Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

দুদকের মামলায় পুলিশ কর্মকর্তা কারাগারে

দুদকের মামলায় পুলিশ কর্মকর্তা কারাগারে
প্রতীকী ছবি
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ফরিদপুর


  • Font increase
  • Font Decrease

ফরিদপুরে নির্দিষ্ট সময়ে সম্পত্তির বিবরণ জমা না দেওয়ায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় এক সহকারী পুলিশ সুপারকে (এএসপি) কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১৭ জুলাই) বিকালে ঐ পুলিশ কর্মকর্তা ফরিদপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন জানালে আদালতের হাকিম মো. সেলিম মিয়া আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

ঐ পুলিশ কর্মকর্তার নাম এস এম বদরুল আলম। তিনি গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার ধানকোড়া গ্রামের বাসিন্দা। এস এম বদরুল আলম বর্তমানে গাজীপুর জেলার হাইওয়ে পুলিশের এএসপি হিসেবে কর্মরত রয়েছেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০০৯ সালে এস এম বদরুল আলম যশোরের ঝিকরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ঐ বছরের ৪ মে তার সম্পত্তির হিসাব চেয়ে সাত দিনের মধ্যে তা দুদকে জমা দিতে বলা হয়। বদরুল আলম দুদকের নোটিশের ঐ চিঠিটি ৫ মে গ্রহণ করেন। সেই হিসেবে ১৪ মে’র মধ্যে তার সম্পত্তির হিসাব দেওয়ার কথা ছিল।

বদরুল আলম নির্দিষ্ট সময়ে সম্পত্তির হিসাব জমা না দেওয়ায় দুদকের ফরিদপুর জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আবুল হোসেন বাদী হয়ে ২০০৯ সালের ৮ সেপ্টেম্বর বদরুল আলমকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন ফরিদপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে।

মামলা দায়েরের পর বদরুল আলম হাইকোর্ট থেকে অন্তর্বর্তিকালীন জামিন নেন। হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ গত ২০১৪ সালের ১৬ জুন এ ব্যাপারে একটি রুল জারি করে রুল নিস্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বদরুল আলমের বিরুদ্ধে দায়ের করা দুদকের মামলার কার্যক্রম স্থগিত ঘোষণা করেন। গত ২০১৬ সালের ২৬ জুলাই হাইকোর্ট বদরুল আলমের দায়ের করা রুলটি খারিজ করে দেন।

জেলা দুদকের আইনজীবী নারায়ন চন্দ্র দাস জানান, হাইকোর্ট রুল খারিজ করে দিলেও বদরুল আলম সেই তথ্য গোপন রাখেন। অতপর বুধবার তিনি ফরিদপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতে এসে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করেন। তবে আদালত জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়ে তাকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।

আপনার মতামত লিখুন :

ফেনীতে ট্রেনে কাটা পড়ে কিশোরের মৃত্যু

ফেনীতে ট্রেনে কাটা পড়ে কিশোরের মৃত্যু
ট্রেনে কাটা পড়ে নিহত কিশোর, ছবি: সংগৃহীত

ফেনীতে ট্রেনে কাটা পড়ে ইমদাদুল হক অপু নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার (২৫ আগস্ট) সকালে শহরের গোডাউন কোয়ার্টার এলাকার রেলক্রসিংয়ে ট্রেনের কাটা পড়ে মারাত্মক আহত হন তিনি। ফেনীতে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে দুপুরে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম নেওয়ার পথে মারা যান ওই কিশোর।

নিহত অপু ফেনী সদর উপজেলার আলোকদিয়া গ্রামের মৌলভীবাড়ীর জোবায়ের আহমদের ছেলে এবং ফেনী সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের ১৮ ব্যাচের ছাত্র ছিল।

ফেনী জিআরপি থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম বলেন, 'দুপুরে চাঁদপুর থেকে চট্রগ্রামগামী মেঘনা এক্সপ্রেস ট্রেনটি রেলক্রসিং পার হচ্ছিল। এ সময় অপু দ্রুত রেল লাইন পার হতে গিয়ে ট্রেনের নিচে কাটা পড়লে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ফেনী সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চট্রগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। চট্রগ্রাম নেওয়ার পথে ইমদাদুল হক মারা যায়।

বিরল রোগে আক্রান্ত শিশু তাসফিয়া

বিরল রোগে আক্রান্ত শিশু তাসফিয়া
তাসফিয়া জাহান মুনিরা। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

বিরল রোগে আক্রান্ত সাড়ে তিন বছরের মেয়ে তাসফিয়া জাহান মুনিরা। তাসফিয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার গোডাউন পাড়ার মাসুদুজ্জামান মামুনের ছোট মেয়ে।

জন্ম থেকেই তার সারা শরীর লম্বা লম্বা পশমে আবৃত। এমনকি মুখের মধ্যেও গজিয়ে উঠছে সেই পশম। পিঠের ছোট্ট একটি টিউমার থেকে এর উৎপত্তি বলে তাসফিয়ার মা তানজিলা খাতুন জানান।

তিনি জানান, যখন তাসফিয়ার বয়স ৬ দিন, তখন থেকেই পশম লক্ষ্য করা যায়। এরপর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। তখন হাসপাতালের চিকিৎসকদের গঠিত মেডিকেল বোর্ড এটিকে বিরল চর্ম রোগ বলে শনাক্ত করেন। তখন তাসফিয়ার বয়স ৩-৪ বছর হলে উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ দেয়া হয়। বর্তমানে তার বয়স সাড়ে তিন বছর।

তিনি আরও জানান, গরমের দিনে ওই শিশুর শরীর থেকে আগুনের মতো তাপ বের হতে থাকে। দিনে ২-৩ বার গোসল করাতে হয়। দিনরাত ফ্যানের নিচে রাখতে হয়। বিদ্যুৎ না থাকলে হাত পাখা দিয়ে বাতাস করতে হয়।

ডাক্তাররা বাচ্চাটিকে চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে রাজমিস্ত্রী বাবার পক্ষে শিশু তাসফিয়ার উন্নত চিকিৎসা করানো সম্ভব না। তাই বর্তমানে তার হোমিও চিকিৎসা চলছে।

তাসফিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্য চেয়েছে তার বাবা-মা।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র