Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

রাস্তার ইট তুলে নিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা

রাস্তার ইট তুলে নিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা
সরকারি রাস্তার ইট তুলে নিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দিন চৌধুরী/ ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট
বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম
বান্দরবান


  • Font increase
  • Font Decrease

বান্দরবান সদর থানায় বিশ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত সরকারি রাস্তার ইট তুলে নিয়েছেন সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দীন চৌধুরী। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে সদর থানায় একটি মামলা হয়েছে।

ঠিকাদার সূত্রে জানা যায়, বান্দরবান সদর উপজেলার কুহালং ইউনিয়নের লেমুঝিড়ি এলাকায় পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে পাহাড়ের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠী খেয়াং সম্প্রদায়ের ছাত্রদের হোস্টেলে যাওয়ার জন্য ২০১৮ সালে ৪০০ মিটার ইটের রাস্তা নির্মাণ করা হয়।

নির্মাণ কাজের একবছর পূর্ণ না হওয়ায় ঠিকাদার এখনো সিকিউরিটি বিল উত্তোলন করতে পারেননি। এরই মধ্যে আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দিন চৌধুরী নিজের প্রভাব খাটিয়ে রাস্তাটির সবকটি ইট তুলে নিয়ে গেছেন।

কাজের জামানতের টাকা উত্তোলনের জন্য বুধবার (১৪ আগস্ট) ঠিকাদার রাস্তার ছবি তুলতে গিয়ে দেখেন, রাস্তা থেকে কয়েকজন শ্রমিক ইটগুলো তুলে ফেলছেন। শ্রমিকদের সঙ্গে কথা বলে জানেন, জামাল উদ্দিন চৌধুরী রাস্তার ইটগুলো তুলে নিতে শ্রমিকদের কাজে লাগিয়েছেন।

তাৎক্ষণিক বিষয়টি পার্বত্য জেলা পরিষদের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানালে তারা সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরির্দশন করেছে। স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে ইটগুলো তুলে নেওয়ার প্রমাণ পাওয়ায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনার পর থেকে জামাল উদ্দিন চৌধুরী পলাতক রয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/14/1565792040520.gif

নির্মাণ কাজের ঠিকাদার আব্দুল মোমেন বলেন, ‘একবছর আগে রাস্তাটি নির্মাণ করেছি। এখনো কাজের জামানতের টাকাও উত্তোলন করিনি। জামানতের জন্য বুধবার রাস্তার ছবি তুলতে গিয়ে দেখি রাস্তার ইটগুলো তুলে নেওয়া হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘জেলা পরিষদকে জানিয়েছি, এ বিষয়ে এখন তারা ব্যবস্থা নেবে। কারণ আমরা রাস্তা নির্মাণ করেছি, পরিষদকে কাজও বুঝিয়ে দিয়েছি।’

এদিকে, ইট তোলে নেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দীন চৌধুরী বলেন, ‘আশপাশের জমিগুলো থেকে রাস্তাটি উচুঁ হওয়ায় পাশ্ববর্তী মানুষের জমিতে পানি ঢুকে পড়ছে। সমস্যাটি সমাধানের জন্য আমি রাস্তার ইটগুলো উত্তোলন করতে বলেছি, যাতে রাস্তাটি নিচু করে আবার ইটগুলো বিছিয়ে দেওয়া যায়।’

তিনি বলেন, ‘রাস্তাটি নির্মাণের সময় পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ম্রাসা খেয়াং ও ঠিকাদারকে কয়েক বার বলেছি। তারা কেউই আমার কথা শুনেনি। তাই বাধ্য হয়ে নিজেই রাস্তাটি সংস্কারের জন্য ইটগুলো তুলেছি। মাটি কেটে নিচু করে আবার ইট বিছিয়ে দেওয়া হবে।’

এ ব্যাপারে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান জানান, সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে ইঞ্জিনিয়াররা। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে সদর থানায় একটি মামলা করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

শিবচরে ডেঙ্গু জ্বরে গৃহবধূর মৃত্যু

শিবচরে ডেঙ্গু জ্বরে গৃহবধূর মৃত্যু
এডিস মশা, ছবি: সংগৃহীত

মাদারীপুরের শিবচরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সুমি আক্তার (৩০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে শিবচর উপজেলার চারজনসহ মাদারীপুর জেলার মোট আটজন ডেঙ্গু জ্বরে মারা গেলেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ২০ আগস্ট শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন সুমি। অবস্থার অবনতি হওয়ায় শনিবার (২৪ আগস্ট) রাতে তাকে ঢাকা নেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু পথেই তার মৃত্যু হয়। সুমি শিবচর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ঘাট এলাকার স্পিডবোটচালক আনোয়ার ফকিরের স্ত্রী।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শিবচর উপজেলা পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. আব্দুল মোকাদ্দেস বলেন, এখনো হাসপাতালে ২৪ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন।

পরিবর্তন হচ্ছে রাজবাড়ী ও ফরিদপুরের দুই মোড়ের নাম

পরিবর্তন হচ্ছে রাজবাড়ী ও ফরিদপুরের দুই মোড়ের নাম
গোয়ালন্দ মোড় ও ফরিদপুরের রাজবাড়ী রাস্তার মোড় (ডানে), ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

পদ্মা কন্যাখ্যাত রাজবাড়ী ও ফরিদপুর জেলার গুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম দু’টি মোড়ের নাম পরিবর্তনের জন্য সুপারিশ পাঠিয়েছে প্রশাসন। মোড় দু’টির নাম নিয়ে যাত্রী ও যানবাহনের চালকদের মধ্যে নানা সময়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। এজন্য নাম পরিবর্তনের সুপারিশ পাঠানো হয়েছে বলে জানান রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম।

মোড় দু’টি হলো রাজবাড়ী জেলার ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ‘গোয়ালন্দ মোড়’ ও একই সড়কের ফরিদপুর জেলার ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়’। এরই মধ্যে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জেলার উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির সভায় মোড় দু’টির নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

সভায় গোয়ালন্দ মোড়ের নাম ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়’ এবং ফরিদপুরের ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়ের নাম ‘ফরিদপুর রাস্তার মোড়’ রাখার সুপারিশ করা হয়েছে।

নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে রাজবাড়ী সার্কেল নামের একটি ফেসবুক গ্রুপ তাদের পেজে লিখেছে, বিবর্তন বা পরিবর্তনই শুদ্ধতা ও উন্নয়নের মূল বীজ। আজকের পরিবর্তন বর্তমানের কাছে অসামঞ্জস্য লাগলেও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য হবে সহজ ও সুন্দর। দূর হবে বিভ্রান্তি।

এ ব্যাপারে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক দিলসাদ বেগম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, মোড় দু’টির নাম নিয়ে যাত্রী ও যানবাহনের চালকদের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয়। বিশেষ করে দূরের যাত্রীদের ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে। আমাদেরও আগে বিষয়টি সড়ক বিভাগের সচিবের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। তারই নির্দেশনায় সড়ক বিভাগের পক্ষ থেকে রাজবাড়ী ও ফরিদপুরে আসা যাত্রীদের বিভ্রান্তি দূর করতে গোয়ালন্দ মোড়কে ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়’ এবং ফরিদপুরের ‘রাজবাড়ী রাস্তার মোড়কে’ ফরিদপুর রাস্তার মোড়’ করার সুপারিশ করা হয়েছে।

তবে ফরিদপুর জেলা প্রশাসক অতুল সরকার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান যে তিনি মোড় দু’টির নাম পরিবর্তনের বিষয়ে এখনও কিছু জানেন না।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র