Barta24

বুধবার, ২১ আগস্ট ২০১৯, ৬ ভাদ্র ১৪২৬

English

রাজবাড়ীর ৪ উপজেলায় নির্বাচিতদের শপথ সোমবার

রাজবাড়ীর ৪ উপজেলায় নির্বাচিতদের শপথ সোমবার
ছবি: বার্তা২৪
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
রাজবাড়ী
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিতব্য রাজবাড়ীর চারটি উপজেলায় নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানদের শপথ অনুষ্ঠিত হবে সোমবার (১৫ এপ্রিল)।

বিষয়টি বার্তা২৪.কমকে নিশ্চিত করেছেন রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক মো. শওকত আলী। তিনি জানান, সোমবার বেলা ১১টায় ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের সম্মেলন কক্ষে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। বালিয়াকান্দি, পাংশা, গোয়ালন্দ ও সদর উপজেলার নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের ঢাকা বিভাগীয় কমিশনার কে এম আলী আজম তাদের শপথ বাক্য পাঠ করাবেন।

রাজবাড়ীর চারটি উপজেলার যারা শপথ গ্রহণ করবেন তারা হলেন

বালিয়াকান্দি উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ (আওয়ামী লীগ মনোনীত) তৃতীয়বারের মতো, ভাইস চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনির, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান খোদেজা বেগম।

পাংশা উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদ হাসান ওদুদ (স্বতন্ত্র), ভাইস চেয়ারম্যান মো. জালাল উদ্দিন বিশ্বাস, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রোকেয়া বেগম।

গোয়ালন্দের চেয়ারম্যান এবিএম নূরুল ইসলাম (বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়), ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান চৌধুরী আসাদ, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ভাইস নার্গিস পারভীন।

সদর উপজেলার চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইমদাদুল হক বিশ্বাস (স্বতন্ত্র) চতুর্থবারের মতো , ভাইস চেয়ারম্যান মো. রকিবুল হাসান পিয়াল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলেয়া বেগম।

উল্লেখ্য, রাজবাড়ী জেলা ছাড়াও সোমবার গাজীপুরের কালিয়াকৈর, শ্রীপুর, কাপাসিয়া ও কালীগঞ্জ এবং শরীয়তপুর জেলার শরীয়তপুর সদর, জাজিরা, নড়িয়া, ভেদরগঞ্জ, ডামুড্যা ও গোসাইরহাট উপজেলার নবনির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরা শপথ গ্রহণ করবেন।

আপনার মতামত লিখুন :

মিষ্টিমুখ করে নতুন ঘরে উঠলেন মিরিকজান

মিষ্টিমুখ করে নতুন ঘরে উঠলেন মিরিকজান
নতুন ঘরে উঠলেন সত্তরোর্ধ্ব মিরিকজান, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

মাল্টিমিডিয়া অনলাইন নিউজপোর্টাল বার্তাটোয়েন্টিফর.কমে খবর প্রকাশের পর ময়মনসিংহের গৌরীপুরের সত্তরোর্ধ্ব পক্ষাঘাতগ্রস্ত অসহায় বৃদ্ধা মিরিকজানের নতুন টিনশেড ঘরে ঠাঁই হয়েছে।

বুধবার (২১ আগস্ট) সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারহানা করিম ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোফাজ্জল হোসেন খান রঙিন ফিতা কেটে মিরিকজানের নতুন ঘর উদ্বোধন করেন। মিরিকজানকে মিষ্টিমুখ করিয়ে নতুন ঘরে প্রবেশ করানো হয়। আনন্দে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি।

মিরিকজানের বাড়ি গৌরীপুর পৌর শহরের চকপাড়া গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের মৃত মগর আলী ওরফে মকবুলের স্ত্রী।

মিরিকজান বলেন, ‘আমার ঘর ছিল না। আমি ঘর পাইছি। যারা আমারে ঘর বানাইয়্যা দিছে আমি তাদের সবার জন্য দোয়া করি। সবাইরে আল্লাহ ভালা রাহুক।’

গত ২২ জুন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমে ‘সব হারিয়ে নতুন ঘর চান মিরিকজান’ শিরোনামে একটি মানবিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এই প্রতিবেদনের সূত্র ধরে স্থানীয় চকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল করিম ললী মিরিকজানের ঘর নির্মাণের জন্য ব্যক্তিগত জমি দেন।

অপরদিকে প্রকাশিত সংবাদটি দৃষ্টিগোচর হওয়ার পর মিরিকজানের ঘর নির্মাণে অর্থয়ান করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা চেয়ারম্যান ও ডু সামথিং ফাউন্ডেশন। ঘর নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করেন গৌরীপুর উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারহানা করিম বলেন, ‘বার্তাটোয়ন্টিফোর.কমে খবর প্রকাশের পর উপজেলা প্রশাসন ও ডু সামথিং ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে মিরিকজানের জন্য নতুন ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। আজকে ঘর উদ্বোধন করা হয়েছে। মানবিক প্রতিবেদন প্রকাশের জন্য বার্তা২৪.কমকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

উল্লেখ্য, এর আগে ২২ জুন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমে ‘সব হারিয়ে নতুন ঘর চান মিরিকজান’ শিরোনামে খবর প্রকাশের পর হুইল চেয়ার, নতুন কাপড় ও চালের বস্তা সহযোগিতা পান তিনি।

'ঘাতকদের হাত থেকে আল্লাহ শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছেন'

'ঘাতকদের হাত থেকে আল্লাহ শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছেন'
ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া বক্তব্য রাখছেন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি বলেছেন, ‘সেই ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলা ছিল পূর্বপরিকল্পিত। তাই সেখানে মঞ্চ করতে দেয়া হয়নি। গ্রেনেড হামলার পর আহতদের চিকিৎসায় ঢাকা মেডিকেলের জরুরি বিভাগে কোনো ডাক্তার ছিল না। ঘাতকদের হাত থেকে স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা
বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছেন।’

বুধবার (২১ আগস্ট) গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চত্বরে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস এবং ২১ আগস্ট বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলায় নিহতদের শহীদদের স্মরণে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘সেই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় সংশ্লিষ্ট সকলকে শাস্তি পেতে হবে। জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী ছিলেন না। মুক্তিযুদ্ধের সময় জিয়া পাকিস্তান সরকারের হুকুম পালনে ব্যস্ত ছিলেন।’

ফুলছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল গফুর মন্ডলের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাঘাটা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির, ভাইস-চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম বিপ্লব, ফুলছড়ি উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আজহারুল ইসলাম বাবলু, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এটিএম রাশেদুজ্জামান রোকন, কঞ্চিপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লিটন মিয়া, উপজেলা সন্ত্রাস প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম, উদাখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগে সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান বাবু, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাহমুদ হাসান সুজা, উদাখালী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মাহদী মাসুদ পলাশ, গজারিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জিহাদুর রহমান মওলা, ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুদৌলা রাজু ও জাহাঙ্গীর আলমসহ অনেকে।

পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ২১ আগস্ট নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র