Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

শিশু ধর্ষণের অভিযোগে কাশিমপুর কারাগারে কিশোর

শিশু ধর্ষণের অভিযোগে কাশিমপুর কারাগারে কিশোর
শিশু ধর্ষণের প্রতীকী ছবি
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
চাঁদপুর


  • Font increase
  • Font Decrease

সাত বছর বয়সী শিশুকে ধর্ষণের দায়ে এক কিশোরকে কাশিমপুর আদালতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে চাঁদপুর বিজ্ঞ আদালত।

রোববার (১৯ মে) দুপুরে পুলিশ ওই কিশোরকে চাঁদপুর আদালতে হাজির করলে এই আদেশ প্রদান করা হয়। এসময় ধর্ষিত শিশুকে তার বাবার কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ।

ঘটনাটি চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ উপজেলার রাজারগাঁও ইউনিয়নের পশ্চিম রাজারগাঁও গ্রামের। গত ১৬ মে শিশু ধর্ষিত হয়। ধর্ষণকারী ওই কিশোর একই গ্রামের গিয়াস উদ্দিন বেপারী বাড়ির জাফর আহম্মদের ছেলে রাব্বি (১৭)।

ধর্ষিত শিশু স্থানীয় বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী। শিশুর বাবার দেয়া অভিযোগের ভিত্তিতে ১৮ মে শনিবার দুপুরে থানার উপ-পরিদর্শক সঞ্জয় রায় ওই কিশোরকে আটক করে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, তিন মাস আগে তার মা মারা যায়। বাবা আরেকটি বিয়ে করেন। শিশুটি বাড়িতে দাদী ও সৎ মায়ের কাছে থাকেন। বাবা কর্মসূত্রে ঢাকায় থাকেন। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বাড়ির পাশে নির্জন স্থানে নিয়ে রাব্বি শিশুটিকে ধর্ষণ করে। পরে শিশুটি কাঁদতে কাঁদতে বাড়িতে ফিরে দাদীকে অসুস্থতার কথা জানান। এরপর পরিবারের লোকজন তাকে গ্রাম্য চিকিৎসকের কাছে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়েছে।

হাজীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ বলেন, ‘রোববার ধর্ষক রাব্বীকে আদালতে হাজির করা হয়। সে কিশোর হওয়ায় কাশিমপুর কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেয়া হয়েছে। শিশুটির মেডিকেল পরীক্ষা শেষে তার বাবার দায়িত্বে দেয়া হয়েছে।’

আপনার মতামত লিখুন :

মাসহ সাবেক সেনা সদস্যকে গলা কেটে হত্যা

মাসহ সাবেক সেনা সদস্যকে গলা কেটে হত্যা
ছবি: সংগৃহীত

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় মাসহ সাবেক সেনা সদস্যকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বত্তরা। বুধবার (২৬ জুন) রাতে উপজেলার দুর্গানগর ইউনিয়নের মহেশপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার মহেশপুর গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য আলতাফ হোসেন মুকুল ও তার বৃদ্ধা মা রিজিয়া খাতুন।

উল্লাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেওয়ান কওশিক আহম্মেদ বলেন, ‘থানার মহেশপুর গ্রামে মা ও ছেলেকে কুপিয়ে হত্যার খবর পেয়েছি। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।’

বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় একজনকে গ্রেফতার

বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় একজনকে গ্রেফতার
রিফতাকে কুপিয়ে আগাত করার সময় তার স্ত্রী ঠেকানোর চেষ্টা করেন, ছবি: সংগৃহীত

বরগুনায় শাহ নেওয়াজ রিফাত শরীফ (২৫) হত্যা মামলার চার নম্বর আসামি চন্দনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) সকালে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন বরগুনা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির হোসেন জানান, রিফাত হত্যার ঘটনায় তার বাবা দুলাল শরীফ বাদী হয়ে ১২ জনকে আসামি করে মামলা করেন। অভিযান চালিয়ে মামলার অভিযুক্ত চার নম্বর আসামি চন্দনকে গ্রেফতার করা হয়।

আরও পড়ুন: আপ্রাণ চেষ্টা করেও স্বামীকে বাঁচাতে পারলেন না স্ত্রী

আরও পড়ুন: ঘাতক নয়নকে আটকাতে বরগুনার মোড়ে মোড়ে চেকপোস্ট

বুধবার (২৬ জুন) সকালে রিফাত শরীফ তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে নিয়ে বরগুনা সরকারি কলেজে যান। কলেজ থেকে ফেরার পথে নয়ন, রিফাত ফরাজীসহ চার যুবক রিফাত শরীফের ওপর হামলা চালান। এ সময় তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে রিফাত শরীফকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকেন। এতে বাধা দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেন রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা। কিন্তু কিছুতেই হামলাকারীদের থামাতে পারেননি তিনি।

আরও পড়ুন: যে কারণে খুন করা হয় রিফাতকে

তারা রিফাত শরীফকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে ফেলে রেখে যাওয়ার পর তাকে প্রথমে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে ভর্তির এক ঘণ্টা পর বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র