Barta24

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

উপজেলা নির্বাচন

বরগুনায় নৌকার সমর্থকদের হামলায় আহত ২০

বরগুনায় নৌকার সমর্থকদের হামলায় আহত ২০
ছবি: বার্তা২৪.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
বরগুনা


  • Font increase
  • Font Decrease

বরগুনার তালতলী উপজেলা নির্বাচনে নৌকার সমর্থকদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর ২০ জন কর্মী আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মোবাইল কোটের ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে গেলে তার গাড়ি ভাঙচুর করেন নৌকার সমর্থকরা।

বুধবার (১২ জুন) রাত ৯টার দিকে উপজেলার নিদ্ররা স্লুইসে এ ঘটনা ঘটে। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী এ হামলা চলে।

স্থানীয় জানা যায়, তালতলী উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নিশানবাড়িয়া ও সোনাকাটা ইউনিয়নের নিদ্রারচর স্লুইস এলাকায় নৌকার সমর্থকরা স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকের অফিসে ভাঙচুর করে। এতে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা এলকার বিভিন্ন ঘরে আশ্রায় নিলে সেই বাড়িতে হামলা চালায় নৌকার সমর্থকরা। এই ঘটনায়  আনারস প্রতীকের ২০ কর্মী আহত হয় বলে জানা যায়।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই নিয়ে এলাকা জুড়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

বরগুনায় নৌকার সমর্থকদের হামলায় আহত ২০

পরে নির্বাচনী মোবাইল কোর্ট পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন আহতদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ঘটনাস্থল থেকে নিয়ে আসার পথে নৌকার সমর্থকরা তার গাড়ি গতিরোধ করেন। পরে ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়িসহ আহতদের বহন করা দুইটি গাড়ি ভাঙচুর করেন নৌকার সমর্থকরা।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. সহিদ আকন বলেন, 'কবীর আকনের নেতৃত্বে ৭০-৮০ সন্ত্রাসীরা আনারস প্রতীকের অফিসে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা ও ভাঙচুর করেন। হামলার ভয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীরা এলাকার বিভিন্ন ঘরে আশ্রয় নেয়। কিন্তু ঘরে ঢুকেও কমপক্ষে ২০ জনকে আহত করে তারা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. জাকির হোসেন বলেন, 'নৌকার সমর্থকদের হামলায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর আহত কর্মীদের ঘটনাস্থল থেকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে আসার সময়, আমার গাড়ি গতিরোধ করে তারা। পরে আমার বহরে থাকা স্বতন্ত্র প্রার্থী গাড়িসহ আমার গাড়ি ভাঙচুর করেন।'

তালতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপায়ন দাস শুভ জানান, মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় থাকা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের গাড়ির ভাঙচুর করা হয়েছে। এ বিষয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

উল্লেখ্য, ১৮ জুন তালতলী উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

কানে ট্যাগ লাগিয়ে বেওয়ারিশ গরু নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ

কানে ট্যাগ লাগিয়ে বেওয়ারিশ গরু নিয়ন্ত্রণের উদ্যোগ
হলুদ রঙের এ ট্যাগ লাগানো হবে গরুর কানে, ছবি: বার্তা২৪.কম

পটুয়াখালী শহরের বিভিন্ন অলিগলিতে বেওয়ারিশ ভাবে ঘুরে বেড়ানো গরুর মালিকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গরুর কানে বিশেষ ধরনের ট্যাগ লাগানোর উদ্যোগ নিয়েছে পটুয়াখালী পৌরসভা কর্তৃপক্ষ।

এর ফলে গরুর মালিকানা নির্ধারণ করে ঘুড়ে বেড়ানো গরুগুলোর মালিকদের কাছ থেকে প্রথমে আর্থিক জরিমানা আদায় করা হবে। একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হলে পরে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

পটুয়াখালী পৌরসভার মেয়র মহিউদ্দিন আহমেদ জানান, শহরে কয়েকশ’ গরু দিনে এবং রাতে বেওয়ারিশ ভাবে ঘোরাফেরা করে রাস্তায় মলমূত্র ত্যাগ করে পরিবেশ নষ্ট করছে। এছাড়া এসব গরু বিভিন্ন সড়ক এবং বাসা বাড়ির গাছ পালা খেয়ে সাধারণ মানুষের ক্ষতি করছে, বিঘ্ন ঘটাচ্ছে যান চলাচলে। বিভিন্ন সময় গবাদিপশু আটক করলেও মালিকরা তা আর নিতে আসেন না। এজন্য পশুর খাবার এবং পরিচর্যা নিয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

আর সে কারণেই এখন থেকে বেওয়ারিশ গরু আটক করে গরুর কানে নম্বর যুক্ত ট্যাগ লাগানো হবে। একাধিকবার জরিমানার পর মালিকদের বিরুদ্ধে পৌরসভার বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে, গত কয়েক বছর ধরে পটুয়াখালী শহরের কিছু মানুষ গবাদিপশু না বেঁধে খোলা ভাবে লালন পালন করছে। এর ফলে সাধারণ মানুষকে নানা ধরনের সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। বিভিন্ন সভা সেমিনার এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নিতে মেয়রের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

অগ্নিদগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন রানী মারা গেছেন

অগ্নিদগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন রানী মারা গেছেন
কলেজছাত্রী ফুলন রানীর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা/ ফাইল ছবি

অবশেষে ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর জীবনযুদ্ধে হেরে গেলেন নরসিংদীর অগ্নিদগ্ধ কলেজছাত্রী ফুলন রানী বর্মণ (২২)।

বুধবার (২৬ জুন) সকালে ঢাকা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে তার মৃত্যু হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নরসিংদী জেলা গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আব্দুল গাফফার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ১৩ জুন রাত সাড়ে ৮টায় শহরের বীরপুর মহল্লায় পার্শ্ববর্তী দোকান থেকে সদাই কিনে বাসায় ফেরার পথে ফুলনের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন দিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এতে তার শরীরের ১২ ভাগ পুড়ে যাওয়া অবস্থায় প্রথমে নরসিংদী সদর হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেলের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

ফুলন শহরের বীরপুর মহল্লার যোগেন্দ্র চন্দ্র বর্মণের মেয়ে। তিনি ২০১৮ সালে শহরের উদয়ন কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন।

এ ঘটনায় পরদিন (১৪ জুন) অগ্নিদগ্ধ ফুলন রানীর বাবা যোগেন্দ্র চন্দ্র বর্মণ বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে নরসিংদী সদর মডেল থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন। পরে ঘটনার তদন্তে নেমে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ একাধিক সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে রহস্য উদঘাটিত হয়।

পরে ২১ জুন (শুক্রবার) নরসিংদীর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শারমীন আক্তার পিংকির আদালতে দেওয়া জবানবন্দিতে জমি সংক্রান্ত বিরোধে ফুলনের পরিবারের প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতেই ফুলনের গায়ে পরিকল্পিতভাবে আগুন দেওয়ার কথা স্বীকার করেন রাজু সুত্রধর নামে এক আসামি।

পরদিন একই ধরনের স্বীকরোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন ফুলনের ফুফাতো ভাই ভবতোষ বর্মণ। সর্বশেষ মঙ্গলবার (২৫ জুন) জবানবন্দি প্রদান করেন অপর আসামি আনন্দ বর্মণ।

ফুলনের ফুফাতো ভাই ভবতোষ বর্মণের পরিকল্পনায় রাজু সূত্রধর ও আনন্দ বর্মণ নামে দুই সহযোগী আগুন দেওয়ার ঘটনায় অংশ নেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র