Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ৩১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

পঞ্চগড়ের বোদায় বজ্রপাতে কিশোরের মৃত্যু

পঞ্চগড়ের বোদায় বজ্রপাতে কিশোরের মৃত্যু
বজ্রপাত, ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম
পঞ্চগড়


  • Font increase
  • Font Decrease

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার ময়দানদিঘী এলাকায় বজ্রপাতে রায়হান ইসলাম (১৫) নামের এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (১৭ জুন) সকাল ৭টায় জেলার বোদা উপজেলাধীন ময়দানদিঘী এলাকার হলদিয়া পুকুর নামক এলাকায় তার নিজ বাড়িতে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

বজ্রপাতে নিহত কিশোর রায়হান ইসলাম বোদা উপজেলাধীন ময়দানদিঘী এলাকার হলদিয়া পুকুর এলাকার লুৎফর রহমানের ছেলে।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে রায়হান তার নিজ শয়ন ঘর থেকে বের হলে হঠাৎ তার ওপরে বজ্রপাত হয়। পরে তাকে পরিবারের লোকজন দ্রুত উদ্ধার করে পঞ্চগড় আধুনিক সদর  হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক রায়হানকে মৃত ঘোষণা করেন।

এবিষয়ে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ আকরামুল হক জানান, রায়হানকে হাসপাতালে নেয়ার পূর্বে তার মৃত্যু  হয়।

এদিকে, বোদা থানার তদন্ত (ওসি) আবু হায়দার মোঃ আশরাফুজ্জামান বার্তা২৪.কমকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

আপনার মতামত লিখুন :

বৃষ্টিতে দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা, কদর বেড়েছে ছাতার

বৃষ্টিতে দুর্ভোগে শিক্ষার্থীরা, কদর বেড়েছে ছাতার
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

চলছে বৃষ্টির দিন। দেশের বিভিন্ন এলাকার মতো মৌলভীবাজারেও গত কয়েকদিন ধরে দফায় দফায় বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছে শিক্ষার্থীরা।

সোমবার (১৫ জুলাই) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত মৌলভীবাজারে টানা বৃষ্টিপাত হয়েছে। এ কারণে স্কুল-কলেজে যেতে পারে নাই অনেক শিক্ষার্থী। ছেলে মেয়েরা যাতে বৃষ্টির দিনেও স্কুলে যেতে পারে তাই বাবা-মায়েরা কিনছেন ছাতা। বৃষ্টি থেকে বাঁচতে যেন হঠাৎ করেই কদর বেড়েছে এই ছাতার।

সোমবার দুপুরের পর থেকে ছাতার দোকানগুলোতে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের বেশি ছাতা কিনতে দেখা গেছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/16/1563221733480.jpg

জেলার শ্রীমঙ্গল শহরের লেদার হাউজে ছাতা কিনতে আসা ফয়েজ আহমেদ ছমরু বলেন, ‘ছেলে-মেয়ের জন্য ছাতা কিনতে এসেছি। বৃষ্টির জন্য তারা স্কুলে যেতে পারে না। আবার ছুটির সময় বৃষ্টি হলে বাসায় আসতে দেরি হয়। তাই তাদের জন্য ২টি ছাতা কিনলাম।’

অন্য আরেক দোকানে ছাতা কিনতে আসা রেহানা বেগম নামে এক মা বলেন, ‘বৃষ্টি আসলে ছেলে-মেয়েদের স্কুলে আসা যাওয়ায় সমস্যা দেখা দেয়। তাই ছাতা কিনতে এসেছি।’

শহরের বেশ কয়েকটি ছাতার দোকান ঘুরে জানা গেছে, এবারের বর্ষা মৌসুমে তাদের ছোট সাইজের ছাতা (টিপ ছাতা) বেশি বিক্রি হচ্ছে। তবে বিক্রি কমেছে বড় সাইজের ছাতার।

ছাতা ব্যবসায়ী মো. আলী হোসেন জানান, এখন সবাই ছোট সাইজের ছাতা ব্যবহার করে। এই ছাতা ১৩০ থেকে ৫০০ টাকা দামের মধ্যে বিক্রি হয়।

এনজিও কর্মী সেজে ধর্ষণ মামলার আসামিকে গ্রেফতার

এনজিও কর্মী সেজে ধর্ষণ মামলার আসামিকে গ্রেফতার
গ্রেফতারকৃত সাত্তার সরকার। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

এনজিও কর্মী সেজে ঋণ দেয়ার কথা বলে প্রতিবন্ধী শিশু ধর্ষণ মামলার আসামিকে গ্রেফতার করেছে বগুড়া সদর থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত সাত্তার সরকার (৬০) বগুড়া সদরের তেলীহারা উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত কাশেম আলীর ছেলে।

সোমবার (১৫ জুলাই) সন্ধ্যায় বগুড়া সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোহেল রানা তেলীহারা গ্রাম থেকে তাকে গ্রেফতার করেন।

জানা গেছে, গত ১২ জুলাই দুপুরে তেলীহারা গ্রামের এক বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী (১৫) বাজার থেকে ফেরার পথে বৃষ্টি শুরু হলে প্রতিবেশী দাদা সাত্তার সরকারের বাড়িতে আশ্রয় নেয়। এ সময় বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে সাত্তার ওই কিশোরীকে জোর করে ধর্ষণ করে। ওই কিশোরী বাড়ি ফিরে ধর্ষণের বিষয়টি জানায়। পরে পারিবারিকভাবে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়া হয়।

সোমবার (১৫ জুলাই) সকালে ধর্ষণের ঘটনাটি জানাজানি হলে সাত্তার সরকার আত্মগোপন করে। পুলিশ তাকে কৌশলে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বগুড়া সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোহেল রানা বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘সাত্তার সরকারকে গ্রেফতার করতে এনজিও কর্মী সেজে তার সঙ্গে যোগাযোগ করি। পরে ঋণ নেয়ার প্রস্তাব দেয়া হলে তিনি গ্রামের এক রাস্তায় দেখা করেন। এ সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র