Barta24

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ৭ ভাদ্র ১৪২৬

English

সাগরে ইলিশ শিকারের অনুমতি চান জেলেরা

সাগরে ইলিশ শিকারের অনুমতি চান জেলেরা
সাগরে ইলিশ শিকার বন্ধে সরকারি নিষেধাজ্ঞা জারি করায় বিপাকে পড়েছেন ভোলার জেলেরা, ছবি:বার্তা২৪
মোকাম্মেল মিশু
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা ২৪ কম
ভোলা


  • Font increase
  • Font Decrease

সাগরে মাছ ধরার সরকারি নিষেধাজ্ঞা বাতিল চান ভোলার জেলেরা। দুই মাস মেঘনা ও তেঁতুলিয়া নদীর ১৯০ কিলোমিটার অভয়াশ্রমে মাছ ধরা বন্ধ থাকার পর ২০ দিনের মাথায় আবারও সাগরে ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞা জারি করে সরকার। একে অযৌক্তিক ও অন্যায় দাবি করে বিষয়টি পুনর্বিবেচনার জন্য সরকারের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন জেলে ও জেলে সমিতির নেতারা।

তবে মৎস্য বিভাগ বলছে, নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি সরকারের সিদ্ধান্ত, সুতরাং জেলেদের এটি মেনে চলতে হবে। যারা নিষেধাজ্ঞা অমান্য করবে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সামুদ্রিক মাছের নির্বিঘ্ন প্রজনন এবং উৎপাদনের ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য সরকার ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই সাগরে সকল প্রকার মাছ শিকারে ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এতে ইলিশ শিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন ভোলার লক্ষাধিক জেলে। বর্তমানে অলস সময় পার করছেন এখানকার জেলেরা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/25/1558767180998.jpg

জেলেরা জানায়, ইলিশের প্রজনন মৌসুম কিংবা বেড়ে ওঠার সময় এখন নয়। আশ্বিন বা অক্টোবর মাস ইলিশের প্রজনন মৌসুম। তখন তারা সরকারের নির্দেশে ২২ দিন ইলিশ শিকার করেনি। পরবর্তীতে ইলিশের বেড়ে উঠার সময় মার্চ-এপ্রিল দুই মাসও তারা ইলিশ শিকারে নদীতে নামেনি।

নিয়মানুযায়ী মে-জুন ইলিশ শিকারের মৌসুম শুরু এবং নদীতে ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞার মাত্র ২০দিনের মাথায় আবার সাগরে ইলিশ শিকারে এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা তারা কোনোভাবেই মেনে নিতে পারছেন না। সামুদ্রিক মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞায় জেলেদের কোনো আপত্তি নেই জানিয়ে ভোলা জেলা মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাছির খন্দকার বলেন, যারা বড় ইলিশ শিকার করে তাদের জন্য সাগরে নামার অনুমতি চায় জেলেরা।

জেলেরা বলছেন, এ বছর তারা এমনিতেই তেমন ইলিশ পাননি। এখন নদীতে ইলিশ নেই, আছে সাগরে। যদি সাগরেও ইলিশ শিকার করতে না পারে তাহলে চরম লোকসানের মুখে পড়বেন তারা।

দৌলতখান লঞ্চঘাটের জেলে নৌকার মাঝি মোশারেফ বলেন, ‘এই যে অভিযান দিছে আর অন আমাগো সব বোট ঘাটে বান্ধা আছে। আমরা অন সাগরে জাল বাইতে যাইতে পারি না। কিভাবে ব্যবসা বাণিজ্য চলব।’

আরেক জেলে নসু মিয়া বলেন, আমাদেরকে আবারও ৬৫ দিনের অভিযান দিছে, এটা কিন্তু হয় না। এখন আমরা না খাইয়া বহুৎ কষ্টে দিন কাটাইতেছি।
একই কথা জানান, জেলে মনজুর রহমান। তিনি বলেন, আমরা তো কুচা-কাঁচা মাছ ধরি না, আমরা বড় ইলিশ মাছ ধরি। বড় ইলিশ না ধরলে কি কইরা খামু? তাইলে আমাগরে সরকার একটা কাজ করার ব্যবস্থা কইরা দেউক।’

এদিকে ইলিশ ব্যবসায়ী ইসরাফিল বলেন, এ বছর নদীতে মাছ খুব কম পাওয়া গেছে, আমরা মনে করি অভিযানটা না অওনই ভালো। আমরা অভিযান চাই না,বন্ধ করতে চাই।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/25/1558767313490.jpg

জানতে চাইলে ভোলার ক্ষুদ্র মৎস্যজীবী সমিতির সভাপতি মো. এরশাদ বলেন, ‘সমুদ্রে ট্রলিং জাহাজওয়ালারা যারা অবৈধ ছোট-খাটো ইলিশের বাচ্চা মারে তাদেরকে নিষেধাজ্ঞার মধ্যে নিয়া আমাগরে ইলিশ ধরার সুযোগ দেউক সরকার। আর নাইলে আমাগো জন্য বিকল্প ব্যবস্থা করুক।’

