Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বাজেটে বিড়ি শিল্পের ওপর ট্যাক্স কমানোর দাবি

বাজেটে বিড়ি শিল্পের ওপর ট্যাক্স কমানোর দাবি
সংবাদ সম্মেলন করে নীলফামারীর তামাক চাষি সমিতি / ছাবি: সংগৃহীত
সেন্ট্রাল ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বাজেটে বিড়ি শিল্পের ওপর ট্যাক্স কমানো, তামাক চাষিদের ন্যায্য মূল্য দেওয়া ও তাদের সুরক্ষার জন্য নীতিমালা প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে নীলফামারীর তামাক চাষি সমিতি।

শনিবার (১১ মে) নীলফামারীর প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেনে এসব দাবি জানান সমিতির সভাপতি হামিদুল হক চেয়ারম্যান ও সাধারণ সম্পাদক মাসুম ফকির।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- সমিতির সহ-সভাপতি শফিকুল্ ইসলাম তুহিন, ব্যবসায়ী নেতা আয়ুব হোসেন, কৃষক নেতা সালাউদ্দিন প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে বক্তারা বলেন, দেশের উত্তরবঙ্গ বিশেষ করে বৃহত্তর রংপুরে অনেক মানুষ তামাক চাষের সঙ্গে জড়িত। কারণ এখানে তামাক ছাড়া অন্য কোনো ফসল ভালো হয় না। তামাক চাষ করেই চাষিদের জীবিকা নির্বাহ হয়। আর এ তামাক ব্যবহার হয়ে থাকে বিড়ি শিল্পের কাঁচামাল হিসেবে। বিড়ির ওপর সাম্প্রতিক সময়ে মাত্রা অতিরিক্ত করারোপের ফলে কারখানাগুলো বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে হাজার হাজার তামাক চাষি। অর্থনীতিতেও বিরুপ প্রভাব দেখা দিচ্ছে।

লিখিত বক্তব্যে নেতৃবৃন্দ বলেন, বিড়ি একটি কুটির ও শ্রম ঘন শিল্প। এর সঙ্গে লাখ লাখ মানুষ জড়িত। প্রতিবেশী দেশ ভারতে যেখানে বিড়িকে কুটির শিল্প হিসেবে ঘোষণা দিয়ে সুরক্ষা দেওয়া হচ্ছে, সেখানে বাংলাদেশে বিড়ির ওপর অতিরিক্ত করারোপ করে এই শিল্পকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। ভারতে যে সব কারখানায় ২০ লাখ স্টিকের নিচে বিড়ি তৈরি হয় সেসব কারখানাকে কোনো শুল্ক দিতে হয় না। অথচ বাংলাদেশে সব ধরনের কারখানাকে শুল্ক দিতে হয়। ভারতের চেয়ে বাংলাদেশে শুল্ক ১৮ গুণ বেশি। ভারতে এক হাজার বিড়িতে শুল্ক মাত্র ১৪ টাকা। বাংলাদেশে ২৫২ টাকা ৫০ পয়সা।

তারা আরও বলেন, বিড়ির ওপর এই অসম শুল্কা আরোপের পেছনে ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকো কোম্পানির হাত রয়েছে। তারা সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে হাত করে বিড়ির ওপর অতিরিক্ত করারোপে ভূমিকা রাখছে। বিড়ি ফ্যাক্টরিগুলোতে কর্মরত শ্রমিকের সংখ্যা কয়েক লাখ। সে তুলনায় সিগারেট ফ্যাক্টরিগুলোতে শ্রমিকের সংখ্যা নগণ্য। বিড়ি এবং সিগারেটের পরিবেশগত বিপর্যয়ও সম্পূর্ণ ভিন্ন। এক হিসেবে সিগারেট উৎপাদনে বছরে পরিবেশগত ক্ষতির পরিমাণ বছরে ১৬ হাজার ৮০০ কোটি টাকা। সিগারেট সব দিক থেকে অর্থনীতির ক্ষতি করলেও বৈষম্যের শিকার হচ্ছে শুধুমাত্র বিড়ি।

আপনার মতামত লিখুন :

নুসরাতের সেই মাদরাসায় সিসি ক্যামেরা

নুসরাতের সেই মাদরাসায় সিসি ক্যামেরা
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

ফেনীর সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদরাসায় ১০টি সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। পরিচালনা পর্ষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের গতিবিধি লক্ষ্য রাখতেই মাদরাসার বিভিন্ন স্থানে এসব ক্যামেরা বসানো হয়েছে।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকালে মাদরাসাটি সম্পূর্ণ সিসি ক্যামেরার নজরদারিতে আনার কাজ শেষ হয়।

এই মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলার যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। তারপর থেকেই আলোচিত হয়ে ওঠে মাদরাসাটি। তবে সিসি ক্যামেরার স্থাপনের কারণে মাদরাসায় যেকোনো অপরাধ নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে আশা প্রকাশ করছেন মাদরাসা সংশ্লিষ্টরা।

সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল ডিগ্রি মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওলানা মোহাম্মদ হোছাইন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, গভর্নিং বডির সর্বসম্মতিক্রমে মাদরাসা পুরোপুরি সিসি ক্যামেরার আওতাভুক্ত করা হয়েছে। আশা করি, এবার কোনো অপরাধ সংঘটিত হলে প্রমাণ হিসেবে সিসিটিভিতে রেকর্ড থাকবে, কেউ অপরাধ করেও পার পাবে না।

নেত্রকোনায় শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় হুমায়ূনকে স্মরণ

নেত্রকোনায় শ্রদ্ধা-ভালোবাসায় হুমায়ূনকে স্মরণ
কেন্দুয়ায় হুমায়ূন আহমেদের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের ৭ম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়েছে।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) সকাল থেকে কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামে হুমায়ূন আহমেদ প্রতিষ্ঠিত শহীদ স্মৃতি বিদ্যাপীঠের উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

কর্মসূচির মধ্যে ছিল, হুমায়ূন আহমেদের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, শোক র্যা লি, মিলাদ, দোয়া মাহফিল ও কোরআন খতম।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/19/1563537372226.jpg
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে এসব কর্মসূচিতে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকসহ এলাকার লোকজন স্বতঃফূর্তভাবে অংশ নেন।

এছাড়া স্থানীয় রোয়াইলবাড়ি আমতলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট নূরে আলমের নেতৃত্বে দলীয় নেতাকর্মীরাও বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেন।

অপরদিকে সকালে হিমু পরিবহনের ক্ষুদ্র খান, আফরিদ জাহান খান, জয় রায় ও রুহুল আমিনসহ অন্য সদস্যরা কেন্দুয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মাহমুদুল হাসান ও ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামানকে সঙ্গে নিয়ে শোক র্যাুলি শেষে থানা প্রাঙ্গণে বিভিন্ন ফলজ ও ঔষধি বৃক্ষের চারা রোপন করেন এবং বিকেলে কেন্দুয়া রিপোর্টার্স ক্লাবে চর্চা সাহিত্য আড্ডা সংগঠন ও হুমায়ূন আহমেদ স্মৃতি সংসদের যৌথ উদ্যোগে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র