নরসিংদীতে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ শীর্ষ সন্ত্রাসী মিঠুন নিহত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, নরসিংদী
আওলাদ হোসেন মিঠুন

আওলাদ হোসেন মিঠুন

  • Font increase
  • Font Decrease

নরসিংদী জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) সদস্যদের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ আওলাদ হোসেন মিঠুন (৩৫) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন৷ তিনি পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী।

শুক্রবার (৩০ আগস্ট) দিনগত রাতে নরসিংদীর মাধবদী শহরের টাটাপাড়া মহল্লার একটি বালুর মাঠে এ ‘বন্দুকযুদ্ধে’র ঘটনা ঘটে৷

নিহত মিঠুন টাটাপাড়ার জাকির হোসেনের ছেলে।

জেলা ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবদুল গাফফার জানান, চিহ্নিত মাদক ও অস্ত্র ব্যবসায়ী মিঠুন ও তার সহযোগী সোহেলকে শুক্রবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের কাঞ্চন এলাকা থেকে আটক করা হয়৷ পরে তাদের দেওয়া তথ্য মতে রাতে মিঠুনকে নিয়ে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারের জন্য টাটাপাড়ার একটি মাঠে অভিযানে যায় ডিবি পুলিশ। এ সময় সেখানে আগে থেকে ওত পেতে থাকা মিঠুনের সহযোগীরা ডিবি পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে ডিবি পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। ‘বন্দুকযুদ্ধে’র একপর্যায়ে গুলিবিদ্ধ হন মিঠুন। এ সময় মিঠুনের সহযোগী হৃদয় (২২), মাইনুল (২৪) ও মেহেদি হাসানকে (২৫) আটক করা গেলেও কয়েকজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হন। ঘটনাস্থল থেকে দু’টি বিদেশি পিস্তল, একটি পাইপগান ও আট রাউন্ড গুলি জব্দ করা হয়েছে।

https
মিঠুনের সহযোগীরা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

 

তিনি আরো জানান, পরে ডিবি পুলিশ গুলিবিদ্ধ মিঠুনকে উদ্ধার করে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় ডিবি পুলিশের দুই সদস্য আহত হয়েছেন।

মিঠুনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় হত্যা, অস্ত্র, বিস্ফোরক ও মাদক সংক্রান্ত ১২টিরও বেশি মামলা রয়েছে বলে জানান তিনি।

 

আপনার মতামত লিখুন :