Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

সুন্দরবন ও পশুর নদী রক্ষায় মানববন্ধন

সুন্দরবন ও পশুর নদী রক্ষায় মানববন্ধন
কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
নোয়াখালী


  • Font increase
  • Font Decrease

বাঘের আবাসস্থল সুন্দরবন ও সুন্দরবনের প্রাণ পশুর নদী রক্ষায় মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

সোমবার (২৯ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাগেরহাটের মোংলা উপজেলার শেহলাবুনিয়ায় সেন্ট পলস উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকজন অংশ নেয়। বিশ্ব বাঘ দিবস উপলক্ষে ‘আসুন বাঘের আবাসস্থল সুন্দরবনকে রক্ষা করি’ শ্লোগানে সোমবার পশুর রিভার ওয়াটারকিপার, ওয়াটারকিপারস বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন এ মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।

মানববন্ধন চলাকালীন সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন পশুর রিভার ওয়াটারকিপার ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন’র বাগেরহাট জেলা সমন্বয়কারী মো: নুর আলম শেখ। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন সুন্দরবন জাদুঘরের পরিচালক সুভাষ চন্দ্র বিশ্বাস, মোংলা পৌর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী গোলাম হোসেন বাবলু, স্থানীয় সাংবাদিক শেখ কামরুজ্জামান জসিম, বাপা নেতা নাজমুল হক, স্থানীয় জেলে সমিতির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ হাওলাদার, রুদ্র স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান টিটো, পশুর রিভার ওয়াটারকিপারের ভলান্টিয়ার গীতা হালদার ও কমলা সরকার।

এ সময় বক্তারা বলেন, ‘খাদ্য ও নিরাপদ বাসস্থানের অভাবে বাঘ লোকালয়ে আসছে এবং মারা যাচ্ছে। সুন্দরবনের খালে বিষ দিয়ে মাছ ধরায় এবং সুন্দরবনের প্রাণ পশুর নদীর দূষণের ফলে সুন্দরবনের খাদ্য শৃঙ্খলা ভেঙে পড়ছে। তাই সুন্দরবনের খালে বিষ প্রয়োগে মাছ মারা বন্ধ করতে এবং পশুর নদী দূষণ রোধে প্রশাসনকে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করার পাশাপাশি সুন্দরবনের বাপার জোন এলাকায় অপরিকল্পিত শিল্পায়ন বন্ধ করতে হবে।’

পরে দুপুর ১২ টায় বাঘ দিবসের র‌্যালি শেষে সেন্ট পলস উচ্চ বিদ্যালয়ের মিলনায়তনে ‘সুন্দরবনের রয়েল বেঙ্গল টাইগার’ শিরোনামে রচনা ও শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিযোগিতা শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পশুর রিভার ওয়াটারকিপার মোঃ নূর আলম শেখ। এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোংলা পোর্ট পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব মোঃ জুলফিকার আলী। এছাড়াও বিশেষ অতিথি ছিলেন মোংলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এইচ,এম দুলাল ও সেন্ট পলস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনীন্দ্র নাথ হালদার।

আপনার মতামত লিখুন :

শিবচরে ডেঙ্গু জ্বরে গৃহবধূর মৃত্যু

শিবচরে ডেঙ্গু জ্বরে গৃহবধূর মৃত্যু
এডিস মশা, ছবি: সংগৃহীত

মাদারীপুরের শিবচরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সুমি আক্তার (৩০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে শিবচর উপজেলার চারজনসহ মাদারীপুর জেলার মোট আটজন ডেঙ্গু জ্বরে মারা গেলেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ২০ আগস্ট শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন সুমি। অবস্থার অবনতি হওয়ায় শনিবার (২৪ আগস্ট) রাতে তাকে ঢাকা নেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু পথেই তার মৃত্যু হয়। সুমি শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ঘাট এলাকার স্পিডবোটচালক আনোয়ার ফকিরের স্ত্রী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শিবচর উপজেলা পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আব্দুল মোকাদ্দেস বলেন, এখনো হাসপাতালে ২৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন।

পরিবর্তন হচ্ছে রাজবাড়ী ও ফরিদপুরের দুই মোড়ের নাম

পরিবর্তন হচ্ছে রাজবাড়ী ও ফরিদপুরের দুই মোড়ের নাম
গোয়ালন্দ মোড় ও ফরিদপুরের রাজবাড়ী রাস্তার মোড় (ডানে), ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

পদ্মা কন্যাখ্যাত রাজবাড়ী ও ফরিদপুর জেলার গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম দু’টি মোড়ের নাম পরিবর্তনের জন্য সুপারিশ পাঠিয়েছে প্রশাসন। মোড় দু’টির নাম নিয়ে যাত্রী ও যানবাহনের চালকদের মধ্যে নানা সময়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। এজন্য নাম পরিবর্তনের সুপারিশ পাঠানো হয়েছে বলে জানান রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম।

মোড় দু’টি হলো রাজবাড়ী জেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ‘গোয়ালন্দ মোড়’ ও একই সড়কের ফরিদপুর জেলার ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়’। এরই মধ্যে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জেলার উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় মোড় দু’টির নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সভায় গোয়ালন্দ মোড়ের নাম ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়’ এবং ফরিদপুরের ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়ের নাম ‘ফরিদপুর রাস্তার মোড়’ রাখার সুপারিশ করা হয়েছে।

নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে রাজবাড়ী সার্কেল নামের একটি ফেসবুক গ্রুপ তাদের পেজে লিখেছে, বিবর্তন বা পরিবর্তনই শুদ্ধতা ও উন্নয়নের মূল বীজ। আজকের পরিবর্তন বর্তমানের কাছে অসামঞ্জস্য লাগলেও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য হবে সহজ ও সুন্দর। দূর হবে বিভ্রান্তি।

এ ব্যাপারে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, মোড় দু’টির নাম নিয়ে যাত্রী ও যানবাহনের চালকদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। বিশেষ করে দূরের যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। আমাদেরও আগে বিষয়টি সড়ক বিভাগের সচিবের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। তারই নির্দেশনায় সড়ক বিভাগের পক্ষ থেকে রাজবাড়ী ও ফরিদপুরে আসা যাত্রীদের বিভ্রান্তি দূর করতে গোয়ালন্দ মোড়কে ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়’ এবং ফরিদপুরের ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়কে’ ফরিদপুর রাস্তার মোড়’ করার সুপারিশ করা হয়েছে।

তবে ফরিদপুর জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান যে তিনি মোড় দু’টির নাম পরিবর্তনের বিষয়ে এখনও কিছু জানেন না।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র