Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

দুবলা শুঁটকি পল্লী থেকে অর্ধকোটি টাকারও বেশি রাজস্ব আদায়

দুবলা শুঁটকি পল্লী থেকে অর্ধকোটি টাকারও বেশি রাজস্ব আদায়
শুঁটকি পল্লী
আবু হোসাইন সুমন
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বাগেরহাট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বঙ্গোপসাগর পাড়ের সুন্দরবনের দুবলা চরের শুঁটকি মৌসুমে এবার প্রায় অর্ধকোটি টাকারও বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে। এ মৌসুমে মূলত কোন ধরণের প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও বনদস্যুদের উৎপাতও তেমন না থাকায় জেলেরা সাগর থেকে অধিক পরিমাণ মাছ আহরণ ও চরগুলোতে শুঁটকি প্রক্রিয়াকরণ করতে সক্ষম হয়েছে। ফলে জেলে-মহাজনেরা অধিক লাভবান তো হয়েছেই সেই সাথে বনবিভাগেরও বিগত বছরের তুলনায় ৫৬ লাখ টাকার অধিক রাজস্ব আদায় হয়েছে। 

বনবিভাগ জানায়, বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবনের শরলখোলা রেঞ্জের দুবলার চরে অক্টোবর থেকে এপ্রিল মাস পর্যন্ত চলে শুঁটকি প্রক্রিয়াকরণ মৌসুম। মৌসুম শুরু হলেই দেশের বিভিন্ন এলাকার জেলেরা জড়ো হয় দুবলার বিভিন্ন চরে। এ সময় চরগুলোতে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ অস্থায়ী বসতি ঘরে মাছ আহরণ ও শুঁটকি তৈরির কাজ করে থাকে। তবে চরে ভয় থাকে ঝড়-জলোচ্ছ্বাস ও দস্যুতার। এ মৌসুমে তেমন কোন ঝড়-ঝাপটা না থাকায় শুঁটকি তৈরিতে কোন ক্ষতি হয়নি জেলে-মহাজনদের।

এছাড়া সম্প্রতি আইনশৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা বৃদ্ধিতে বড় বড় দস্যু বাহিনী প্রধান ও সদস্যরা ক্রসফায়ারে নিহত ও প্রাণ বাঁচাতে অনেক বাহিনী আত্মসমর্পণ করায় সাগর-সুন্দরবনে দস্যুতা না থাকায় জেলেরা আনন্দে মাছ শিকার ও শুঁটকি তৈরি করতে পেরেছে। ফলে লাভবান জেলে-মহাজন ও বনবিভাগ উভয়ই হয়েছে।

বনবিভাগ আরো জানায়, দুবলার চরের আওতাধীন আলোরকোল, মেহেরআলীর চর, মাঝের কেল্লা, নারকেলবাড়িয়া ও শেলার চরে এবার অস্থায়ী শুঁটকি পল্লীর জন্য ১ হাজার ২৫টি জেলে ঘর, ৪৮টি ডিপো ঘর, ৭৯টি অস্থায়ী দোকান ও ৭টি ভাসমান দোকানের অনুমতি দেয়া হয়। এ বছরের মৌসুম শেষে শুঁটকি খাত থেকে বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগ রাজস্ব আয় করেছে ২ কোটি ৪৪ লাখ ৮৫ হাজার ৬৮০ টাকা। গত মৌসুমে রাজস্ব আদায় হয়েছিল ১ কোটি ৮৮ লাখ ৮০ হাজার ৪৩৯ টাকা। ভাল আবহাওয়া ও দস্যু মুক্ত থাকায় প্রায় অর্ধ কোটি টাকারও বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে।

বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, এবারের শুঁটকি আহরণের সময় বড় ধরণের কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও বনদস্যুদের উৎপাত না থাকায় জেলেরা অনেক বেশি মাছ আহরণ করতে পেরেছে। আর বন বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কঠোর নজরদারিতে রাজস্ব আয়ও বেড়েছে। রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রাও অর্জিত হয়েছে বলে জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

বাংলাবাজারের খালের উপর থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

বাংলাবাজারের খালের উপর থেকে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
বাংলাবাজারের খালের উপর গড়ে ওঠা বেশ কয়েকটি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। ছবি: বার্তা২৪.কম

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে খালের উপর গড়ে ওঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) দুপুরে উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের বাংলাবাজারের খালের উপর গড়ে ওঠা বেশ কয়েকটি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়।

জানা যায়, বাংলাবাজারের পশ্চিম পাশে কচ্ছপদের বাড়ি থেকে পূর্ব বাজার স্কুল গেইট পর্যন্ত ওই খালের উপর বেশ কয়েকটি স্থাপনা নির্মাণ করে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। মঙ্গলবার দুপুরে বাজারের জিরোপয়েন্ট থেকে স্কুল গেইট পর্যন্ত অন্তত ১০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/16/1563278483803.jpg

এই ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়াছিন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়াছিন বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে খালের উপর গড়ে ওঠা বেশ কয়েকটি বাণিজ্যিক স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। যেগুলো বাকি রয়েছে তা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে উচ্ছেদের ব্যবস্থা করা হবে।

পাসপোর্ট করতে এসে ভুয়া বাবাসহ রোহিঙ্গা নারী আটক

পাসপোর্ট করতে এসে ভুয়া বাবাসহ রোহিঙ্গা নারী আটক
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

কক্সবাজারে পাসপোর্ট করতে এসে ভুয়া বাবাসহ এক রোহিঙ্গা নারীকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) বিকেলে কক্সবাজার আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটকরা হলেন- রোহিঙ্গা নারী ছেনুয়ারা বেগম (২১) ও আমির হোসেন। ছেনুয়ারা জামতলী রোহিঙ্গা শিবিরের কামাল উদ্দিনের মেয়ে। আর আমির চকরিয়ার খুটাখালীর পূর্ব হাজীপাড়ার বাক্কুম এলাকার ফজল আলীর ছেলে।

Cox's Bazar Rohinga

কক্সবাজার আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সহকারী পরিচালক আবু নঈম মাসুম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, আমির হোসেনের আসল মেয়ের নাম ফাতেমা খাতুন। ওই নামে ছেনুয়ারাকে ফাতেমার সব ডকুমেন্ট দিয়ে পাসপোর্ট করতে আনেন আমির। কিন্তু সন্দেহ হলে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এক পর্যায়ে ছেনুয়ারা নিজেকে রোহিঙ্গা বলে স্বীকার করেন। পরে দুইজনকে আটক করে পুলিশ।

এবিষয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদ উদ্দিন খন্দকার বলেন, তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র