Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

জেলেদের জালে ধরা পড়ছে না ইলিশ

জেলেদের জালে ধরা পড়ছে না ইলিশ
চাঁদপুর থেকে ধরা ইলিশ। ছবি: বার্তা২৪.কম
মনিরুজ্জামান বাবলু
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
চাঁদপুর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

চাঁদপুর পদ্মা-মেঘনা নদীর উপকূলীয় এলাকায় জাল ফেলে ইলিশ না পেয়ে খালি হাতে ফিরে আসছে জেলেরা। জেলায় ৫১ হাজার ১৯০টি নিবন্ধিত জেলে পরিবার রয়েছে। বছরের অধিকাংশ সময় নদী থেকে মাছ ধরে তারা জীবিকা নির্বাহ করে।

জানা গেছে, জাতীয় সম্পদ ইলিশ রক্ষায় মার্চ-এপ্রিল দু’মাস মাছ আহরণ নিষিদ্ধ করেন সরকার। ফের সেপ্টেম্বরের শেষ ও অক্টোবর মাসের শুরুতে ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ থাকবে। এছাড়া বাকি সময়ে নদীতে মাছ আহরণে কোনো বিধি নিষেধ নেই। কিন্তু এ বছর মার্চ-এপ্রিলের নিষেধাজ্ঞা শেষে জেলেরা ইলিশ না পেয়ে হতাশ। কাঙ্ক্ষিত ইলিশ পাওয়ার অপেক্ষায় থাকতে হবে আগামী সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত। তবে অনেকের আশা জুলাই মাসে নদীতে পানি বৃদ্ধি পেলে পাওয়া যেতে পারে ইলিশ।

চাঁদপুরের হাইমচর ও সদর উপজেলায় জেলেপাড়াগুলোতে গিয়ে দেখা গেছে, নদীতে পর্যাপ্ত ইলিশ না পাওয়ায় অধিকাংশ জেলে বেকার সময় পার করছে। কেউ নৌকা মেরামত করছে, আবার কেউ জাল মেরামত করছে। অনেকে আবার চায়ের দোকান অথবা আড্ডা দিয়ে বেকার সময় কাটাচ্ছে।

হাইমচরে মাছ ধরতে আসা শরীয়তপুরের জেলে কাশেম বলেন, ‘শরীয়তপুরে পদ্মায় চর পড়ে যাওয়ায় আমরা ১৪ জন জেলে বর্ষার শুরুতে হাইমচরে মাছ ধরতে এসেছি। এখান থেকেই দাদন নিয়েছি। মাছের যে অবস্থা, এখন দাদন কীভাবে শোধ করব তা নিয়েই চিন্তায় আছি।’

হাইমচর উপজেলার মোহনপুর এলাকার জেলে মিজানুর রহমান বলেন, ‘সাগর থেকে মেঘনা নদীতে ইলিশ আসার পথে বিভিন্ন বাধার সৃষ্টি হয়। চর জেগে ওঠা, পানি দূষণের কারণে আমরা আগের মতো ইলিশ পাচ্ছি না। এ কারণে আমাদের উপজেলার অনেক জেলে এখন বেকার সময় পার করছে।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/18/1560857293310.jpg

সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের জেলে শাহজাহান বলেন, ‘ইলিশ পাওয়ার আশায় প্রায় ৫০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে নতুন জাল তৈরি করেছি। কিন্তু ইলিশের দেখা মিলছে না।’

সদরের হানারচর ইউনিয়নের মৎস্য ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান সৈয়াল বলেন, ‘আমাদের এলাকার প্রায় ১শ জেলে প্রতিদিন ইলিশ পাওয়ার আশায় নদীতে নামেন। এক নৌকায় কমপক্ষে ৭ থেকে ৯ জন জেলে থাকেন। জ্বালানিসহ যে পরিমাণ খরচ হয়, তাতে ইলিশ বিক্রি করে জনপ্রতি ২শ টাকা করেও পায় না। বৃষ্টি ও পাহাড়ি পানি নামলে ইলিশের দেখা মিলবে বলে আশা করছি।’

চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আসাদুল বাকী জানান, মে ও জুন মাসে নদীতে ইলিশ কম থাকে। কারণ মিঠা পানিতে আসা ছোট ইলিশগুলো এ সময় সাগরের দিকে চলে যায়। আবার জুলাই-আগস্ট মাসের দিকে ডিম ছাড়ার জন্য মিঠা পানিতে আসে। ওই সময়ে জেলেরা ইলিশ পাবে।

আপনার মতামত লিখুন :

সিরাজগঞ্জে অটোরিকশাচাপায় মুক্তিযোদ্ধা নিহত

সিরাজগঞ্জে অটোরিকশাচাপায় মুক্তিযোদ্ধা নিহত
প্রতীকী ছবি

সিরাজগঞ্জে সিএনজিচালিত অটোরিকশার চাপায় মো. আবু সাঈদ সেখ (৬৫) নামে এক মুক্তিযোদ্ধা মারা গেছেন। শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে সিরাজগঞ্জ-কাজিপুর আঞ্চলিক সড়কের ফকিরতলা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত আবু সাঈদ সদর উপজেলার বহুলী ইউনিয়নের ছাব্বিশা আলোকদিয়ার গ্রামের মৃত আফজাল হোসেনের ছেলে। তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ছিলেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মোটরসাইকেলে মুক্তিযোদ্ধা আবু সাঈদ কাঠেরপুল থেকে ছোনগাছা যাচ্ছিলেন। ফকিরতলা এলাকায় পৌঁছালে পেছন থেকে সিএনজিচালিত একটি অটোরিকশা তাকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ দাউদ জানান, বিষয়টি থানায় অবগত করা হয়েছে। তবে কোনো অভিযোগ না থাকায় সন্ধ্যায় মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বগুড়ায় ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত

বগুড়ায় ট্রাক-মোটরসাইকেল সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত
প্রতীকী ছবি

বগুড়ার শেরপুরে ট্রাকের সঙ্গে মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ঘে এক স্কুলছাত্র নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে এক কলেজছাত্র।

নিহতের নাম মো. রাব্বী (১৫)। সে শেরপুরের সাধুবাড়ি গ্রামের সায়দুল হকের ছেলে। সাধুবাড়ি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র ছিল সে। আহতের নাম জিনাম (১৯)। তাকে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) সন্ধ্যায় বগুড়া-ঢাকা মহাসড়কে শেরপুর উপজেলার ধরমোকাম (যমুনা পাড়া) নামক স্থানে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, দুই বন্ধু রাব্বী এবং জিনাম শেরপুর উপজেলার খানপুর এলাকায় বিয়েবাড়ি থেকে দাওয়াত খেয়ে মোটরসাইকেলে বাড়ি ফিরছিল। পথিমধ্যে ধরমোকাম নামকস্থানে বিপরীতমুখী চাল বোঝাই ট্রাকের (ঢাকা মেট্রো ট-১৬-২৯৭১) সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই রাব্বী মারা যায়। এসময় আহত জিনামকে এলাকাবাসী আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

হাইওয়ে পুলিশ কুন্দারহাট পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক (এসআই) কাজল কুমার নন্দী বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, জনগণের হাতে আটক ট্রাকটি পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। তবে ট্রাকের চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র