লাউ ফুলে লুকিয়ে রয়েছে কৃষকের স্বপ্ন

তোফায়েল হোসেন জাকির, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, গাইবান্ধা
লাউ গাছে হলুদ রংয়ের ফুল ধরেছে, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

লাউ গাছে হলুদ রংয়ের ফুল ধরেছে, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চলছে শরৎ, আসছে শীত। কুয়াশা আচ্ছন্ন এই শীত বাজারে আসবে বাহারি জাতের সবজি। এর মধ্যে পাওয়া যাবে জনপ্রিয় সবজি লাউ। শীত মৌসুমে ক্রেতাদের চাহিদা মেটাতে ইতোমধ্যে গাইবান্ধা জেলার বিভিন্ন এলাকায় লাউ চাষ করা হয়েছে। সম্প্রতি সেই লাউগাছে দেখা দিয়েছে হলুদ রংয়ের ফুল। এ ফুলেই লুকিয়ে রয়েছে কৃষকদের কাঙ্ক্ষিত স্বপ্ন।

ধাপেরহাট এলাকার কৃষক শাহাদাত হোসেন জানান, শীতের সময় লাউ বিক্রির প্রস্তুতি নিয়ে এবার ৩০ শতক জমিতে লাউ চাষ করা হয়েছে। কিছুদিন আগে মাটির নিচে বপন করা হয়েছিল লাউ বীজ। এরপর মাটি ফেটে বের হয়েছে লাউগাছ।

চিকন-পাতলা খুঁটি বেয়ে লাউ গাছগুলো ধীরে ধীরে মাচায় (জাঙ্গলায়) উঠেছে। এসব গাছে দেখা দিয়েছে হলুদ রংয়ের ফুল। মাস খানেক পর ওই ফুল থেকেই লাউ হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘প্রতি বিঘা জমিতে লাউ চাষে খরচ হয় ১০-১২ হাজার টাকা। সম্ভাব্য দাম পাওয়া গেলে প্রায় ৩৫-৪০ হাজার টাকার লাউ বিক্রি করা সম্ভব। শুধু লাউ নয়, এর ডগা ও পাতাগুলোও বাজারে বিক্রি করা হয়।’

আরেক কৃষক এন্তাজ আলী বলেন, ‘এখনকার বাজারে সারা বছরই লাউ পাওয়া যায়। তবে সেইসব লাউ সুস্বাদু না হওয়ায় ত্রেতা চাহিদা অনেক কম। শীতকালীন লাউ সবার কাছেই প্রিয় খাবার। এই লাউয়ের ক্রেতা চাহিদা অনেক অনেক বেশি। তাই শীত মৌসুমে লাউ চাষ করে বেশ লাভবান হওয়া যায়।’

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা খাজানুর রহমান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘শীতকালীন সবজি হিসেবে কৃষকরা ইতোমধ্যে লাউ চাষ শুরু করেছে। মাসখানেক পরই বাজারে পাওয়া যাবে লাউ। মানুষের প্রিয় সবজি লাউ। এই সবজি সহজে হজম হয় এবং কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। ফলে এর চাহিদা অনেক বেশি।'

আপনার মতামত লিখুন :