১২ হাজার টাকায় শিশু বিক্রি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, নরসিংদী
উদ্ধারকৃত শিশু তৌহিদ/ ছবি: সংগৃহীত

উদ্ধারকৃত শিশু তৌহিদ/ ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নরসিংদীর পলাশে সারে তিন বছরের এক শিশুকে হারানোর নাটক সাজিয়ে ১২ হাজার টাকায় বিক্রির অভিযোগে শিশুটির নানিকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তার দেওয়া তথ্যমতে মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) সকালে গাজীপুরের কাপাসিয়ার দক্ষিণগাও গ্রাম থেকে শিশু তৌহিদকে উদ্ধার করে পলাশ থানা পুলিশ।

পলাশ থানা পুলিশ জানায়, উপজেলার ঘোড়াশাল পৌর এলাকার বালুচর পাড়া নামক গ্রামের নান্নু মিয়ার মেয়ে রেক্সোনা তিন মাস আগে গাজীপুরের কালীগঞ্জ উপজেলার জামালপুর গ্রামের হতদরিদ্র আলাউদ্দিনের কাছ থেকে তৌহিদ নামের ঐ শিশুটিকে দত্তক আনেন।

পরে গত ঈদুল ফিতরের ১০ দিন পর শিশু তৌহিদকে রেক্সোনা তার মা-বাবার কাছে রেখে সাতক্ষীরা তার স্বামীর বাড়িতে চলে গেলে রেক্সোনার মা-বাবা শিশুটিকে লালন-পালন করতে থাকেন। এদিকে গত রোববার সন্ধ্যায় রেক্সোনার বাবা নান্নু মিয়া শিশু তৌহিদ নিখোঁজ বলে পলাশ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেন।

সোমবার দিনব্যাপী এলাকাজুড়ে শিশু তৌহিদের সন্ধান চেয়ে মাইকিংও করা হয়। এদিকে থানার এস আই সুমন মিয়া শিশু তৌহিদ হারানোর বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তদন্তে নামেন। পরে তদন্তকালে রেক্সোনার মা রানু বেগম (৫২)-কে সন্দেহ হলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাকে আটক করেন।

দীর্ঘক্ষণ জিজ্ঞাসাবাদের পর রানু বেগম শিশু তৌহিদকে ১২ হাজার টাকায় গাজীপুরের কাপাসিয়ার দক্ষিণ গাও গ্রামের নিঃসন্তান বাবুল মিয়ার কাছে বিক্রি করে দেওয়ার কথা স্বীকার করে। পরে মঙ্গলবার সকালে পলাশ থানা পুলিশ কাপাসিয়া থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে পলাশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ মো. নাসির উদ্দিন জানান, শিশু তৌহিদকে উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযুক্ত রানু বেগমের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :