Alexa

বর আসার আগেই বিয়ে বাড়িতে হাজির ম্যাজিস্ট্রেট

বর আসার আগেই বিয়ে বাড়িতে হাজির ম্যাজিস্ট্রেট

মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান কনের বাবা, ছবি: সংগৃহীত

ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল চন্দ্র শীলের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে মাদ্রাসা ছাত্রী সাগরিকা আক্তার (১৫)। সাগরিকা আক্তার সদরপুরের শোনপাচা দাখিল মাদ্রাসার নবম শ্রেণীর ছাত্রী।

জানা যায়, সদরপুর উপজেলার আকোটের চর ইউনিয়নের নতুন সাহেবের চর গ্রামের আতাহার মোল্যার মেয়ে নবম শ্রেণীর ছাত্রী সাগরিকা আক্তারের সাথে একই গ্রামের আইয়ুব মোল্যার প্রবাসী পুত্র লিটন মোল্যার (২৮) বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা চলছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুক্রবার (১০ মে) বিকেল ৫টার দিকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও এসিল্যান্ড সজল চন্দ্র শীল কনের বাড়িতে হাজির হন।

ইফতারের পর কনের বাড়িতে বর আসার কথা ছিল। ওই বাড়িতে এসিল্যান্ড হাজির হওয়ার খবর পেয়ে পথ থেকেই ফিরে যান বরসহ বরযাত্রীরা।

এ সময় বিয়ে বন্ধ করে বিয়ে বাড়ি থেকে কনের বাবাকে আটক করেন এসিল্যান্ড। পরে কনের বাবা তার কন্যা প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত বিবাহ দিবে না মর্মে মুচলেকা দেন নির্বাহী ম্যাজিট্রেট এর কাছে। পরে কনের বাবাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্য ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা উপস্থিত ছিলেন।

সদরপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সজল চন্দ্র শীল জানান, নবম শ্রেণীতে পড়ুয়া মাদরাসা ছাত্রীর বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কনের বাড়িতে হাজির হওয়ার সংবাদ পেয়েই বর আর আসেনি। তিনি বলেন, কনের বাবাকে আটক করা হয়, পরে মেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক হবে না মর্মে মুচলেকা দেওয়ায় তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এসিল্যান্ড আরও বলেন, বাল্যবিয়ে বন্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

 

আপনার মতামত লিখুন :