Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

বাজেট ঘোষণার কারণে হিলি স্থলবন্দরে বিল অবএন্ট্রি সাবমিট বন্ধ থাকবে

বাজেট ঘোষণার কারণে হিলি স্থলবন্দরে বিল অবএন্ট্রি সাবমিট বন্ধ থাকবে
হিলি স্থলবন্দর, ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
হিলি (দিনাজপুর)


  • Font increase
  • Font Decrease

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) জাতীয় সংসদে আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণার কারণে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের কাস্টমসে আমদানি ও রফতানিকৃত সকল প্রকার পণ্যের বিল অবএন্ট্রি সাবমিট বন্ধ থাকবে বলে হিলি কাস্টমস কর্তৃপক্ষ বার্তা২৪.কমকে জানিয়েছে।

বুধবার (১২ জুন) বিকেল সাড়ে ৩টা থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত সার্ভার বন্ধ থাকবে। এ সংক্রান্ত একটি নোটিশ কাস্টমসের নোটিশ বোর্ডে টাঙানো রয়েছে।

হিলি স্থল শুল্ক স্টেশনের রাজস্ব কর্মকর্তা আবু বক্কর ছিদ্দিক বার্তা২৪.কমকে জানান, আগামী বৃহস্পতিবার মহান জাতীয় সংসদে আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট পেশ করা হবে। বাজেটে অনেক পণ্যের ওপর আমদানি শুল্ক বৃদ্ধি বা কমানো হতে পারে। আর বাজেট ঘোষণাকালীন সময়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এনবিআর থেকে কাস্টমসের সার্ভার বন্ধ থাকবে।

হিলি কাস্টমসের সকল কার্যক্রম স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে হওয়ার কারণে সার্ভার বন্ধ থাকার কারণে আমদানিকৃত পন্যের ইমপোর্ট ম্যানিফিষ্ট ও বিল অবএন্ট্রি সাবমিটসহ পণ্যের পরীক্ষণ ও শুল্কায়নসহ কাস্টমসের সকলপ্রকার কার্যক্রম বন্ধ থাকবে।

ব্যবসায়ীরা যাতে পণ্য আমদানি করে ক্ষতির মুখে না পড়ে সে কারণে তাদেরকে অগ্রিম জানানোর জন্য মঙ্গলবারে এক নোটিশের মাধ্যমে বিষয়টি বন্দরের সকল আমদানি,রফতানিকারক ও সিএন্ডএফ এজেন্টগনকে জানানো হয়েছে।

তবে কাস্টমসে ইমপোর্ট ম্যানিফিষ্ট ও বিল অবএন্ট্রি সাবমিট কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও বন্দর দিয়ে দুদেশের মাঝে পণ্য আমদানি রফতানি কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকবে। সেই সঙ্গে পূর্বের আউটপাশকৃত মালামাল বন্দর থেকে ছাড়িয়ে নিতে পারবেন আমদানিকারকরা।

হিলি স্থলবন্দরের জনসংযোগ কর্মকর্তা সোহরাব হোসেন বার্তা২৪.কমকে জানান, বন্দরের ভেতরের সকল কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকবে। বন্দর দিয়ে পূর্বের আমদানিকৃত মালামাল যেসবের আউটপাশ হয়েছে সে সব মালামাল সরবরাহ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

না.গঞ্জে আ.লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

না.গঞ্জে আ.লীগ নেত্রীকে কুপিয়ে হত্যা
বিউটি আক্তার কুট্টি। ছবি: সংগৃহীত

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পশ্চিমগাঁও এলাকায় আওয়ামী লীগ নেত্রী ও কায়েতপাড়া ইউনিয়নের সংরক্ষিত ইউপি সদস্য বিউটি আক্তার কুট্টিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

বুধবার (২৬ জুন) সকালে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বিউটি উপজেলার পশ্চিমগাঁও এলাকার মৃত হাসান মুহুরীর স্ত্রী। এছাড়া কায়েতপাড়া ইউনিয়নের ৭, ৮, ৯নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য ছিলেন তিনি।

