Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

ইয়াবাসহ পুলিশের কনস্টেবল আটক

ইয়াবাসহ পুলিশের কনস্টেবল আটক
ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনায় ৩০ পিস ইয়াবাসহ বঙ্কিম চক্রবর্তী নামে পুলিশের একজন কনস্টেবল আটক হয়েছে।

রোববার (২৪ মার্চ) সন্ধ্যায় খুলনা নগরীর গোয়ালখালী মোড় থেকে কনস্টেবল বঙ্কিম চক্রবর্তীকে আটক করে ডিবি পুলিশ। সে পথের বাজার পুলিশ ক্যাম্পের কনস্টেবল।

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের (কেএমপি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার মনিরুজ্জামান মিঠু রাতে বার্তা২৪.কমকে ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পথের বাজার পুলিশ ক্যাম্পের কনস্টেবল বঙ্কিম চক্রবর্তীকে ৩০ পিস ইয়াবাসহ আটক করা হয়েছে। বর্তমানে তাকে নগর ডিবি’র কার্যালয়ে রাখা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

ঠাকুরগাঁওয়ে ভাতিজার ছুরিকাঘাতে আহত ফুফুর মৃত্যু

ঠাকুরগাঁওয়ে ভাতিজার ছুরিকাঘাতে আহত ফুফুর মৃত্যু
নিহত তানজিনা, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থার ছবি

ঠাকুরগাঁওয়ে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় ভাতিজা জীবনের ছুরিকাঘাতে আহত ফুফু তানজিনা আক্তার (২০) মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) সকালে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তানজিনা।

নিহত তানজিনা শহরের গ্রামীণ চক্ষু হাসপাতালের নার্স ও সালন্দর ইউনিয়নের মাদ্রাসাপাড়ার হামিদ আলীর মেয়ে।

গত ২০ জুন সকালে বাড়ি থেকে বের হয়ে কর্মস্থলে যাবার পথে তানজিনাকে পিছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারি কোপায় তার ভাতিজা জীবন। স্থানীয়রা তাকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হলে পর দিন ২১ জুন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য স্থানান্তর করা হয় তাকে।

তানজিনার বাবা হামিদ আলী অভিযোগ করে বলেন, জীবন প্রতিদিন এলাকার বিভিন্ন মেয়েদের উক্ত্যক্ত করত। ভুক্তভোগী স্কুলগামী ছাত্রীরা আমার মেয়েকে অভিযোগ দেয়। এরপর আমার মেয়ে জীবনকে শাসন করে। এরই জের ধরে জীবন আমার মেয়েকে ছুরিকাঘাত করে।

ঠাকুরগাঁও সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশিকুর রহমান বলেন, ঘটনার দিনে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত জীবনকে আটক করা হয়েছে।

রিফাতের মরদেহ বাড়িতে

রিফাতের মরদেহ বাড়িতে
ছবি: বার্তা২৪

প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যার শিকার রিফাত শরীফের মরদেহ বাড়িতে পৌঁছেছে। বিকালে বরগুনার সদর উপজেলার ৬ নম্বর বুড়িরচর ইউনিয়নে নিজ বাড়িতে মরদেহ পৌঁছায়।

স্থানীয় মসজিদে বিকাল ৫টায় তার জানাজা হওয়ার কথা রয়েছে। তার মরদেহ দেখতে বাড়িতে মানুষের ঢল নেমেছে। কান্নার রোল পড়েছে পুরো এলাকায়।

গত বুধবার (২৬ জুন) দুর্বৃত্তরা তাকে কুপিয়ে হত্যা করে। দুর্বৃত্তদের ঠেকিয়ে তাকে বাঁচাতে আপ্রাণ চেষ্টা করেন তার স্ত্রী। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। তাকে কুপিয়ে হত্যার দৃশ্য সিসিটিভির ফুটেজে পাওয়া যায়। পরে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়ে যায়। দেশব্যাপী আলোড়ন তৈরি হয়।

রিফাতের স্বজনরা জানান, দুই মাস আগে রিফাত শরীফের সঙ্গে মিন্নির বিয়ে হয়। পরে মিন্নিকে নিজের স্ত্রী বলে দাবি করে বরগুনা পৌরসভার ধানসিঁড়ি এলাকার আবুবকর সিদ্দিকের ছেলে নয়ন। এ নিয়ে রিফাত ও নয়নের মধ্যে একাধিকবার ঝগড়া হয়। পরে মিন্নির ফেসবুক আইডি হ্যাক করে বেশ কিছু ছবি দিয়ে অপত্তিকর পোস্ট দেয় নয়ন। এ নিয়ে রিফাতের সঙ্গে তুমুল ঝগড়া হয় নয়নের।

বুধবার দুপুরে বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাতকে নয়ন ও তার সহযোগীরা প্রকাশ্যে কোপায়। এ সময় সাথে থাকা মিন্নি তাকে স্বামীকে রক্ষার চেষ্টা করেন। পরে স্থানীয়রা রিফাতকে সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রিফাত।

আরও পড়ুন: বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার ১

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র