Alexa

চট্টগ্রামে চাকরি মেলায় প্রত্যাশীদের ভিড়

চট্টগ্রামে চাকরি মেলায় প্রত্যাশীদের ভিড়

চ্ট্টগ্রামের জিইসি কনভেনশন সেন্টারে শুরু হয়েছে চাকরি মেলা, ছবি: বার্তা২৪.কম

শিক্ষা জীবনের গণ্ডি পেরিয়ে তরুণদের নেমে পড়তে হয় চাকরির খোঁজে। পছন্দ, চাহিদা আর কাঙ্ক্ষিত চাকরি পেতে উৎকণ্ঠা আর সংশয় বিরাজ করে প্রত্যাশীদের মাঝে। চাকরি পেছনে ছুটতে গিয়ে পত্রিকা, অনেকক্ষেত্রে তদবির করতে গিয়ে সর্বস্বান্ত হতে হয় অনেককে।

বিপরীতে চাকরিদাতারাও প্রয়োজনীয় এবং পছন্দসই লোকবলের অভাবে খালি রাখেন জনবল নিয়োগ। নিজেদের স্বকীয়তা আর নির্দেশনা মতো চাকরি প্রত্যাশী না থাকায় তারাও হতাশা বোধ করেন। চাকরি প্রত্যাশীদের কাছে  তথ্যটি আশ্চর্যবোধ ঠেকলেও এমন কথা উঠে আসে দেশের শীর্ষস্থানীয় চাকরি দাতাদের মুখে।

এক্ষেত্রে দুইয়ের সম্মিলিত প্রচেষ্টাকে  দৃঢ় করে সৎ, যোগ্য, দক্ষ জনবল নিয়োগের লক্ষ্যে চট্টগ্রামের এক ছাদের নিচে সমবেত হয়েছেন চাকরি প্রত্যাশী প্রতিষ্ঠান ও তরুণদের।

মঙ্গলবার (৯ মার্চ) সকালে নগরীর জিইসি কনভেনশন সেন্টারে শুরু হয়েছে চাকরি মেলা। দেশের সর্ববৃহৎ অনলাইনভিত্তিক চাকরির ওয়েবসাইট  বিডিজবস.কম মেলার আয়োজন করে।

মেলার শুরুতেই চাকরি প্রত্যাশীরা কোনো প্রকার রেজিস্ট্রেশন চার্জ ছাড়াই তাদের পছন্দের প্রতিষ্ঠানে পদ অনুযায়ী জীবন বৃত্তান্ত (সিভি) জমা দিয়েছেন। কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে ভিন্ন পদেও এক প্রার্থী একাধিক আবেদন জমা দিয়েছেন। মেলায় অংশ নেওয়া স্টলের কর্মকর্তারাও তাদের প্রয়োজনীয় এবং খুঁটিনাটি তথ্য দিয়ে সহায়তা করছেন। দুপুর তিনটা পর্যন্ত চাকরি প্রার্থীদের জীবনবৃত্তান্ত জমা নেওয়া হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করা চাকরি প্রার্থী হিমিকা বড়ুয়া আকিজ গ্রুপ অ্যান্ড বেভারেজ প্রতিষ্ঠানের অ্যাসিসটেন্ট এক্সিকিউটিভ পদে আবেদন করেন। তার সঙ্গে মেলায় আসা বন্ধু তনিমা হায়দার আবেদন করেছেন বিএসআরএমের প্রডাকশন অফিসার পদে।

হিমিকা বড়ুয়া বার্তা২৪.কম-এর কাছে প্রতিক্রিয়ায় জানান, অনেকক্ষেত্রেই আমরা প্রতিষ্ঠানের সার্কুলেশনগুলো এড়িয়ে যাই। উন্মুক্ত স্থানে প্রতিষ্ঠানগুলোর এমন মেলা আমাদের পছন্দের এবং জানার পরিধিকে বিস্তৃত করে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) গ্রাজুয়েট শেষ করা আবিদুর খন্দকার ওয়ালটন গ্রুপের সেলস ম্যানেজার পদে সিভি দিয়েছেন। তাদের মতো এমন অসংখ্য চাকরি প্রার্থী জটলা দেখা গিয়ে প্রতিষ্ঠানগুলোর স্টলের সামনে। সবার হাতে হাতে সিভি আর চোখে-মুখে শোভা পাচ্ছে কাঙ্ক্ষিত চাকরির প্রেষণা। তাদের আনাগোনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন স্টলের দায়িত্বরত কর্মকর্তারা।

দুপুর সাড়ে ১২টায় মেলা উদ্বোধনে আসেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি জানান, সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকেই আয়োজকরা দেশের তরুণ সমাজের জন্য এমন উদ্যোগ নিয়ে প্রতিবার হাজির হন। কীভাবে নিজেদের সাক্ষাৎকারের জন্য তৈরি করতে হয়, যোগ্যতা বিকশিত করা এবং নিজেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক বাজারে প্রবেশ করতে হয়, এটিও গুরুত্বপূর্ণ। 

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/09/1554810521981.jpg

তিনি আরও বলেন, ‘দেশের তরুণ সমাজকে বলব হতাশ হওয়ার কিছু নেই। আগামী তিন বছরের মধ্যে আমরা মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হব। শিল্পোন্নয়ন হচ্ছে দরিদ্রতা হ্রাস পাবে। অধিক কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে নতুন নতুন প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে।  আমাদের মানসিক দৃঢ়তা থাকতে হবে, ভেঙে পড়লে চলবে না।’

বক্তব্য শেষে মেয়র মেলা স্টল পরিদর্শনে যান এবং চাকরির আবেদনকারীদের সঙ্গে কথা বলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে নগরীর ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর এইচ এম সোহেল, এস জি এম অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের ডেপুটি ম্যানেজার মোহাম্মদই সরাফিল, বিডিজবস.কমের অ্যাসিসেন্ট জেনারেল ম্যানেজার মুহাম্মদ ইমরুল কায়েস বক্তব্য রাখেন।

আয়োজক সূত্রে জানা যায়, এবারের মেলায় ঢাকা ও চট্টগ্রামের ৫৬টি শীর্ষস্থানীয় কোম্পানি অংশ নিয়েছে। এর মধ্যে আরএসআরএম, কেসএসআরএম, ওয়ালটন, নিটল টাটা, প্রাণ আরএফএলের বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলো অন্যতম।

অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানের ২০০টি পদের বিপরীতে প্রায় ২০ হাজার এর অধিক প্রত্যাশী আবেদন জমা দেবেন। জমা আবেদন শেষে বুধবার (১০ এপ্রিল) একইসাথে আবেদনকারীদের সাক্ষাৎকার অনুষ্ঠিত হবে। এক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠানের নিজস্ব চাহিদা এবং ক্ষেত্র বিশেষে অ্যাকাডেমিক ফলাফলকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবেও বলেও জানানো হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

জেলা এর আরও খবর