Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

চাঁদা না পেয়ে ঠিকাদারকে মারধরের অভিযোগ

চাঁদা না পেয়ে ঠিকাদারকে মারধরের অভিযোগ
লক্ষ্মীপুর মডেল থানা, ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
লক্ষ্মীপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্মীপুরে ঈদ খরচের জন্য ১০ লাখ টাকা চাঁদা না পেয়ে মামুনুর রশিদ মামুন নামে এক ঠিকাদারকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে আলোচিত আফতাব উদ্দিন বিপ্লবের বিরুদ্ধে। বিপ্লব লক্ষ্মীপুর পৌরসভার মেয়র আবু তাহেরের বড় ছেলে।

এ ঘটনায় শুক্রবার (২৪ মে) দুপুরে মামুন বাদী হয়ে বিপ্লবকে প্রধান করে ২০ জনের বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি এজাহার (এসডিআর নম্বর-৭৯, ২৪.০৫.২০১৯) দাখিল করেছেন। মামুন মেসার্স রিয়া এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী ও জেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক।

অভিযুক্ত অন্যান্যরা হলেন, পৌরসভার বাঞ্চানগর এলাকার বাদশাহ মিয়ার ছেলে জুয়েল, আহসান উল্যার ছেলে আবদুল মান্নান, শামছুল হকের ছেলে কিরন, জামাল হোসেনের ছেলে তানিম, আবদুর রহিমের ছেলে হারুনুর রশিদ, পশ্চিম লক্ষ্মীপুরের কিসমত চৌধুরীর ছেলে পরান, স্টেডিয়াম রোডের শাহাদাত হোসেন খোকন ও অজ্ঞাত আরও ১২জন।

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, তাহেরপুত্র বিপ্লব অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম হত্যা মামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ছিলেন। পরে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি প্রয়াত জিল্লুর রহমান তার ফাঁসির দণ্ড মওকুফ করেন। ২০১৮ সালের ১০ অক্টোবর বিপ্লব কারামুক্ত হয়। এরপর থেকেই বাহিনী গঠন করে তিনি বিভিন্ন ঠিকাদার-ব্যবসায়ীর কাছ থেকে চাঁদা আদায়সহ নানা অপকর্ম করে আসছেন।

বুধবার (২২ মে) রাতে ঈদের খরচের জন্য ১৪-১৫ টি মোটরসাইকেল নিয়ে বিপ্লবের লোকজন ঠিকাদার মামুনের পৌরসভার সাহাপুর এলাকার বাড়িতে গিয়ে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন। এসময় দাবি করা টাকা দিতে তারা ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে আসে।
বৃহস্পতিবার (২৩ মে) বিকেলে লক্ষ্মীপুর শহরে যাওয়ার পথে মামুনের শার্টের কলার ধরে বিপ্লব ও আসামিরা তমিজ মার্কেট এলাকার পিংকি প্লাজার নিচে নিয়ে যায়। এ সময় মাথায় পিস্তল ধরে বিপ্লব ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে বলে মামুনের অভিযোগ। টাকা দিতে অপারগতা জানালে তাকে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মেরে জখম করে।

এসময় আসামি জুয়েল তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করেন। পরে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়। মামুন সদর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।

ঠিকাদার মামুনুর রশিদ বলেন, ‘আমার কাছে কারও কোনো টাকা পাওনা নেই। ঈদ খরচের জন্য বিপ্লব ১০ লাখ টাকা চাঁদা চেয়েছে। এটি না দেওয়ায় আমাকে মারধর করেছে। বিষয়টি আমি এমপি, আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতা ও প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের জানিয়েছি।

জানতে চাইলে আফতাব উদ্দিন বিপ্লব জানান, চাঁদা দাবি ও মারধরের অভিযোগ সঠিক নয়। মামুনের সঙ্গে হাতাহাতি হয়েছে। নেতাকর্মীদের টেন্ডার সমন্বয়ের টাকা তার কাছে পাওনা। ওই টাকার জন্যই তার বাড়িতে গিয়েছিল।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম ফারুক পিংকু বলেন, ‘বিষয়টি দুঃখজনক। জেলা শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক যদি চাঁদা না দেওয়ায় মারধরের শিকার হয়, তাহলে সাধারণ মানুষ কি দশায় আছে? বিষয়টি আমি কেন্দ্রীয় নেতাদেরও জানাবো।

লক্ষ্মীপুর সদর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোসলেহ উদ্দিন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

নুসরাত হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু
নুসরাত জাহান রাফি / ছবি: সংগৃহীত

ফেনীর সোনাগাজীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মামুনুর রশিদের আদালতে এ সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। অভিযোগ গঠনের ছয়দিনের মাথায় ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে আজ ৩ জন সাক্ষী আদালতে তাদের সাক্ষ্য উপস্থাপন করবেন।

