‘৩ শিশুর মৃত্যু অক্সিজেনের অভাবে হতে পারে’

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, চাঁদপুর
ইমামের কক্ষে মারা যাওয়া তিন শিশু

ইমামের কক্ষে মারা যাওয়া তিন শিশু

  • Font increase
  • Font Decrease

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলায় মসজিদের ইমামের কক্ষে মারা যাওয়া তিন শিশুর মৃত্যু অক্সিজেনের অভাবে হয়ে থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন ময়না তদন্তকারী চিকিৎসক।

চাঁদপুর সদর হাসপাতালের চিকিৎসক সুজাউদ্দৌলা রুবেল বলেন, ইমামের ওই কক্ষে ইউপিএসের ব্যাটারির কারণে বা অন্য কোনো কারণে অক্সিজেনের অভাব দেখা দেওয়ায় শিশুদের মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

শুক্রবার (৩০ আগস্ট) চাঁদপুরের মতলব উপজেলায় পূর্ব কলাদিয়া জামে মসজিদের ইমাম জামাল উদ্দিনের কক্ষে তার নিজ সন্তানসহ তিন শিশুর মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন: নিজ সন্তানসহ ইমামের কক্ষে তিন শিশুর মৃত্যু

মসজিদের ফ্যান, লাইট, মাইক চালানোর জন্য ব্যবহৃত ইউপিএস ছিল সেই কক্ষে। ইমামের ছেলেসহ তিন শিশু কক্ষটিতে ঢুকে ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়। তাদের সাড়াশব্দ না পেয়ে পরে দরজা ভাঙলে তিন শিশুকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/31/1567253310163.jpg

সিআইডির অপরাধ তদন্ত ও ফরেনসিক টিম প্রয়োজনীয় আলামত সংগ্রহ করেছে। তারা ঢাকায় গিয়ে সেগুলো পরীক্ষা করে প্রতিবেদন দেবে। সেই সঙ্গে ময়না তদন্ত প্রতিবেদন আসার পর সংশ্লিষ্ট সব বিষয় পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্তে আসা যাবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার জিহাদুল কবির সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, যে কক্ষে ইমাম ও তার শিশুপুত্র থাকতো সেই কক্ষটি আকারে খুবই ছোট। ওই কক্ষে মসজিদের আইপিএসের ব্যাটারির এসিড পানিও রাখা হতো। ফলে কক্ষটি কেমিকেলের তীব্র গন্ধময় হয়ে ওঠে। ধারণা করা হচ্ছে ৩ শিশু ওই কক্ষে দরজা বন্ধ অবস্থায় অক্সিজেনের অভাবে মারা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: বিষাক্ত কী ছিল ইমামের কক্ষে?

শনিবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে পুলিশ সুপারের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন এসপি জিহাদুল কবির। সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান, চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মো. নাসিম উদ্দিন, ডিবি পুলিশের ওসি মামুন, গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :