রাষ্ট্রের উন্নয়নে সবচেয়ে বড় বাধা দুর্নীতি



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, লক্ষ্মীপুর
দুর্নীতি প্রতিরোধে সরকারি কার্যালয়ের কর্মকর্তা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানদের নিয়ে মতবিনিময় সভা চলছে। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

দুর্নীতি প্রতিরোধে সরকারি কার্যালয়ের কর্মকর্তা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানদের নিয়ে মতবিনিময় সভা চলছে। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

  • Font increase
  • Font Decrease

‘দুর্নীতি হলো রাষ্ট্রের উন্নয়নে সবচেয়ে বড় বাধা। সুপরিকল্পিতভাবে এ বাধা আমাদের অতিক্রম করতে হবে। সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় নানা জটিলতা উপেক্ষা করে নিজেদের অবস্থান থেকে দুর্নীতি প্রতিরোধে এগিয়ে আসতে হবে। বাস্তবমুখী শিক্ষা প্রদান ও সততা চর্চার সুযোগ করে দেওয়ার মধ্য দিয়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে অপরাধ ও দুর্নীতি বিরোধী মনোভাব সৃষ্টি করতে হবে।’

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দুপুরে লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলা পরিষদের হলরুমে দুর্নীতি প্রতিরোধে সরকারি কার্যালয়ের কর্মকর্তা ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধানদের নিয়ে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন বক্তারা। ‘বন্ধ হলে দুর্নীতি, উন্নয়নে আসবে গতি’ স্লোগানে উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির উদ্যোগে ও মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়ের ব্যবস্থাপনায় এ সভার আয়োজন করা হয়।

মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন- দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) নোয়াখালী জেলা সমন্বিত কার্যালয়ের উপ-পরিচালক জাহাঙ্গীর আলম। পরে রামগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়সহ ৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সততা স্টোর চালু করা হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/23/1563885473119.jpg

রামগঞ্জ উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মো. মোখলেছুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম এ রহিমের পরিচালনায় এতে বক্তব্য দেন- উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ হুমায়ুন রশিদ, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা সরিৎ কুমার চাকমা, রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ভূঁইয়া প্রমুখ।

আয়োজকরা জানায়, অনুষ্ঠানে রামগঞ্জ উপজেলার ৫৭টি শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে সততা সংঘের উদ্যোগে শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সাধারণ জ্ঞান, সাংস্কৃতিক ও বিতর্ক প্রতিযোগিতার জন্য ১ হাজার ৯শ টাকা করে অনুদানের চেক বিতরণ করে দুদক। এ সময় অংশগ্রহণকারীদের দুর্নীতি বিরোধী স্লোগান সম্বলিত নোটখাতা, স্কেল, ফেস্টুন ও সততা সংঘ পরিচালনার জন্য একটি করে নির্দেশিকা দেওয়া হয়।