Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

১৩০ বছর বয়সী বৃদ্ধা‌কে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

১৩০ বছর বয়সী বৃদ্ধা‌কে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার
ধর্ষক সোহেল। ছবি: বার্তা২৪.কম
ডি‌স্ট্রিক্ট ক‌রেসপ‌ন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
টাঙ্গাইল


  • Font increase
  • Font Decrease

টাঙ্গাইলের মধুপুরে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১৩০ বছরের এক বৃদ্ধা। এ ঘটনায় ধর্ষক সোহেলকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

বুধবার (২২ মে) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। এর আগে মঙ্গলবার (২১ মে) সন্ধ্যায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার ছেলে দুদু মিয়া (৭৫) থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

ধর্ষণের শিকার ওই বৃদ্ধা মধুপুর উপজেলার ফুলবাগচালা ইউনিয়নের আংগারিয়া গ্রামের বাসিন্দা। ধর্ষক সোহেল একই গ্রামের তোতা খা’র ছেলে।

জানা গেছে, বয়সের ভারে ন্যুব্জ অন্ধ ওই বৃদ্ধা চলাফেরা করতে পারেন না। সুযোগ বুঝে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাকে ধর্ষণ করে সোহেল।

এদিকে সম্মানের ভয়ে ভুক্তভোগীর পরিবার তাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নেয়নি। এখনো মুমূর্ষু অবস্থায় রয়েছেন ওই বৃদ্ধা।

মধুপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারিক কামাল জানান, ধর্ষিতা ওই বৃদ্ধার ছেলে বাদী হয়ে মধুপুর থানায় মামলা করেছেন। ধর্ষক সোহেলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলায় বৃদ্ধার বয়স উল্লেখ করা হয়েছে ১৩০ বছর।

আপনার মতামত লিখুন :

না.গঞ্জে আ.লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

না.গঞ্জে আ.লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে হত্যা
বিউটি আক্তার কুট্টি। ছবি: সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পশ্চিমগাঁও এলাকায় আওয়ামী লীগ নেত্রী ও কায়েতপাড়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত ইউপি সদস্য বিউটি আক্তার কুট্টিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

বুধবার (২৬ জুন) সকালে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বিউটি উপজেলার পশ্চিমগাঁও এলাকার মৃত হাসান মুহুরীর স্ত্রী। এছাড়া কায়েতপাড়া ইউনিয়নের ৭, ৮, ৯নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য ছিলেন তিনি।

জানা গেছে, সকালে বিউটি পশ্চিমগাঁও এলাকা দিয়ে হাঁটছিলেন। হঠাৎ তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বৃষ্টি নেই আষাঢ়েও, বিপাকে পাট চাষিরা

বৃষ্টি নেই আষাঢ়েও, বিপাকে পাট চাষিরা
পানির অভাবে শুকিয়ে যাচ্ছে পাটগাছের মূল/ছবি: বার্তা২৪.কম

ধার-দেনা করে অন্যের জমি বর্গা নিয়ে পাট বুনেছিলাম (চাষ)। পাটের আবাদ ভালো হলে দাম ভালো পাব, অন্যের দেনা মিটিয়ে লাভ হবে এই আশায়। এখন বৃষ্টি না হওয়ায় পাটের আগা (মূল) শুকিয়ে যাচ্ছে, পাট গাছ বড় হচ্ছে না। আষাঢ় মাসের  ১০ দিন পার হলেও দেখা মিলছে না বৃষ্টির। এখন পাট নিয়ে মহাচিন্তায় আছি। কথাগুলো বলছিলেন সদর উপজেলার সিমানন্দপুর গ্রামের পাটচাষি ইশারত শেখ।

জানা গেছে, নড়াইলে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে পাটের আবাদ হলেও হাসি নেই কৃষকদের মুখে। পাট চাষ এখন কৃষকের গলার ফাঁস হয়ে দেখা দিয়েছে। জমিতে পানি না থাকায় মাটি ফেটে চৌচির হয়ে যাচ্ছে। হতাশ হয়ে পড়ছেন পাট চাষিরা। বেশি জমিতে পাটের আবাদ হলেও উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হওয়া নিয়ে সংশয়ে রয়েছে খোদ কৃষি বিভাগ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561525094563.jpg

সদর উপজেলার ফেদি গ্রামের তরিকুল ইসলাম বলেন, গত বছর পাটের দাম ভালো পাওয়ায় এ বছর আরও বেশি জমিতে পাটের আবাদ করা হয়েছে। কিন্তু এখন জমিতে পানির খুব প্রয়োজন হলেও বৃষ্টি হচ্ছে না। বৃষ্টি না হওয়ার কারণে পাটের আগা শুকিয়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

লোহাগড়া উপজেলার পদ্মবিলা গ্রামের রতন বিশ্বাস বলেন, আষাঢ়-শ্রাবণ মাস বৃষ্টির সময় হলেও এ বছর বৃষ্টি হচ্ছে না। বৃষ্টির পানি না পাওয়ার কারণে পাট বড় হচ্ছে না। পাট যতটুকু বড় হয়েছে কেটে যে জাগ (পানিতে পচানো) দেব সে পানিও খাল-বিলে নেই।

কালিয়া উপজেলার পুরুলিয়া এলাকার আবির হোসেন বলেন, আষাঢ় মাষেও বৃষ্টি হচ্ছে না এমন অবস্থা আর কয়েকদিন চলতে থাকলে জমিতেই পাটগাছ শুকিয়ে নষ্ট হয়ে যাবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561525112220.jpg

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক চিন্ময় রায় বলেন, বিগত সময়ে পাটের নায্য মূল্য পাওয়ায় কৃষকরা পাট চাষে আগ্রহী হয়েছে। চলতি মৌসুমে জেলায় পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২০ হাজার ৬১০ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে ২০ হাজার ৯৫০ হেক্টর জমিতে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩৪০ হেক্টর বেশি জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পাটের জমিতে পানি না পাওয়ায় পাটগাছ ঠিকমত বৃদ্ধি পাচ্ছে না। এই মুহূর্তে পাটের জমিতে পানির খুবই প্রয়োজন। পানি না পেলে পাটের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করছেন এই কৃষিবিদ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র