সংরক্ষিত নারী এমপি রুশেমার মৃত্যু

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ফরিদপুর
সংরক্ষিত নারী আসন-৩৪ -এর এমপি রুশেমা বেগম, ছবি: সংগৃহীত

সংরক্ষিত নারী আসন-৩৪ -এর এমপি রুশেমা বেগম, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসন-৩৪ (ফরিদপুর) এর সংসদ সদস্য রুশেমা বেগম আর নেই।

মঙ্গলবার (৯ জুলাই) রাত সাড়ে ১২টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ফরিদপুর হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর। রুশেমা বেগম দুই ছেলে সাইফুল আহাদ, আসাদুল আহাদ ও এক মেয়ে ফারজানা আহম্মেদসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী-স্বজন রেখে গেছেন।

রুশেমা বেগমের মরদেহ দীর্ঘদিনের স্মৃতি বিজড়িত স্বামীর বাড়ি হাবেলী গোপালপুরে রাখা হয়েছে। বুধবার (১০ জুলাই) বিকেলে আসরের নামাজের পর ফরিদপুর পুলিশ লাইন্স মাঠে জানাজা হবে। এরপর কমলাপুর ইমামবাগে শশুর বাড়ির পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হবে।

রুশেমা বেগম ভাষা সৈনিক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, প্রয়াত সাংসদ ও বঙ্গবন্ধুর অন্যতম ঘনিষ্ঠ সহচর ইমাম উদ্দিন আহম্মেদের স্ত্রী। ১৯৫৪ সালে তিনি ইমাম উদ্দিনের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। রুশেমা বেগমের বাবার নাম সৈয়দ খবিরুদ্দিন আহম্মেদ ও মা সৈয়দা রইছুন নেছা। তারা ফরিদপুর শহরের লক্ষ্মীপুর এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/10/1562739034512.jpg

রুশেমা বেগম ১১তম জাতীয় সংসদে নারী সংরক্ষিত আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পান এবং ২০ ফেব্রুয়ারি সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ গ্রহণ করেন।

শিক্ষা জীবনে ১৯৫১ সালে ঈশান ইনস্টিটিউশন থেকে এসএসসি পাস করেন রুশেমা বেগম। ১৯৫৩ সালে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। ১৯৫৪ সালে বিয়ে হওয়ায় তার লেখাপড়া কয়েক বছর বন্ধ ছিল। ১৯৬৪ সালে সরকারি রাজেন্দ্র কলেজ থেকে বিএ এবং ১৯৬৮ সালে বিএড পাস করেন।

কর্মজীবনে ১৯৫৯ সালে ফরিদপুর গালর্স জুনিয়র মাদরাসায় (হালিমা গার্লস স্কুল) প্রধান শিক্ষক পদে যোগদান করেন। পরবর্তীকালে ঈশান গার্লস হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক পদে যোগদান ও সেখানে দীর্ঘদিন শিক্ষকতা করে অবসরে যান। এছাড়া তিনি নারী শিক্ষা ও নারী মুক্তির লক্ষ্যে আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য কাজ করে গেছেন।

এদিকে তার মৃত্যুতে জাতীয় সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুর রহমান, সাংসদ মজিবুর রহমান চৌধুরী নিক্সন, সংসদ সদস্য মনজুর হোসেনসহ ফরিদপুরের বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে শোক জানানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :