Alexa

গৃহবধূর গায়ে এসিড নিক্ষেপ করল ধর্ষণ মামলার আসামি

গৃহবধূর গায়ে এসিড নিক্ষেপ করল ধর্ষণ মামলার আসামি

হাসপাতালে ভর্তি গৃহবধূ ও আটককৃত অভিযুক্ত যুবক / ছবি: বার্তা২৪

গৃহবধূকে এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় ইয়াকুব আলী কাজল (২৩) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। কাজল ধর্ষণ মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা নিয়ে বেশ কয়েক মাস আত্মগোপনে ছিলেন বলে বলে জানা গেছে।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) রাতে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ধলা গ্রাম থেকে গাংনী থানা পুলিশ তাকে আটক করে। একই সঙ্গে গৃহবধূকে হাসাতালে ভর্তি করিয়েছে পুলিশ। কাজল গাংনী উপজেলার গাড়াডোব গ্রামের জালাল উদ্দীন হাবুর ছেলে।

গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্র নাথ সরকার জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে গৃহবধূ পুকুর থেকে গোসল করে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় রসিকতার ছলে পানি জাতীয় কিছু তার মুখ ও শরীরে ঢেলে দেয় কাজল। বিষয়টি প্রথম টের না পেলেও পরবর্তীতের এসিডের প্রতিক্রিয়া শুরু হলে গৃহবধূ ও তার পরিবার গোপন রেখেই পুলিশে জানায়। রাতেই কাজলকে আটক করা হয়।

গৃহবধূ অভিযোগ করে বলেন, ‘যাতায়াতের পথে বিভিন্ন সময় কাজল আমাকে লক্ষ্য করতো। সে আমাকে খুব পছন্দ করে এমন কথাবার্তা বলতো। আমি প্রতিবাদ করায় সে আমাকে এসিডে পুড়িয়ে দিয়েছে।’

গাংনী হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার এমকে রেজা বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে এসিড বলেই মনে হচ্ছে। প্রথামিক চিকিৎসা চলছে। এসিড নিশ্চিতের জন্য স্কিন পরীক্ষা করা হবে।’

গাডাডোব গ্রামের স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা গাংনী থানা উপ পরিদর্শক (এসআই) মাহতাব উদ্দীন বলেন, ‘গেল বছরের ২০ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ পূর্বক গণধর্ষণ করে কাজলসহ কয়েকজন। ওই ঘটনায় স্কুল ছাত্রীর মা বাদী হয়ে গাংনী থানায় একটি মামলা দায়ের করে। মামলার প্রধান আসামি হচ্ছে ইয়াকুব হোসেন জুয়েল। ঘটনার পর তারা আত্মগোপন করে।’

গাংনী থানার ওসি বলেন, ‘এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় গৃহবধূর পরিবার মামলা করছে। ধর্ষণ ও এসিড নিক্ষেপ মামলায় শুক্রবার তাকে আদালতে সোপর্দ করা হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :

জেলা এর আরও খবর