দেখে বেঞ্চ বসানো হয়েছে। যাতে পলেস্তারা ভেঙে শরীরে না পড়ে।

একই শ্রেণীর সুফিয়ান বলেন, ‘শ্রেণিকক্ষের সংকট, তাই ঝুঁকি নিয়ে ক্লাস করছি।’

প্রধান শিক্ষক মরিয়ম আক্তার বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘ভবন সংকট, তাই ঝুঁকিপূর্ণ জেনেও অফিস কক্ষ থেকে সরে যেতে পারিনি। তার উপর রয়েছে শিক্ষক সংকট। শিক্ষক বলতে আমি আর প্রাক-প্রাথমিকের অপরাজিতা চৌধুরী। সেও রয়েছে মাতৃত্বকালীন ছুটিতে।’

তিনি বলেন, ‘উপজেলা শিক্ষা অফিস খুরশিদা বেগম নামে এক শিক্ষককে অস্থায়ী নিয়োগ দিলেও সংকট কাটেনি। তাই এলাকার দুই জন শিক্ষিত নারী দিয়ে পাঠদান করাতে বাধ্য হচ্ছি।‘

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Mar/19/1552998437877.jpg

বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সহ-সভাপতি আক্তার হোসেন বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘এ অবস্থা গত কয়েক বছর ধরে চলছে। পরিবেশ ভালো না থাকায় শিক্ষার্থীরা পার্শ্ববর্তী মাদ্রাসায় চলে যাচ্ছে। আমি সহ-সভাপতি হওয়ার পর উপজেলা শিক্ষা অফিসে তাগিদ দিচ্ছিলাম।’

এ বিষয়ে নবাবগঞ্জ উপজেলা সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আহসান বলেন, ‘জরুরি ভিত্তিতে একজন শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে ক্লাস নেওয়া বন্ধ করা হবে। আমরা এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি। উপজেলা প্রকৌশলী অফিস ভবন পরীক্ষা করবে। ঝুঁকিপূর্ণ হলে পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :

টাঙ্গাইলে বল্যবিয়ে করতে এসে বরের কারাদণ্ড

টাঙ্গাইলে বল্যবিয়ে করতে এসে বরের কারাদণ্ড
ছবি: সংগৃহীত

টাঙ্গেইলের সখীপুরে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে বিয়ে করতে এসে বর‌ জাহাঙ্গীর আলমকে (২৬) যেতে হচ্ছে কারাগারে। কারণ, বাল্যবিয়ের অপরাধে বরকে এক মাসের কারাদণ্ডাদেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকেলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আয়শা জান্নাত তাহেরা এ দণ্ডাদেশ দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত জাহাঙ্গীর আলম উপজেলার গড়বাড়ি এলাকার করিম মন্ডলের ছেলে।

জানা যায়, উপজেলার গড়বাড়ি এলাকার করিম মণ্ডলের ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে চাটারপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলামের মেয়ে নবম শ্রেণীর ছাত্রীর (১৫) বাল্যবিয়ে চলছিল। খবর পেয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত ওই বাড়িতে গিয়ে বর ও কনেকে আটক ক‌রে। পরে বর জাহাঙ্গীর আলমকে এক মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়। এ সময় বর ও কনের অভিভাবকসহ অন্যরা পালিয়ে যান।

সখীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সিরাজুল ইসলাম জানান, দণ্ডপ্রাপ্ত জাহাঙ্গীর আলমকে শনিবার (২০ জুলাই) টাঙ্গাইল কারাগারে পাঠানো হবে।

ভুঞাপু‌রে কম‌তে শুরু ক‌রে‌ছে যমুনার পা‌নি

ভুঞাপু‌রে কম‌তে শুরু ক‌রে‌ছে যমুনার পা‌নি
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

টাঙ্গাই‌লের ভুঞাপু‌র উপজেলায় যমুনা নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। শুক্রবার (১৯ জুলাই) বি‌কে‌লের পর থে‌কেই পানি কমতে দেখা যায়।

স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) জানায়, ভুঞাপুরে যমুনা নদীর পা‌নি দুই সে‌ন্টি‌মিটার ক‌মে বিপদসীমার ৯৭ সে‌ন্টি‌মিটার ওপর দি‌য়ে বইছে। অথচ দুপুরেও এই পয়েন্টে পা‌নি ‌বিপদসীমার ৯৯ সে‌ন্টি‌মিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে।

Tangail Flood

টাঙ্গাইলের পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম জানান, বি‌কে‌লের পর থে‌কে যমুনা নদী‌তে কিছুটা পা‌নি হ্রাস পে‌য়ে‌ছে। ধারণা করা হচ্ছে, শ‌নিবার (২০ জুলাই) থে‌কে পা‌নি আরও কমবে।

আরও পড়ুন: ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক মেরামতে সেনাবাহিনী

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র