প্রথম রমজানে সবজি-মাছের দর নিয়ে অসন্তোষ

মাজেদুল হক মানিক, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মেহেরপুর
গাংনী হাট। ছবি: বার্তা২৪.কম

গাংনী হাট। ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সবজির দর বেড়েছে দ্বিগুণ, আর মাছের দর কয়েক গুণ। ইফতারি পণ্যের দর আকাশ ছোঁয়া। প্রতিবাদ নেই, প্রতিকারের উপায় নেই। তাই ক্রেতাদের ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করা ছাড়া আর কোনো পুঁজিও নেই।

এই হচ্ছে মেহেরপুর জেলায় রমজানের প্রথম দিনের অবস্থা। মেহেরপুর জেলার সবচেয়ে বড় সবজির হাট হচ্ছে গাংনী হাট। সপ্তাহের প্রতি শনি ও মঙ্গলবার হাট বসে।

আজ মঙ্গলবার (৭ মে) প্রথম রোজায় হাটে ছিল প্রচণ্ড ভিড়। তবে আশানুরূপ নিত্যপণ্য কিনতে না পেরে ক্রেতারা কষ্ট নিয়েই ফিরে গেছে।

কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) নেতারা প্রথম রমজানে বাজার পরিদর্শন করে অসন্তোষ প্রকাশ করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এদিকে বেগুনি ছাড়া ইফতার হয় না এমন ধারণা অনেকের। তাইতো বেগুন বিক্রেতারাও সুযোগ নেয়। আজ বেগুনি বিক্রি হয়েছে ৬০ টাকা কেজি দরে। যা গত সপ্তাহে ছিল ২৫-৩০ টাকা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/07/1557246669135.gif

বেড়েছে অন্যান্য সবজির দাম। প্রতি কেজি করলা ৬০ টাকা, পটল ৫০-৬০ টাকা, সজনে ১৫০ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৩০ টাকা, কলা ৩০ টাকা (হালি) দরে বিক্রি হয়েছে।

বেড়েছে লেবুর দাম। ১৫ টাকা হালির লেবু ৩০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আলু, মরিচ, পেঁয়াজ ও রসুনের দর কিছুটা বৃদ্ধি পেলেও কাঁচা মরিচের দর বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েক গুণ।

এদিকে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত মাছের মধ্যে সিলভার কার্প, পাঙাশ, রুই ও কাতলা মাছের দর কিছুটা বৃদ্ধি পেয়েছে। কিন্তু ইলিশ মাছের দাম আকাশ ছুঁয়েছে। জাটকা ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৭০০-৮০০ টাকা কেজি দরে। তবে কোল্ড স্টোরেজে রাখা ইলিশের দাম জাটকার চেয়ে কম। প্রতি কেজি ৪০০-৫০০ টাকা।

এদিকে ইফতারি পণ্যের মধ্যে পাকা কলার দর বৃদ্ধি পেয়েছে বেশ। প্রতি হালি ২৫-৩৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। যা দুই দিন আগে ছিল ১২-১৫ টাকা হালি।

নিত্যপণ্যের মূল্য সহনীয় পর্যায়ে না থাকলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা করার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জেলা প্রশাসক আতাউল গনি। তিনি জানান, পুরো রমজানেই ভ্রাম্যমাণ আদালত বাজার মনিটরিংয়ে থাকবে।

 

আপনার মতামত লিখুন :