এ বিষয়ে ভোলা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা এস এম আজহারুল ইসলাম বলেছেন, সরকারের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। জেলেরা যাতে বিষয়টি মেনে নিয়ে কাজ করে সেজন্য ব্যাপক প্রচারণা এবং প্রস্তুতি গ্রহণ করেছি। আমরা আশা করি জেলেরা সরকারের এ সিদ্ধান্তটি আন্তরিকভাবে মেনে নেবেন। সমুদ্রে মাছ ধরা থেকে বিরত থাকবেন। আমরা মনিটরিং করব যেন জেলেরা সাগরে না যায়। যারা সাগরে যাবে তারা সাগর থেকে মাছ এনে কোনো না কোনো ঘাটে বা আড়তে আসবেন। আমরা সেখানে গিয়ে তাদের আটক করব এবং আইনের আওতায় নিয়ে আসব।

উল্লেখ্য, এ বছর ভোলা থেকে ১ লাখ ৬৫ হাজার মেট্রিক টন ইলিশ সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা থাকলেও সাগরে ৬৫ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ থাকায় অন্তত ৪০ লাখ ইলিশ এবার কম পাওয়া যাবে।

আপনার মতামত লিখুন :

খাবারসহ বৃদ্ধাকে কবরস্থানে রেখে গেলেন স্বজনরা

খাবারসহ বৃদ্ধাকে কবরস্থানে রেখে গেলেন স্বজনরা
রেখে যাওয়া কবরস্থানে বসে আছেন ওই বৃদ্ধা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

কুমিল্লায় একটি কবরস্থানে অজ্ঞাতনামা এক বৃদ্ধা মহিলাকে (৬৮) রেখে যান তার স্বজনরা। জানা যায়, চারদিন আগে তাকে এখানে রেখে গিয়েছে। সড়ক থেকে স্পষ্টভাবে দেখা না যাওয়ায় প্রথমদিকে বিষয়টি জানাজানি হয়নি।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) বিকালে বিষয়টি জানাজানি হলে চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মাহফুজের নির্দেশে মহিলাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে পুলিশের একটি টিম।

চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কনকাতৈপ ইউনিয়নের ধোড়করা-চাঁনকার দীঘি সড়কের পাশে পাঠানপাড়ার এলাকায় স্থানীয় একটি কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, কে বা কারা গত চারদিন আগে খুরশিদা বেগম নামের বৃদ্ধাকে কবরস্থানে রেখে যান। এ সময় তার পাশে চার প্যাকেট খাবার, চারটি পানির বোতল, একটি মশার কয়েল ছিল। ওই নারী কথা বলতে পারে।

কিন্তু নিজের নাম, গ্রাম বা অন্য পরিচয় কারও কাছে বলছেন না। বিশেষ করে ছেলেদের নাম জিজ্ঞেস করলে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে এবং বলেন- 'ক্যান্টনমেন্ট এলাকার মেহেরাজের জামাই রায়হান ও বিজয়পুরের সবুজের বাপে জানে'। আর কিছুই বলতে চান না এ বৃদ্ধা।

এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মাহফুজ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম-কে বলেন, 'গণমাধ্যম কর্মীদের কাছ থেকে বিষয়টি জেনে ওই বৃদ্ধাকে কবরস্থান থেকে উদ্ধারের নির্দেশ দিয়েছি। তিনি নিজের পরিচয় গোপন রেখেছেন।' পুলিশের পক্ষ থেকে জানার চেষ্টা চলছে বলে ওসি আবদুল্লাহ আল মাহফুজ জানান।

ভুল ব্যানারে জাতীয় শোক দিবস পালন, ক্ষমা চেয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ

ভুল ব্যানারে জাতীয় শোক দিবস পালন, ক্ষমা চেয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ
ছবি: সংগৃহীত

বরগুনার তালতলী সরকারি কলেজে ভুল ব্যানারে জাতীয় শোক দিবস ও শাহাদাত বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এ কারণে ক্ষমা চেয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিতভাবে ক্ষমা চাওয়া হয়।

জানা গেছে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী ও ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস পালনে তালতলী সরকারি কলেজ কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের নিয়ে র‌্যালি বের করে। কলেজের ওই ব্যানারে ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকীর পরিবর্তে ৪২তম শাহাদাত বার্ষিকী লেখা ছিল।

বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশ হয়। পরে তাৎক্ষণিক উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপায়ন দাশ শুভ এই ভুলের জন্য কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ রবীন্দ্রনাথ হাওলাদারকে ৩ কার্য দিবসের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন। আজ ৪র্থ কার্যদিবসে কলেজ কর্তৃপক্ষ লিখিতভাবে ক্ষমা চেয়েছে।

উপজেলা নিবার্হী অফিসার দীপায়ন দাশ শুভ জানান, নোটিশ প্রদানের পরে অনাকাঙ্ক্ষিত এবং অনভিপ্রেত এই ভুলের জন্য লিখিতভাবে ক্ষমা চেয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন: ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকীতে ৪২তম বার্ষিকীর ব্যানার!

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র