Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সুপেয় পানির তীব্র সংকট

চাঁপাইনবাবগঞ্জে সুপেয় পানির তীব্র সংকট
চাঁপাইনবাবগঞ্জে সুপেয় পানির জন্য মানুষের দীর্ঘ অপেক্ষা, ছবি: বার্তা২৪.কম
মো.তারেক রহমান
ডিস্ট্রিক করেসপন্ডেন্ট বার্তা ২৪.কম
চাঁপাইনবাবগঞ্জ


  • Font increase
  • Font Decrease

চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকায় সুপেয় পানির তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। পৌর এলাকার অধিকাংশ নলকূপে পানি উঠছে না। তীব্র দাবদাহ আর পানির সংকটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন স্থানীয়রা। 

স্থানীয়রা জানায়, এখানকার হাতে গোনা কয়েকটি নলকূপে সামান্য পানি উঠলেও বেশিরভাগ এলাকার নলকূপে পানি পাওয়া যাচ্ছে না। এতে রমজান মাসে বিপাকে পড়েছেন তারা। পৌর এলাকার বাতেন খাঁর মোড়, পিটিআই মাস্টার পাড়া,পাওয়ার হাউস মোড়,দরগা পাড়া বিডিআর কলোনির মানুষ পড়েছে চরম পানি সংকটে। আবার যেসব এলাকায় পানি উঠছে তা প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম।

স্থানীয়দের অভিযোগ, পৌরসভার লাইনে যে পানি সরবরাহ করা হয় তা অত্যন্ত নোংরা ও ময়লাযুক্ত। ফলে রমজান মাসে সাধারণ মানুষকে বাধ্য হয়ে পানি কিনে প্রয়োজন মেটাতে হচ্ছে।

পৌর এলাকার নিমতলার বাসিন্দা মনোয়ার হোসেন জুয়েল বলেন, পৌরসভার পানিতে ময়লা ও দুর্গন্ধ থাকায় তা একেবারেই ব্যবহারের অনুপযোগী। সুপেয় পানি সংগ্রহ করতে হচ্ছে প্রায় আধা কিলোমিটার দূর বাতেন খাঁর মোড়ের নলকূপ থেকে। সেখানে পানি সংগ্রহ করতে গিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে হয় দীর্ঘক্ষণ।

একই অভিযোগ করেন পিটিআই মাস্টার পাড়ার বাসিন্দা আশরাফুল ইসলাম। তিনি জানান,শুধু রমজান নয় পুরো বছর বাইরে থেকে পানি কিনে পান করতে হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/11/1557557128970.jpg

দরগা পাড়ার বাসিন্দা মঞ্জুর জানান,দরগা পাড়ার সবগুলো বাড়ির নলকূপে পানি উঠে না। একটিমাত্র নলকূপে পানি উঠে। ওই নলকূপ থেকে খাবার পানি সংগ্রহ করতে হয়। সেটাও আবার সব সময় পাওয়া যায় না। হাতে কলস ও বালতি নিয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাড়িয়ে অপেক্ষা করতে হয়।

পৌরসভার লাইনের পানিকে ফিল্টার করার ঝামেলা বা পানি ফুটিয়ে পান করার চেয়ে বাতেন খাঁর নলকূপের পানি নিরাপদ বলে জানান হরিমোহন সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক সৈয়দ মফিজুল ইসলাম।

জানা গেছে, পৌরসভা এলাকা সুপেয় পানি চাহিদা মেটাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে বাতেন খাঁর মোড়ে একটি নলকূপ স্থাপন করা হয় কয়েক বছর আগে । আর এ নলকূপের ওপর নির্ভর করে এখনও খাবার পানির চাহিদা মেটাচ্ছে অসংখ্য পরিবার।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/11/1557557923332.jpg

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে সর্বপ্রথম আর্সেনিক ধরা পড়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বারঘোরিয়া এলাকায়। জনস্বাস্থ্য ও প্রকৌশল অধিদফতর ১৯৯৩ সালে নবাবগঞ্জ সদর (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) উপজেলার বারঘোরিয়া মৌজায় কয়েকটি নলকূপে পরীক্ষা চালিয়ে এখানকার ভূগর্ভস্থ পানিতে আর্সেনিক রয়েছে বলে ঘোষণা করে।

সরকার নানাভাবে আর্সেনিকমুক্ত পানি সরবরাহের চেষ্টা করে আসলেও চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরে খাবার পানির সংকট দেখা যায় বছরের বেশিরভাগ সময়। বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে সুপেয় পানির আকাল দেখা যায়।

