প্রেমে রাজি না হওয়ায় কলেজছাত্রী হত্যা, যুবকের মৃত্যুদণ্ড

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, পিরোজপুর
ছবি: প্রতীকী

ছবি: প্রতীকী

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় পিরোজপুরের নেছারাবাদ উপজেলার কলেজছাত্রী ঝরনাকে অপহরণের পর হত্যার দায়ে লিটন মণ্ডল নামে এক যুবককে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে পিরোজপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মিজানুর রহমান এ আদেশ দেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত লিটন মণ্ডল ওই উপজেলার আটঘর গ্রামের সুধীর রঞ্জন মণ্ডলের ছেলে।

মামলার নথি ও আদালত সূত্রে জানা যায়, আটঘর গ্রামের সুভাস চন্দ্র দেউরীর কলেজ পড়ুয়া মেয়ে ঝরনা রাণী দেউরীকে দীর্ঘ দিন ধরে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন একই গ্রামের লিটন। এতে রাজি না হওয়ায় ঝরনাকে বিভিন্ন সময় অপহরণের হুমকি দিতেন তিনি। ২০০৯ সালের ১৪ মে ঝরনা তার বোনের বাড়ি বাগেরহাট জেলার কচুয়া থানার আন্দারমানিক গ্রাম থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে উপজেলার কৌড়িখাড়া খেয়াঘাট থেকে লিটনসহ চার-পাঁচজন তাকে অপহরণ করে ট্রলারে করে নিয়ে যান। পরে বরিশালের বানারিপাড়া থানা পুলিশ নদী থেকে বেওয়ারিশ হিসেবে ঝরনার মরদেহ উদ্ধার করে এবং ময়নাতদন্ত শেষে অজ্ঞাত হিসেবে দাফন করে। পরে ঝরনার পরিবার পত্রিকার মাধ্যমে বিষয়টি জেনে মরদেহটি ঝরনার বলে নিশ্চিত করে। এরপর ২৪ মে লিটন ও অজ্ঞাতনামা চার-পাঁচজনকে আসামি করে নেছারাবাদ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন মেয়েটির বাবা। পরে পুলিশ তদন্ত শেষে লিটনসহ চারজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করে আদালতে। অপহরণ ও হত্যার অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় লিটনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। তবে ঘটনার পর থেকেই লিটন পলাতক। এ হত্যাকাণ্ডে সংশ্লিষ্টতা না পাওয়ায় মামলার বাকি তিন আসামিকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

আপনার মতামত লিখুন :