ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ৭ নারীকে পিটুনি!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চাঁদপুর
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জ পৌর এলাকায় ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় একই পরিবারের মা, মেয়ে ও চাচিসহ সাত নারীকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অজ্ঞাত ১০/১৫ জনকে বিবাদী করে রোববার (২৩ জুন) দুপুরে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী নারীরা।

শনিবার (২২ জুন) রাতে হাজীগঞ্জ পৌর এলাকার ৫নং ওয়ার্ডের মাঝি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। দুর্বৃত্তদের আঘাতে আহত সাত নারী হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন।

আহতরা হলেন- পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ড এলাকার খোকনের স্ত্রী শামসুন্নাহার (৩৫) ও তার মেয়ে অনু (১৭), আলী আক্কাসের স্ত্রী রাবেয়া বেগম (২৮) ও মেয়ে রিমু (১৩), হাজী আলী আরশাদের মেয়ে আমেনা খাতুন (২২) ও জান্নাত (১৫) এবং আলী আক্কাসের মেয়ে সুমাইয়া শিমু (২৫)।

স্থানীয়রা জানান, মাঝি বাড়ির সৌদি প্রবাসী খোকনের মেয়ে অনু, আলী আক্কাসের মেয়ে রিমু ও হাজী আলী আরশাদের মেয়ে জান্নাত সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরছিলেন। এসময় ওই ওয়ার্ডের ইব্রাহিম ও তুষার রাস্তা থেকে কাঁদা মাটি হাতে নিয়ে জান্নাতের শরীরে মেখে দেয়। বাকিরা রেনু ও অনুর ওড়না টেনে শরীর থেকে ফেলে দেয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় মকিমাবাদের সেলিম মিয়ার ছেলে তুষার-১ (২০), মৃত হাবিউল্যাহর ছেলে ইব্রাহিম-১ (২০), তুষার-২ (২০), বাবু (২২), রাসেল (১৮), আল আমিন (২০), রাজন (২২), সজিব (২২), মাহিম (১৯), ইব্রাহিম-২ (১৯), আশিক (২০), জিহাদ (১৯) আরো কয়েকজন শিক্ষার্থী অনুর বাড়িতে হামলা চালায়।

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর হোসেন রনি বলেন, ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। এ বিষয়ে মামলা হয়েছে। জড়িতদের শিগগিরই আইনের আওতায় আনা হবে।