Alexa

কৃষকদের বাড়ি গিয়ে ধান ক্রয় করলেন ইউএনও

কৃষকদের বাড়ি গিয়ে ধান ক্রয় করলেন ইউএনও

ইউএনও’র তত্ত্বাবধানে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান কেনা হচ্ছে/ ছবি: বার্তা২৪.কম

উৎপাদিত বোরো ধানের মূল্য নিয়ে যখন কৃষকদের মাঝে চরম হাহাকার চলছে, ঠিক এমন সময়ে কৃষকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে সরকারি মূল্য প্রতি মণ এক হাজার ৪০ টাকা দরে ধান ক্রয় করছেন নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আল-ইমরান রুহুল ইসলাম।

বুধবার (২২ মে) বিকালে ইউএনও আল-ইমরান রুহুল ইসলাম উপজেলা ভারপ্রাপ্ত কৃষি কর্মকর্তা দিলশাদ জাহান, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জয়নাল আবেদীন, খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) আতিকুর রহমানকে সঙ্গে নিয়ে উপজেলার দলপা ইউনিয়নের বেখৈরহাটি গ্রামে কৃষকদের বাড়িতে ছুটে যান।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/23/1558564296964.jpg

পরে তিনি ঐ গ্রামের সুরুজ আলীর ছেলে কৃষক সাহাজারুল ইসলাম ও আব্দুল গফুরের ছেলে কৃষক সুলতান মিয়ার বাড়ি থেকে এক মেট্রিক টন করে দুই মেট্রিক টন ধান ক্রয় করে অভ্যন্তরীণ বোরো সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

বেখৈরহাটি গ্রামের কৃষক সাহাজারুল ইসলাম বলেন, ‘ইউএনও স্যার বাড়িতে এসে প্রতি মণ ধান এক হাজার ৪০ টাকা দরে আমার এক মেট্রিকটন ধান ক্রয় করেছেন। তবে ধান আরও কিছু বেশি পরিমাণে ক্রয় করলে ভালো হতো।’

উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জয়নাল আবেদীন জানান, উপজেলায় মোট ৫৮৪ মেট্রিক টন বোরো ধান সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ক্রয় করা হবে। তবে অবশ্যই ধানের মান ভালো হতে হবে এবং আদ্রতা হতে হবে সর্বনিম্ন ১৪ শতাংশ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/23/1558564319605.jpg

খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসিএলএসডি) আতিকুর রহমান বলেন, ‘খাদ্য গুদামের ধারণ ক্ষমতা মাত্র এক হাজার মেট্রিক টন। প্রয়োজনীয় গুদাম না থাকায় লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ধান সংগ্রহ করাটা বাধাগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’

এ বিষয়ে ইউএনও আল-ইমরান রুহুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, ‘কৃষকদের এই দুঃসময়ে তাদের উৎপাদিত ধান সরাসরি তাদের কাছ থেকে ন্যায্য মূল্যে ক্রয় করতে পেরে আমাদেরও ভালো লাগছে। এতে কোনো প্রকার অনিয়ম-দুর্নীতি হলে সাথে সাথে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :

জেলা এর আরও খবর