Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

হবিগঞ্জে ১৯ হাজার মেট্রিক টন বোরো ধান-চাল সংগ্রহ

হবিগঞ্জে ১৯ হাজার মেট্রিক টন বোরো ধান-চাল সংগ্রহ
বোরো ধান-চাল সংগ্রহ চলছে, ছবি: বার্তা২৪
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
হবিগঞ্জ


  • Font increase
  • Font Decrease

সরকারের অভ্যন্তরীণ বোরো সংগ্রহের আওতায় হবিগঞ্জ জেলায় প্রায় ১৯ হাজার মেট্রিক টন চাল এবং ধান সংগ্রহের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ৯ উপজেলার ১০টি খাদ্য গুদামে এগুলো সরবরাহ করছে ৮৯টি রাইস মিল।

মঙ্গলবার (১৪ মে) শহরের গরুর বাজার এলাকাস্থ খাদ্য গুদাম কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মো. আবু জাহির।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলাম, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা মো. আব্দুস সালাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাখাওয়াত হোসেন রুবেল, সদর উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান, ব্যবসায়ী নেতা আলহাজ, আব্দুর রহমান, জেলা পারিষদের সদস্য নূরুল আমীন ওসমান, হুমায়ুন কবির রেজা, মিজানুর রহমান মিজান, কাউন্সিলর জাহির মিয়াসহ সরকারি কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন ব্যবসায়ীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা খাদ্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান জানান, জেলার ১০টি খাদ্য গুদামে ১৫ হাজার ৬৩১ মেট্রিক টন চাল সংগ্রহ করা হচ্ছে। এর মাঝে ৩৬ টাকা কেজি দরে ৯ হাজার ৬৩০ মেট্রিক টন সিদ্ধ চাল এবং ৩৫ টাকা কেজি দরে ৬ হাজার ১ মেট্রিক টন আতব চাল। এছাড়াও ২৬ টাকা কেজি দরে সংগ্রহ করা হচ্ছে ৩ হাজার ৬৫৪ মেট্রিক টন বোরো ধান। আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত এই বোরো সংগ্রহ কর্মসূচি চলমান থাকবে বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

পুকুর ভাড়ায় পাট জাগ, দুর্ভোগে চাষিরা

পুকুর ভাড়ায় পাট জাগ, দুর্ভোগে চাষিরা
ভাড়া করা পুকুরে পাট জাগ দিচ্ছেন এক কৃষক

আধুনিক প্রযুক্তির কল্যাণে কৃষকের ভাগ্যের উন্নয়ন ঘটেছে। বিজ্ঞানের যুগান্তকারী নানা উদ্ভাবনের ফলে কৃষিকাজ হয়েছে সহজতর। কিন্তু পাটের আঁশ ছাড়ানোর সেই সনাতন পদ্ধতি আজও রয়ে গেছে।

একদিকে অনাবৃষ্টি অন্যদিকে খাল-বিল, নদী-নালা ভরাটের ফলে পাট জাগ দেওয়া নিয়ে কৃষকের দুর্ভোগের সীমা নেই। বাধ্য হয়ে অন্যের পুকুর ভাড়া নিয়ে পাট জাগ দিচ্ছেন মেহেরপুর জেলার কৃষকরা। আর একই পুকুরে বার বার পাট জাগ দেওয়ায় পাটের রং যাচ্ছে নষ্ট হয়ে। ফলে পাটের দাম কম পাচ্ছেন চাষিরা।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, জেলায় চলতি মৌসুমে ১৯ হাজার ৯২০ হেক্টর জমিতে পাট আবাদ হয়েছে। যা গত বছর ছিল ২৫ হাজার হেক্টরের উপরে। পাট চাষ নিয়ে নানা রকম সমস্যা ও দর পতনের ফলে চাষিরা অর্থকরী এই ফসল আবাদে বিমুখ হচ্ছেন।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566206669467.jpg

বানিয়াপুকুর গ্রামের কৃষক আব্দুল ওয়াদুদ বলেন, বর্ষাকালে চাইলেই সব ফসল আবাদ করা যায় না। কিছু জমি আছে যেখানে একমাত্র পাট আবাদ করা যায়। ফলে বাধ্য হয়ে পাট আবাদ করতে হচ্ছে।

ভোমরদহ গ্রামের পাটচাষি মিলন হোসেন বলেন, ১ বিঘা জমির পাট জাগ দিতে পুকুর ভাড়া দিতে হচ্ছে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত। একটি পুকুরে বার বার পাট জাগ দিতে গিয়ে পাটের রং নষ্ট হচ্ছে। ফলে দর কমে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: পুকুর ভাড়া নিয়ে চলছে পাট জাগ

চাষি আরও জানান, সব পাটচাষির নিজস্ব পুকুর নেই। খাল-বিল, নদী-নালায়ও নেই পানি। আবার কিছু জলাশয় বেদখল হয়েছে। ফলে পুকুর ভাড়া নিয়ে পাট জাগ দেওয়া ছাড়া তাদের বিকল্প কোন উপায়ও নেই।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/19/1566206786332.jpg

স্থানীয় বাজারে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রতি মণ পাট বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার ২০০ টাকা থেকে ১ হাজার ৪০০ টাকা দামে। এই দরে পাট বিক্রি করে লাভ তো দূরের কথা আবাদ খরচই উঠছে না বলে জানিয়েছেন চাষিরা।

মেহেরপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক ড. আখতারুজ্জামান বলেন, পাটের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করা না গেলে এক সময় পাট আবাদ বন্ধ হয়ে যাবে। প্রতি বছর আবাদ খরচ বৃদ্ধি পেলেও পাটের দর বৃদ্ধি পাচ্ছে না, এটা দুঃখজনক।

চুয়াডাঙ্গায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক আটক

চুয়াডাঙ্গায় শিশু ধর্ষণের অভিযোগে ধর্ষক আটক
শিশু ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেফতার, ছবি: সংগৃহীত

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ভূমিহীন পাড়ায় তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনায় সোমবার (১৯ আগস্ট) সুলতান (২১) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।

সুলতান একই এলাকার ভূমিহীনপাড়ার তুরাপ আলির ছেলে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, রোববার (৪ আগস্ট) দুপুরে খালি বাসায় শিশুটিকে ধর্ষণ করে সুলতান। বাবা-মা বাসায় ফিরলে শিশুটি ঘটনাটি তাদের অবহিত করে। এই ঘটনায় শিশুটির মা বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। সোমবার দুপুরে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ধর্ষক সুলতানকে ভূমিহীন পাড়ার নিজ বাড়ি থেকে আটক করে।

দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস জানান, ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছে। শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র