পৌর এলাকার যে কয়েকটি নলকূপে পানি উঠে প্রতিদিন তিন-চার কিলোমিটার দূর থেকে এসে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নারী-পুরুষ ও শিক্ষার্থীরা লাইনে দাঁড়িয়ে সুপেয় পানি সংগ্রহ করে।

পানির সংকট মেটাতে পৌরসভা বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে নলকূপ স্থাপনের দাবি জানিয়েছে পৌরবাসী।

আপনার মতামত লিখুন :

কুষ্টিয়ায় বজ্রপাতে দুই কৃষক নিহত

কুষ্টিয়ায় বজ্রপাতে দুই কৃষক নিহত
প্রতীকী

কুষ্টিয়ায় বজ্রপাতে খাইরুল ইসলাম (৩৫) ও নিজাম উদ্দিন (৬০) নামে দুই কৃষকের মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকেল ৩টার দিকে ইবি থানার শেখপাড়া আনন্দনগর মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত খাইরুল ইসলাম পাবনা জেলার চাটমোহর থানার খৈরাজ গ্রামের মাহির প্রামাণিকের ছেলে ও নিজাম উদ্দিন একই এলাকার বাসিন্দা। তারা চুক্তিতে শেখপাড়ায় ধান লাগানোর জন্য এসেছিলেন।

স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

আরেক কৃষক নুর ইসলাম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, আমরা তিনজন ধান লাগানোর জন্য এক মাস ধরে শেখপাড়া গ্রামের জামিরুল ইসলামের বাড়িতে ছিলাম। দুপুরে আমরা তিনজন ধান লাগাচ্ছিলাম। পরে আমি জমির মালিকের বাড়ি থেকে ভাত আনতে গিয়েছিলাম। ভাত আনার সময় প্রচণ্ড বজ্রপাত হচ্ছিল। পরে এসে দেখি তারা দুজন মাঠের মধ্যে পড়ে আছে। এরপর স্থানীয়দের সহযোগিতায় দ্রুত তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাই।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক ডা. ইকবাল হোসেন জানান, হাসপাতালে আনার আগেই তারা দুবজন মারা যান।

প্রতারণা: নাইজেরিয়ান নাগরিক জেমস ২ দিনের রিমান্ডে

প্রতারণা: নাইজেরিয়ান নাগরিক জেমস ২ দিনের রিমান্ডে
নাইজেরিয়ান নাগরিক জিম ওরফে জেমস। ছবি: সংগৃহীত

নাটোরে ফেসবুক বন্ধুর কাছ থেকে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নেয়ার সময় গ্রেফতারকৃত নাইজেরিয়ান নাগরিক জিম ওরফে জেমসের বিরুদ্ধে দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুরে নাটোরের অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মামুনুর রশীদ এ আবেদন মঞ্জুর করেন।

এর আগে নাটোর ডিবি পুলিশের পুলিশ পরিদর্শক লিটন কুমার সাহা গ্রেফতারকৃত জেমসের বিরুদ্ধে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

গত ৪ জুলাই শহরের চকরামপুর এলাকা থেকে প্রতারণাকালে জেমসকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জেমস নাইজেরিয়ার বেনিন শহরের ইয়ারীর ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জেমস নামে ওই নাইজেরিয়ান নাগরিক গুরুদাসপুর উপজেলার পুরুলিয়া গ্রামের স্কুল শিক্ষক দেলোয়ার জাহানের সঙ্গে ফেসবুকের মাধ্যমে সম্পর্ক গড়ে তোলেন। ওই সম্পর্কের সূত্র ধরে বিভিন্নভাবে শিক্ষক দেলোয়ারকে বিদেশে নিয়ে যাওয়া এবং ব্যবসা করে অনেক টাকা লাভের লোভ দেখান।

এভাবে দেলোয়ার জাহানের কাছ থেকে ২ লাখ ৯২ টাকা হাতিয়ে নেন জেমস। এরই এক পর্যায়ে জেমস পুনরায় তার কাছে আরও ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। ঘটনাটি নিয়ে সন্দেহ হলে নাটোরের গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশকে বিষয়টি জানান দেলোয়ার জাহান।

গত ৪ জুলাই সকালে শহরের চকরামপুর এলাকা থেকে জেমসকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার কাছ থেকে একটি বিদেশি ড্রাইভিং লাইসেন্স ও একটি ভিসার কাগজ পাওয়া যায়।

নাটোর ডিবি পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈকত দুইদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র