Barta24

শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯, ৮ ভাদ্র ১৪২৬

English

জয়পুরহাটে ফণীর তাণ্ডবে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

জয়পুরহাটে ফণীর তাণ্ডবে ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি
জয়পুরহাটে ঝড়ে নুয়ে পড়েছে আধাপাকা ধানক্ষেত, ছবি: বার্তা২৪
ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
জয়পুরহাট


  • Font increase
  • Font Decrease

ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে জয়পুরহাট জেলায় বোরো ফসলসহ অন্যান্য ফসলের ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। শুক্রবার রাত থেকে শনিবার (৫মে) বিকেল পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে ভারী বর্ষণ হয়। এতে জেলার নিম্নাঞ্চলগুলোতে তলিয়ে গেছে ফসল। পাশাপাশি জলাবদ্ধতায় বেড়েছে জনদুর্ভোগ ।

সরেজমিনে জানা যায়, ভারী বর্ষণ হওয়ায় বেশির ভাগ ধানক্ষেতে পানি জমে গেছে। অনেক মাঠে কেটে রাখা ধান এখন পানির নিচে। এছাড়াও জেলার নিচু এলাকায় পানি জমে জলাবদ্ধতা দেখা দিয়েছে। সদর উপজেলার ধারকি গ্রামের ধান চাষি নজরুল ইসলাম বলেন,‘ঘূর্ণিঝড় ফণীর প্রভাবে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের কারণে ধান কাটতে পারিনি। তিন বিঘা পাকা ধানের জমিতে পানি জমেছে। আমাদের মাঠে অনেকের ক্ষেতের ধান নুয়ে পড়ায় ধানের ফলন কম হবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/04/1556979503425.jpg
একই কথা জানান আক্কেলপুর উপজেলার মাতাপুর গ্রামের কৃষক আশরাফুল ইসলাম, কালাই উপজেলার বিয়ালা গ্রামের কৃষক আব্দুল করিমসহ জেলার অনেকে। তারা বলেন, ‘উঁচু-নিচু সব জমিতেই পানি জমেছে। অনেকের ক্ষেতের ধান এখনো কাঁচা-পাকা, ধান কাটতে আরো সপ্তাহ খানেক সময় লাগবে। এ সময় আকস্মিক ঝড়বৃষ্টিতে ক্ষেতের ধান গাছের গোড়া থেকে ভেঙে গেছে। এ ছাড়া পাটক্ষেত, শাক-সবজি ক্ষেতেরও ক্ষতি হয়েছে।  এতে লোকসানের আশঙ্কা করছেন তারা।

জয়পুরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক সুধেন্দ্রনাথ রায় বলেন, জেলায় এবার ৭২ হাজার ১৪০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের বোরো ধান চাষ হয়েছে। এ ছাড়া আরও প্রায় ৪ হাজার হেক্টর জমিতে চাষ হয়েছে পাট শাক-সবজি অন্যান্য ফসল। ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণসহ কৃষকদের সহায়তা দেওয়ার জন্য কাজ করছে কৃষি বিভাগ।

আপনার মতামত লিখুন :

স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যার চেষ্টা, স্বামী আটক

স্ত্রীকে ছুরিকাঘাতে হত্যার চেষ্টা, স্বামী আটক
আটক হওয়া স্বামী, ছবি: সংগৃহীত

সিদ্ধিরগঞ্জে পারিবারিক কলহের জের ধরে স্ত্রীকে হত্যার উদ্দেশে পেটে ছুরিকাঘাত করার অভিযোগে স্বামী সোহাগ (৩৫) কে আটক করে গণধোলাই দিয়েছে এলাকাবাসী।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) দুপুর আড়াইটার দিকে মিজমিজি পূর্বপাড়া পাগলাবাড়ী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে সোহাগকে আটক করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশ।

গুরুতর আহত অবস্থায় গৃহবধূ মুন্নি আক্তারকে (২৮) ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুই সন্তানের জননীর অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে দাবি করেছে স্বজনরা।

আটককৃত সোহাগ কিশোরগঞ্জ জেলার ভৈরব থানা এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে। তিনি স্ত্রী সন্তান নিয়ে হালিম মোল্লার বাড়িতে ভাড়াটিয়া হিসেবে বসবাস করতেন।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) বাদশা আলম জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে সোহাগ তার স্ত্রী মুন্নি আক্তারের পেটে ছুরিকাঘাত করেছে। এ ঘটনায় স্বামী সোহাগকে আটক করা হয়েছে। উভয় পরিবারের সিদ্ধান্ত জেনে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

বিদ্যুতের নতুন সংযোগ পেলো ২৪৫ পরিবার

বিদ্যুতের নতুন সংযোগ পেলো ২৪৫ পরিবার
নতুন বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করা হচ্ছে, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হলো নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার হলদাহ গ্রামের ২৪৫ পরিবার।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) বিদ্যুৎ সুইচ টিপে আলো জ্বালিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন করেন লোহাগড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শিকদার আবদুল হান্নান রুনু।

নলদী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ পাখির সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর লোহাগড়ার পরিচালক অধ্যাপক আবু আবদুল্লাহ, যশোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর লোহাগড়ার এজিএম গোলাম রব্বানী প্রমুখ।

সূত্র জানায়, নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার হলদাহ গ্রামে ৮১ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রায় সাড়ে চার কিলোমিটার এলাকায় জুড়ে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে। এতে ওই গ্রামের ২৪৫ পরিবার বিদ্যুতের সুবিধা পেয়েছে। 

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র