সাতক্ষীরায় মাইকিং করে ইলিশ বিক্রি

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, সাতক্ষীরা
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর

  • Font increase
  • Font Decrease

সাতক্ষীরায় মাইকিং করে বিক্রি হচ্ছে ইলিশ। বিক্রেতাদের দাবি, এ বছর প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ায় বাজার জাতীয় এই মাছে সয়লাভ হয়ে গেছে। তবে বিক্রেতারা বলছেন, আয় কমে যাওয়ায় বাজারে ইলিশ কেনার লোক কম। তাই মাইকিং করে ক্রেতা ডেকে আনার চেষ্টা চলছে।

সাতক্ষীরার সবচেয়ে বড় বাজার শহরের সুলতানপুর বড়বাজার। বৃহস্পতিবার (২৫ জুলাই) রাতে বাজারে গিয়ে দেখা যায়, ইলিশ মাছের প্রতি ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে মাইকিং করা হচ্ছে। কিন্তু সে তুলনায় ক্রেতা কম। তবে বিভিন্ন আকারের ইলিশ প্রচুর, দামও নাগালের বাইরে নয়।

মাইকিংয়ে বলা হচ্ছে, বাজার ইলিশ মাছে ভরে গেছে। দাম কম। সুস্বাদু ইলিশ কিনতে বাজারে দ্রুত আসুন!

সুলতানপুর বড়বাজারের ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান বলেন, এ বছর ইলিশ উঠেছে দেরিতে। তবে দাম রয়েছে ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে। আকার অনুযায়ী ইলিশের দাম কেজি প্রতি ২৫০ টাকা থেকে ১১০০ টাকা। তবে ক্রেতা কম থাকায় মাইকিং করা হচ্ছে শহর থেকে গ্রামে।

একই বাজারের মাছ ব্যবসায়ী আবুল বাশার বলেন, এবারই সাতক্ষীরায় ইলিশের প্রথম চালান এলো। এখানে এক কেজি চিংড়ির দাম কমপক্ষে ৫০০ টাকা। চিংড়ির দামে বিক্রি হচ্ছে ইলিশ।

তবে ক্রেতারা বলছেন, এ বছর বৃষ্টি কম থাকায় আমনের ভরা মৌসুমে কৃষকদের কাজ তেমন নেই। ফলে তাদের আয়ও কমে গেছে। অনেকেই বেকার হয়ে পড়েছেন। ফলে ইলিশ কেনার মত অবস্থা নেই অনেকের। তাই বাজারে ক্রেতা কম।

এ বছর ভরা ইলিশের মৌসুমেও বাজারে তেমন ইলিশ আসেনি, দাম অন্য বারের মতই। এমন মন্তব্য করেন অনেক ক্রেতা।

আপনার মতামত লিখুন :