নেত্রকোনায় পাহাড়ি ঢলে পানিবন্দি ১৫ গ্রামের বাসিন্দা

জিয়াউর রহমান, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নেত্রকোনা
পাহাড়ি ঢলে নেত্রকোনার প্রায় ১৫টি গ্রামের কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে/ ছবি: বার্তা২৪.কম

পাহাড়ি ঢলে নেত্রকোনার প্রায় ১৫টি গ্রামের কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে/ ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারী বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে নেত্রকোনার পাঁচগাঁও নদীর বেড়িবাধঁ ভেঙে ১৫টি গ্রামের কয়েক হাজার পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। পাহাড়ি ঢলে ভেঙে গেছে বেশকিছু কাঁচা ঘরবাড়ি। ভেসে গেছে অনেকের পুকুর ও ফিশারির মাছ। বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থাও।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত পানিবন্দি ঐসব পরিবারগুলোর খোঁজ-খবর নেয়নি কেউ। ফলে জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী। আর গণেশ্বরী নদীতে মাছ ধরতে গিয়ে হান্নান (২৩) নামে এক যুবক নিখোঁজ রয়েছেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/27/1561650601230.jpg

জানা গেছে, ভারী বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢলে উপজেলার রংছাতি ইউনিয়নের পাঁচগাঁও, ধারাপাড়া, নয়াচৈতাপাড়া, রামনাথপুর, কৃষ্টপুর,রায়পুর, নতুন বাজার, বারমারা, খারনৈ ইউনিয়নের সুন্দরীঘাট, বাউশা, ভাসানকুড়া ও লেংগুরা ইউনিয়নের চৈতা, লেংগুরা বাজার, ফুলবাড়ি, ঝিগাতলা ও শিবপুর গ্রামের লোকজন পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন।

এছাড়া কলমাকান্দা-পাঁচগাঁও পাকা রাস্তার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় যাতায়াত করতে গিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন এলাকাবাসী। খারনৈ ইউনিয়নের সুন্দরীঘাট-বাউশা কাঁচা রাস্তাটির দুপাশের মাটি ভেঙে গেছে। দেবে গেছে বাউশা বাজার ব্রিজ। যেকোনো সময় ব্রিজটি ভেঙে পড়ার আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/27/1561650638694.jpg

রংছাতি ইউনিয়নের সিংকাটা গ্রামের নুরুল ইসলান ও চৈতা গ্রামের ঈসমাইল মিয়া জানান, তারা ভোর থেকে পানিবন্দি হয়ে আছেন। অথচ স্থানীয় মেম্বার, চেয়ারম্যান কিংবা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদের খোঁজ নেয়নি। বাড়ির ভেতরে পানি উঠায় রান্না করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে না খেয়েই দিনানিপাত করতে হচ্ছে।

সীমান্তবর্তী নকলাই গ্রামের বাসিন্দা মাহালার মারটিং রংরিং জানান, বাড়িতে পানি উঠায় বসতঘর ভেঙে গেছে। ফলে পরিবার নিয়ে তিনি খুব সমস্যায় আছেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/27/1561650670726.jpg

রংছাতি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তাহেরা খাতুন বলেন, ‘এলাকার বেশ কয়েকটি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। তবে আমিসহ মেম্বাররা প্রশিক্ষণে থাকায় এলাকায় যেতে পারছি না।’

এ বিষয়ে কলমাকান্দা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. জাকির হোসেন বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘অতিরিক্ত পাহাড়ি ঢলে কয়েকটি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। রাস্তাও তলিয়ে গেছে। তবে আর বৃষ্টি না হলে সাময়িক এ জলাবদ্ধতা শীঘ্রই দূর হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :