এবারো ঈদের আনন্দ পৌঁছায়নি মানতা পরিবারগুলোর মাঝে

আব্দুস সালাম আরিফ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, পটুয়াখালী
ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রতি বছরের মতো এবারো পটুয়াখালী জেলার রাঙ্গাবালী উপজেলার চরমন্তাজ ইউনিয়নে নৌকায় বসবাস করা ১৭০ মানতা পরিবারের মাঝে ঈদের আনন্দ পৌঁছায়নি।

সাগর ও নদী বেষ্টিত চরমন্তাজ ইউনিয়নটি মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন একটি দ্বীপ। এখানে গত ৩০ বছরের অধিক সময় যাবৎ সুলিজ বাজারের খালে নৌকায় এসব মানতা পরিবার বসবাস করে। মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করা এসব পরিবারের সদস্যদের ভাগ্যে জোটেনি কোরবানির পশুর মাংস। তাই ঈদ কিংবা কোরবানি কোনো কিছুতেই তাদের অনুভূতি নেই।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/13/1565706106544.jpg

চরমন্তাজ ইউনিয়নের বাসিন্দা আইয়ুব খান জানান, সমাজের উঁচু শ্রেণির মানুষদের ঈদ আনন্দ এই চরে আসতে আসতে অনেকটাই বিবর্ণ হয়ে যায়। শহরের গরিব মানুষগুলোর ভাগ্যে কোরবানির পশুর মাংস জুটলেও মানতাদের তা জোটে না। মানতা সম্প্রদায়ের আশপাশে যেসব মানুষ বসবাস করে তারাও অনেকটা দরিদ্র। কেউ কেউ কোরবানি দিলেও তা ডাঙ্গায় বসবাস করা মানুষদের মঝে বিতরণ করেই শেষ হয়ে যায়।

মানতা সম্প্রদায়ের নারী সদস্য তাছলিমা বলেন, ‘আইজ পর্যন্ত কোনো কোরবানিতে এক টুকরা গোস্ত ভাগ্যে জোডে নাই। পোলাপান লইয়া হারা বছর যেমন থাহি, ঈদ কোরবানিতেও হেইরহম থাহি। মোগো লইগ্যা ঈদ আর কোরবানি নাই।’

মুসলিম ধর্মের অনুসারী এসব মানতা সম্প্রদায়ের পরিবারের মাঝেও ঈদের আনন্দ ছড়িয়ে দিতে সরকারি ও ব্যক্তি পর্যায়ে সহযোগিতার কথা বলছেন এ চরে বসবাস করা মানুষরা।

আপনার মতামত লিখুন :