Barta24

শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬

English

গাইবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই জনের মৃত্যু

গাইবান্ধায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে দুই জনের মৃত্যু
ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
গাইবান্ধা


  • Font increase
  • Font Decrease

গাইবান্ধার পলাশবাড়ী ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় বিদ্যুৎপৃষ্টে দুই জন নিহত হয়েছেন। শনিবার বিকেলে (২৫ মে) পৃথক এ ঘটনায় তারা মারা যান।

স্থানীয়রা জানান, পলাশবাড়ী উপজেলার খামার জামিরা এলাকায় বিদ্যুৎ লাইন মেরামত করতে আসেন আসাদুল ইসলাম (৩০)। এ সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। নিহত আসাদুল ইসলাম সাঘাটা উপজেলার জুমারবাড়ী গ্রামের বাসিন্দা।

এদিকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার নিজামখাঁ এলাকায় বিদ্যুৎস্পৃষ্টে আ. জলিল মিয়া (৪০) নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। জলিল মিয়া উপজেলার খোর্দ্দা গ্রামের কলিম মিয়ার ছেলে।

পলাশবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদার রহমান বলেন, বিদ্যুৎস্পৃষ্টের দুর্ঘটনার কথা শুনেছি। তবে কেউ কোনো অভিযোগ করেনি। সুন্দরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এসএম আবদুস সোবানও বিদ্যুৎস্পৃষ্টে একজন নিহত হওয়ার খবর নিশ্চিত করেছেন। 

আপনার মতামত লিখুন :

বনভোজনের অন্তরালে সেই বাল্যবিয়ে বন্ধ

বনভোজনের অন্তরালে সেই বাল্যবিয়ে বন্ধ
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

বনভোজনের অন্তরালে স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে দিতে গিয়ে ফেঁসে গেছেন বর-কনের পরিবার।

শনিবার (১৭ আগস্ট) বিকেলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়।

জানা গেছে, গাংনী উপজেলার সীমান্তবর্তী গ্রাম হলো রংমহল। এ গ্রামের সৌদি প্রবাসী মিনারুল ইসলাম মিনুর মেয়ে হলো মিনতী খাতুন। সে তেঁতুলবাড়ীয়া ইসলামিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। পার্শ্ববর্তী রামদেবপুর গ্রামের মালিপাড়ার শওকত আলীর ছেলে আলামিন হোসেনের সঙ্গে তার বিয়ে ঠিক হয়। মিনতীর বাবার বাড়িতে আজ এ বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু প্রশাসনের বাধার মুখে পড়ে বিয়ে পণ্ড হয়ে যেতে পারে এমন আশঙ্কায় ওই বনভোজনের নাটক সাজিয়েছে কনে পক্ষের লোকজন।

এদিকে খবর পেয়ে ডিসি ইকো পার্কে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুকুমার সরকার। এ সময় অনেকে পালিয়ে গেলেও বরসহ উভয় পক্ষের অভিভাবকদের আটক করা হয়। পরে বিকেলে ভ্রাম্যমাণ আদালত এই বিষয়ে রায় দেন।

এ বিষয়ে গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুকুমার সরকার জানান, বিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। কনের বয়স ১৮ বছর না হওয়া পর্যন্ত বিয়ে দিতে পারবে না। এ বিষয়ে তাদের কাছ থেকে মুচলেকা নেয়া হয়েছে। আইন অমান্য করে তারা যদি বিয়ে দেয় তাহলে তাদের আটক করে কঠোর শাস্তি দেয়া হবে।

আরও পড়ুন:বনভোজনের অন্তরালে স্কুলছাত্রীর বাল্যবিয়ে!

কমছে না কর্মস্থলে ফেরা মানুষের ভোগা‌ন্তি

কমছে না কর্মস্থলে ফেরা মানুষের ভোগা‌ন্তি
টাঙ্গাইলের ভুঞাপুর বাসস্ট্যান্ড, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

ঈদের ছুটি শেষে কর্মস্থল ঢাকা ফির‌তে শুরু ক‌রে‌ছে মানুষ। বা‌সের ভাড়া বেড়ে গেছে তিনগুণ। বাধ্য হ‌য়ে পরিবার নি‌য়ে ট্রাকের ছা‌দে ফিরছেন অনেকে। কখনও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি আবার কখনও ভারি বর্ষণ মানুষের ভোগান্তি বাড়িয়ে দিচ্ছে কয়েকগুণ। অনেকটা নিরুপায় হয়ে বাস-ট্রাকসহ বি‌ভিন্ন ধর‌নের প‌রিবহন‌যো‌গে ঢাকায় ফিরছেন মানুষ।

শ‌নিবার (১৭ আগস্ট) বিকেলে টাঙ্গাইলের ভুঞাপুর বাসস্ট্যান্ড গি‌য়ে এমন চিত্র দেখা গে‌ছে।

‌সৈকত হো‌সেন ঈদে পরিবার নি‌য়ে গ্রামের বা‌ড়ি‌তে বেড়া‌তে গিয়েছিলেন। ঈদের ছুটি শেষে এখন কর্মস্থলে ফিরতে হ‌বে। তাই স্ত্রী সন্তান নি‌য়ে বের হ‌য়ে‌ছেন। ভুঞাপুর বাসস্ট্যান্ডে ৩ঘণ্টা অপেক্ষা ক‌রেও বা‌সে উঠ‌তে পা‌রে‌নি তিনি। তাই বাধ্য হ‌য়ে বৃষ্টিতে ভি‌জে ট্রাকের ছা‌দে উঠেছেন পরিবার নি‌য়ে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/17/1566047252737.jpg

 

সৈকত ব‌লেন, ঢাকার এক‌টি বেসরকা‌রি কোম্পানীতে কাজ ক‌রি। ছুটি শেষ তাই কর্মস্থলে যাচ্ছি। কিন্তু বাসস্ট্যান্ডে দে‌খি বাস কম। ভাড়া তিনগুণ বে‌শি। তাই বাধ্য হ‌য়ে ট্রাকের ছা‌দে উঠেছি।

‌সৈক‌তের ম‌তো আরো অনেকই অভিযোগ করে ব‌লেন, ভুঞাপুর হ‌তে ঢাকার ভাড়া যেখানে দেড়শ টাকা রাখা হত সেখানে গাজীপুরের চন্দ্রা পর্যন্ত ৪০০ থে‌কে ৫০০ টাকা ক‌রে নিচ্ছে। আবার ভুঞাপুর হ‌তে টাঙ্গাই‌ল পর্যন্ত সিএন‌জি‌তে ২০০টাকা ক‌রে নিচ্ছে চালকরা। যেখানে ভাড়া ছিল ৫০টাকা।

ত‌বে অতিরিক্ত ভাড়ার বিষ‌য়ে চালকরা জানান, ঢাকায় যাওয়ার পর ফির‌তি প‌থে যাত্রী পাওয়া যায় না। তাই একটু ভাড়া বে‌শি নেওয়া হ‌চ্ছে।

আরও পড়ুন,

নির্ধারিত সময়ের আগেই ছাড়ছে লঞ্চ

ঢাকায় পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেনগুলো ফিরছে বিলম্বে

লঞ্চে সিট বাণিজ্য, গুনতে হচ্ছে দ্বিগুণ টাকা

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র