বাদীপক্ষের আইনজীবী শাহজাহান সাজু বলেন, নির্ধারিত তারিখ অনুযায়ী আজ মামলার বাদী নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান, নুসরাতের বান্ধবী নিশাত ও সহপাঠী নাসরিন সুলতানা ফুর্তি সাক্ষ্য দিচ্ছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২০ জুন) আদালত সাক্ষ্যগ্রহণের আদেশ দেন। ওইদিন মামলার ১৬ আসামির পক্ষে জামিন আবেদন করেন তাদের আইনজীবীরা। শুনানি শেষে আদালত তাদের আবেদন নামঞ্জুর করে ২৭ জুন সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর দিন ঠিক করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত।

২৪ ঘণ্টা পরও গ্রেফতার হয়নি ঘাতক নয়ন

২৪ ঘণ্টা পরও গ্রেফতার হয়নি ঘাতক নয়ন
রিফাতকে কোপানোর চেষ্টা করছে দুর্বৃত্তরা, ঠেকানোর চেষ্টা করছেন স্ত্রী, ছবি: সিসিটিভি

বরগুনায় স্ত্রীর সামনে স্বামী শাহ নেওয়াজ রিফাত শরীফকে (২৫) কুপিয়ে হত্যার ঘটনার ভিডিও ফুটেজের মাধ্যমে ইতোমধ্যেই খুনিরা চিহ্নিত। জেলা পুলিশের কাছে ঘটনার মূলহোতা নয়নসহ তার সহযোগীদের নাম, ঠিকানা এবং ফোন নম্বর পর্যন্ত রয়েছে।

জেলা পুলিশ থেকে শুরু করে থানা পুলিশের কাছে এসব তথ্য থাকার পরও ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও গ্রেফতার হয়নি নয়ন। অবশ্য এ ঘটনায় চন্দন নামে একজনকে গ্রেফতার করা হলেও নয়ন ও তার বাকি সহযোগীদের কোনো হদিসই পাচ্ছে না পুলিশ।

এ বিষয়ে বরগুনা জেলা ও থানা পুলিশের দাবি, পুলিশ নয়নসহ বাকি ঘাতকদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে। দ্রুত তাদের গ্রেফতার করা হবে।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) বরগুনা জেলার পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন ও বরগুনা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন বার্তা২৪.কমকে এসব কথা বলেন।

পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন বলেন, ইতোমধ্যেই এ ঘটনার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট এক সন্ত্রাসী চন্দনকে গ্রেফতার করেছি। বাকিদের গ্রেফতারের জন্য বরগুনার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালানো হচ্ছে। আমরা আশা করি, দ্রুত তাদের গ্রেফতার করা হবে।

২৪ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও নয়নকে গ্রেফতার না করতে পারার বিষয়ে তিনি বলেন, নয়নসহ তার আরও কয়েকজ সহযোগী আত্মগোপনে আছে। তাদের গ্রেফতার করতে সম্ভাব্য সব প্রক্রিয়ায়কে সামনে রেখেই আমরা এগোচ্ছি। তবে যেন দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করা যায়, সে বিষয়ে কড়া নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে থানা পুলিশকে।

এদিকে এ বিষয়ে বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবির মোহাম্মদ হোসেন বার্তা২৪.কমকে জানান, আমরা এখনো বাইরে অভিযান চালাচ্ছি নয়ন ও তার সহযোগীদের গ্রেফতার করার জন্য। গ্রেফতার চন্দের কাছ থেকেও আমরা বিভিন্ন তথ্য পেয়েছি। সে হিসেবেই আমাদের অভিযান চলছে।

ইন্টারনেট হত্যাকাণ্ডের ভিডিও ভাইরাল হয়ে যাওয়ায় ঘাতকরা আরও বেশি আত্মগোপনে চলে গেছে। তবে প্রযুক্তির ব্যবহারসহ সব কিছুই ব্যবহার করা হচ্ছে নয়নকে গ্রেফতার করার জন্য।

উল্লেখ, বুধবার (২৬ জুন) সকালে রিফাত শরীফ তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে নিয়ে বরগুনা সরকারি কলেজে যান। কলেজ থেকে ফেরার পথে নয়ন, রিফাত ফরাজীসহ চার যুবক রিফাত শরীফের ওপর হামলা চালায়। এ সময় তারা ধারালো অস্ত্র দিয়ে রিফাত শরীফকে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। এতে বাধা দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেন রিফাত শরীফের স্ত্রী আয়েশা। কিন্তু হামলাকারীদের থামাতে পারেননি তিনি।

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় রিফাত শরীফকে প্রথমে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে ভর্তির এক ঘণ্টা পর বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন: বরগুনায় রিফাত হত্যা মামলায় গ্রেফতার ১

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র