Barta24

রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ৩ ভাদ্র ১৪২৬

English

চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে চোরাচলানকারীর মরদেহ উদ্ধার

চুয়াডাঙ্গা সীমান্তে চোরাচলানকারীর মরদেহ উদ্ধার
নিহত আবদুল্লাহ, ছবি: সংগৃহীত
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
চুয়াডাঙ্গা


  • Font increase
  • Font Decrease

চুয়াডাঙ্গা সীমান্ত এলাকা থেকে আব্দুল্লাহ (৪০) নামের এক চোরাচালান পাচারকারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৪ আগস্ট) তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত আব্দুল্লাহর শরীরে বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। প্রাথমিকভাবে তাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারনা করেছে পুলিশ। তবে কে বা কারা তাকে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে গেছে এ বিষয়ে কিছুই বলতে পারেনি কেউ।

নিহত আব্দুল্লাহ দামুড়হুদা উপজেলার ঠাকুরপুর সীমান্ত এলাকার গোলাম রসূলের ছেলে।

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সুকুমার বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, সীমান্তের ৮৯ নং পিলারের কাছে আব্দুল্লাহর মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় গ্রামবাসী। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। নিহত আব্দুল্লাহর বিরুদ্ধে এর আগে দামুড়হুদা মডেল থানায় পাচারের সঙ্গে জড়িত থাকায় একাধিক মামলা রয়েছে। মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে জানা যাবে কীভাবে সে মারা গেছে।

চুয়াডাঙ্গা ৬ বিজিবির পরিচালক সাজ্জাত সরোয়ারের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তদন্ত ছাড়া কিছু বলতে পারবেন না বলে জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

হিলি স্থলবন্দরে আবারও আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দরে আবারও আমদানি-রফতানি শুরু
হিলি বন্দরে আমদানি রফতানি শুরু, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরে পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে টানা ৯ দিন বন্ধের পর আবারও আমদানি-রফতানির সকল কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

রোববার (১৮ আগস্ট) সকাল থেকে হিলি পানামা পোর্ট লিংকের সহকারী ব্যবস্থাপক আশিক কুমার সার্নাল এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে গত (শুক্রবার, ৯ আগস্ট) থেকে নয়দিন বন্দরের সকল প্রকার কার্যক্রম বন্ধ ছিল। ৯ দিন বন্দের পর রোববার সকাল থেকে স্থলবন্দরে যথারীতি সকল প্রকার আমদানি-রফতানির কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বন্দরে ভারতীয় ট্রাক আনলোডসহ দেশি ট্রাকগুলো লোড হয়ে দেশের বিভিন্নস্থানে ছেড়ে যাওয়া শুরু করেছে।

হিলি ইমিগ্রেশন পুলিশ কর্মকর্তা রফিকুজ্জামান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানিয়েছেন, গত ৯ আগস্ট থেকে টানা নয়দিন বন্দরের সকল কার্যক্রম বন্ধ থাকলেও হিলি চেকপোস্ট দিয়ে ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে পাসপোর্টধারী যাত্রী যাতায়াত স্বাভাবিক ছিল।

দৌলতদিয়া ঘাটে যানবাহনের অপেক্ষায় ফেরি

দৌলতদিয়া ঘাটে যানবাহনের অপেক্ষায় ফেরি
দীর্ঘক্ষণ গাড়ির জন্য অপেক্ষা করে ঘাট থেকে ফেরি ছেড়ে যাচ্ছে, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

পাল্টে গেছে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাটের চিরায়ত রূপ। যেখানে ফেরির জন্য যানবাহনগুলোকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা মহাসড়কে অপেক্ষা করতে হয়েছে সেখানে এখন যানবাহনের জন্য অপেক্ষা করছে ফেরি। ঈদের সময় যেখানে যানবাহনের চাপে ফেরিগুলোকে রীতিমত হিমশিম খেতে হয়েছে। এখন সেখানে বিরাজ করছে পুরোপুরি উল্টো চিত্র।

দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে পর্যাপ্ত ফেরি রয়েছে। যানবাহনের খুব একটা চাপ না থাকায় বেশিরভাগ ফেরি অলস সময় পার করছে। দুই একটি যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী ট্রাক ঘাট এলাকায় পৌঁছালেই চোখের নিমিষেই নদী পার হয়ে যাচ্ছে।

গতকাল শনিবার (১৭আগস্ট) ছিল ঈদের ছুটির শেষ দিন। তাই ঘাটেও ছিল অতিরিক্ত যাত্রী ও যানবাহনের চাপ। কিন্তু আজ একেবারেই বিপরীত চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। যাত্রী ও যানবাহন শূন্য দৌলতদিয়া ফেরি ঘাট। ঈদ উপলক্ষে বন্ধ থাকা পণ্যবাহী ট্রাকগুলোও রাতেই নদী পার হয়ে গেছে।

রোববার (১৮ আগস্ট) সকালে দেখা যায়, দৌলতদিয়া বাস টার্মিনাল একেবারেই ফাঁকা। সেখানে একটি যানবাহনও নেই। তাছাড়া দৌলতদিয়া জিরো পয়েন্ট থেকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে নেই কোনো যানবাহন। অভ্যন্তরীণ আন্তঃজেলা লোকাল বাসগুলোই শুধু চলাচল করছে। তাছাড়া হাতেগোনা কয়েকটি পরিবহন চলাচল করছে।

অন্যদিকে, দৌলতদিয়া ফেরি ঘাটে দেখা যায়, যানবাহনের জন্য দীর্ঘ সময় ধরে অপেক্ষা করছে ফেরিগুলো। একেকটি ফেরি ভরতে প্রায় ঘণ্টাখানিক সময় লেগে যাচ্ছে। অনেক ফেরি আবার অল্প সংখ্যক যানবাহন নিয়েই নদী পার হচ্ছে।

ফরিদপুর থেকে ছেড়ে আসা গোল্ডেন লাইনের চালক কাজী সাইফুল্লাহ বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘আগে মহাসড়কে ফেরির জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করেছি। আর আজ ফেরিতে উঠে অপেক্ষা করছি। যানবাহন না থাকায় ফেরি ছাড়তে পারছেনা।’

যানবাহনের জন্য দীর্ঘ সময় ঘাটে এসে ফেরিগুলোর অপেক্ষা করার বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহনের (বিআইডব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট শাখার ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) আবু আব্দুল্লাহ রনি বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘পর্যাপ্ত ফেরি থাকায় ঘাটে এসে কোনো যানবাহনকে নদী পারের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছেনা। তাছাড়া আজ যানবাহনের চাপ একেবারেই নেই। দৌলতদিয়া ঘাটের ৬টি পল্টুনই সচল রয়েছে এবং দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌরুটে বর্তমানে ১৯টি ফেরিই চলাচল করছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র