জানা গেছে, সকালে বিউটি পশ্চিমগাঁও এলাকা দিয়ে হাঁটছিলেন। হঠাৎ তাকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল হাসান এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

বৃষ্টি নেই আষাঢ়েও, বিপাকে পাট চাষিরা

বৃষ্টি নেই আষাঢ়েও, বিপাকে পাট চাষিরা
পানির অভাবে শুকিয়ে যাচ্ছে পাটগাছের মূল/ছবি: বার্তা২৪.কম

ধার-দেনা করে অন্যের জমি বর্গা নিয়ে পাট বুনেছিলাম (চাষ)। পাটের আবাদ ভালো হলে দাম ভালো পাব, অন্যের দেনা মিটিয়ে লাভ হবে এই আশায়। এখন বৃষ্টি না হওয়ায় পাটের আগা (মূল) শুকিয়ে যাচ্ছে, পাট গাছ বড় হচ্ছে না। আষাঢ় মাসের  ১০ দিন পার হলেও দেখা মিলছে না বৃষ্টির। এখন পাট নিয়ে মহাচিন্তায় আছি। কথাগুলো বলছিলেন সদর উপজেলার সিমানন্দপুর গ্রামের পাটচাষি ইশারত শেখ।

জানা গেছে, নড়াইলে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে পাটের আবাদ হলেও হাসি নেই কৃষকদের মুখে। পাট চাষ এখন কৃষকের গলার ফাঁস হয়ে দেখা দিয়েছে। জমিতে পানি না থাকায় মাটি ফেটে চৌচির হয়ে যাচ্ছে। হতাশ হয়ে পড়ছেন পাট চাষিরা। বেশি জমিতে পাটের আবাদ হলেও উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হওয়া নিয়ে সংশয় রয়েছে খোদ কৃষি বিভাগ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561525094563.jpg

সদর উপজেলার ফেদি গ্রামের তরিকুল ইসলাম বলেন, গত বছর পাটের দাম ভালো পাওয়ায় এ বছর আরও বেশি জমিতে পাটের আবাদ করা হয়েছে। কিন্তু এখন জমিতে পানির খুব প্রয়োজন হলেও বৃষ্টি হচ্ছে না। বৃষ্টি না হওয়ার কারণে পাটের আগা শুকিয়ে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

লোহাগড়া উপজেলার পদ্মবিলা গ্রামের রতন বিশ্বাস বলেন, আষাঢ়-শ্রাবণ মাস বৃষ্টির সময় হলেও এ বছর বৃষ্টি হচ্ছে না। বৃষ্টির পানি না পাওয়ার কারণে পাট বড় হচ্ছে না। পাট যতটুকু বড় হয়েছে কেটে যে জাগ (পানিতে পচানো) দেব সে পানিও খাল-বিলে নেই।

কালিয়া উপজেলার পুরুলিয়া এলাকার আবির হোসেন বলেন, আষাঢ় মাষেও বৃষ্টি হচ্ছে না এমন অবস্থা আর কয়েকদিন চলতে থাকলে জমিতেই পাটগাছ শুকিয়ে নষ্ট হয়ে যাবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561525112220.jpg

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক চিন্ময় রায় বলেন, বিগত সময়ে পাটের নায্য মূল্য পাওয়ায় কৃষকরা পাট চাষে আগ্রহী হয়েছে। চলতি মৌসুমে জেলায় পাট আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২০ হাজার ৬১০ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে ২০ হাজার ৯৫০ হেক্টর জমিতে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩৪০ হেক্টর বেশি জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, পাটের জমিতে পানি না পাওয়ায় পাটগাছ ঠিকমত বৃদ্ধি পাচ্ছে না। এই মুহূর্তে পাটের জমিতে পানির খুবই প্রয়োজন। পানি না পেলে পাটের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা করছেন এই কৃষিবিদ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র