সড়ক নয়, যেন রেলপথ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
রেল লাইনের মতো রাস্তার মাঝেই এমন উঁচু হয়ে গেছে, ছবি: বার্তা২৪

রেল লাইনের মতো রাস্তার মাঝেই এমন উঁচু হয়ে গেছে, ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

সদ্য নির্মাণ হওয়া কুষ্টিয়া-রাজশাহী মহাসড়কে বেশ কয়েক জায়গায় পিচ-পাথর উঁচু হয়ে অসংখ্য ঢিবির সৃষ্টি হয়েছে। এতে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে গিয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনার কবলে পড়ছে ছোট-বড় যানবাহন। দেখে যেন মনে হয় সড়ক তো নয় যেন রেলপথের লাইন।

কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার তালবাড়িয়া এলাকায় এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

কোটি টাকা ব্যয়ে সংস্কার করা সড়কে এমন হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা জানান, মাত্র পাঁচ মাস আগে গোল চত্বর এবং সড়ক নির্মাণের কাজ শেষ হয়েছে। এই সময়ের মধ্যেই সড়কে পিচ ও পাথর উঠে ঢিবি হয়ে গেছে। এতে যান চলাচল করতে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন অনেক যাত্রী।

সরেজমিনে দেখা যায়, কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী মহাসড়কের তালবাড়িয়ায় জ্যোতি পাম্প এলাকার ৮০০ মিটার জায়গা জুড়ে পিচ-পাথর উঠে অসংখ্য জায়গায় ঢিবি হয়ে গেছে।

কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) সূত্রে জানা যায়, এ সড়কের সাড়ে ১০ কিলোমিটার কাজে ব্যয় ধরা হয়েছিল প্রায় ২৩ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। গত বছরের ২৯ মার্চ কাজ শুরু করে শেষ হয় ৩১ ডিসেম্বর। কিন্তু কাজ চলমান থাকা অবস্থায় অক্টোবর মাসে জ্যোতি তেল পাম্প এলাকার শতাধিক জায়গায় ঢিবি হয়ে যায়। সেসময় সেগুলো সংস্কার করা হয়। তারপরও আবারও সেখানে ঢিবি হয়ে গেছে।

এ সময় তালবাড়িয়ার রানাখড়িয়ার কয়েকজন বাসিন্দা জানান প্রতিদিনই দূরপাল্লাগামী দ্রুতগতির কোনো না কোনো যান এসব ঢিবির সঙ্গে ধাক্কা খায়। দুর্ঘটনাও ঘটে। ঢিবির সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে সবচেয়ে বেশি দুর্ঘটনার শিকার হয় প্রাইভেট কার ও মাইক্রোবাস। কাজের মান খারাপ হাওয়ায় পিচ ও পাথরগুলো ঢিবি হয়ে যাচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তারা।

প্রাইভেটকার চালক জলিল মন্ডল বলেন, 'মহাসড়কের পাশ দিয়ে চলার সময় শত চেষ্টার পরও এখন আতঙ্কে থাকতে হয়। ঢিবির সঙ্গে ঘষা লেগে গাড়ির চাকা ও যন্ত্রাংশ নষ্ট হচ্ছে বলেও জানান তিনি।'

কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপথ বিভাগের প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, 'মহাসড়কের জ্যোতি তেলপাম্প এলাকায় সড়কটির পাকা অংশের নিচে পিচ শক্ত হয়ে জমাট বেঁধে ওপরের দিকে উঁচু হওয়ায় ঢিবির মতো হয়েছে। সড়কের সহ্য-ক্ষমতার চেয়ে যানবাহনগুলো মাত্রাতিরিক্ত মালামাল বহন করায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।'

যে এলাকায় বালু বোঝাই ভারী ট্রাক বেশি চলাচল করে সেখানে সবচেয়ে বেশি ঢিবি হয়েছে বলে জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :