Alexa

শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী হয়রানি

সংবাদের সত্যতা প্রমাণে সাংবাদিকদের তলব তদন্ত কমিটির!

সংবাদের সত্যতা প্রমাণে সাংবাদিকদের তলব তদন্ত কমিটির!

শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রী হয়রানির ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির মুখোমুখি নাটোরের চার সাংবাদিক/ ছবি: বার্তা২৪.কম

নাটোরের নবাব সিরাজ-উদ্-দৌলা সরকারি কলেজের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান কর্তৃক এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির মুখোমুখি হয়েছেন নাটোরের চার সাংবাদিক। কলেজ প্রশাসন কর্তৃক প্রকাশিত সংবাদ প্রমাণে তথ্য ও প্রমাণ প্রদানের আহ্বানের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন স্থানীয় সাংবাদিকরা। 

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) বেলা ১২টায় নাটোর নিউজ পেপার রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ও বাংলাদেশ প্রতিদিন ও নিউজ টোয়েন্টিফোর-এর প্রতিনিধি নাসিম উদ্দীনের নেতৃত্বে একুশে টেলিভশন ও দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি নবীউর রহমান পিপলু, সময় টেলিভিশন ও আমাদের সময়ের প্রতিনিধি আল মামুন ও নিউজপেপার রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ও বার্তা২৪.কম-এর প্রতিনিধি নাইমুর রহমান হাজির হন তদন্ত কমিটির বৈঠকে।

এ সময় আরও উপস্থিত হন নাটোর প্রেসক্লাবের সভাপতি জালাল উদ্দীন ও সদস্য ফারাজী আহমেদ রফিক বাবন।
বৈঠকে সাংবাদিক নাসিম উদ্দীন বলেন, ‘প্রতিবেদনের সত্যতা প্রমাণে উচ্চ আদালত নির্দেশ দিলে তথ্য প্রমাণাদি নিয়ে হাজির হওয়ার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। অথচ কলেজ কর্তৃপক্ষ এভাবে তথ্য-প্রমাণ চাওয়ার ধৃষ্টতা দেখিয়েছে, যা নজিরবিহীন।’

জবাবে কলেজের উপাধ্যক্ষ ও তদন্ত কমিটির প্রধান আব্দুল মোত্তালেব সংবাদের প্রমাণাদি চাওয়াটা দুঃখজনক মন্তব্য করেন।

সংবাদ মিথ্যা প্রমাণে ছাত্রীদের স্বাক্ষর আদায়ের প্রসঙ্গ তোলা হলে আব্দুল মোত্তালেব বলেন, ‘ব্যবহারিক পরীক্ষার খাতা স্বাক্ষরের জন্য ছাত্রীদের নিকট থেকে স্বাক্ষর নেন উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক জেবুন্নেসা।‘

সাংবাদিকরা এ সময় অভিযুক্ত শিক্ষক কাজী ইসমাইলের অবস্থান সম্পর্কে জানতে চান। তবে এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি কোন মন্তব্য করেনি।

এ সময় তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক সদস্য অধ্যাপক গোলাম মওলা খান, ড. কলিম উল্লাহ, রবিউল ইসলাম, কিশোর কুমার মহন্ত, জান্নাতুল ফেরদৌস ও হিসাববিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এম এ তৌফিক উপস্থিত ছিলেন। 

সভা শেষে আব্দুল মোত্তালেব সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন ও দায়ী শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতেই সাংবাদিকদের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। এ নিয়ে যদি কোনো সাংবাদিক ক্ষুণ্ন হন, তবে আমরা ক্ষমাপ্রার্থী।’

উল্লেখ্য, গত ১৩ এপ্রিল নাটোরের নবাব সিরাজ-উদ্-দৌলা সরকারি কলেজের শিক্ষক কর্তৃক ছাত্রীকে যৌন নির্যাতনের ঘটনা নিয়ে প্রথম প্রতিবেদন প্রকাশ করে বার্তা২৪.কম। এরই প্রেক্ষিতে স্থানীয় সংসদ সদস্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কলেজ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়ার পর তদন্ত কমিটি করে কলেজ প্রশাসন।

আপনার মতামত লিখুন :

জেলা এর আরও খবর