Barta24

শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬

English

নিজেকে বুড়ো বানাতে গিয়ে খোয়াতে পারেন ফেসবুক আইডি

নিজেকে বুড়ো বানাতে গিয়ে খোয়াতে পারেন ফেসবুক আইডি
ফেসঅ্যাপের ইন্টারফেস
তানিম কায়সার
কন্ট্রিবিউটিং করেসপন্ডেন্ট


  • Font increase
  • Font Decrease

কয়েকদিন থেকেই অ্যাপ্স ব্যবহার করে বুড়ো বয়সে নিজেকে কেমন দেখাবে তা বের করার ট্রেন্ড চলছে। আর সেসব ছবি ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ব্যাপক সারা ফেলা অ্যাপ্সটি অল্প সময়ের মধ্যেই ব্যবহারকারীদের নজরে চলে এসেছে। আসবে না-ই বা কেন? কে না চায় নিজের ভবিষ্যৎ আগাম দেখতে?

কিন্তু নিজের বিনোদনের জন্য যে কাজ করে যাচ্ছেন তা কি আসলেই আপনার জন্য নিরাপদ? একবার কি ভেবে দেখেছেন এর মাধ্যমে নিজেই নিজের তথ্য অন্যের হাতে তুলে দিচ্ছেন!

মনে হতে পারে একটি অ্যাপ্স কিভাবে তথ্য কিভাবে হাতিয়ে নেবে? একটু খেয়াল করলেই এর জবাব খুঁজে পাবেন। এসব অ্যাপ্স ব্যবহার করতে হলে প্রায় সময় বিভিন্ন ব্যক্তিগত জিনিসের একসেস দিতে হয়। ছবি নিয়ে কাজ করতে গিয়ে অ্যাপ্সগুলো আপনার গ্যালারির একসেস চায়। আর এভাবেই এসব অ্যাপ্স আপনার গ্যালারিতে কী কী আছে সব জেনে নিতে পারে।

এর আগেও বিভিন্ন সময় বিভিন্ন অ্যাপ্স ভাইরাল হয়েছে। যেমন নিজেকে দেখতে কোন নায়ক বা নায়িকার মতো দেখতে কিংবা ছেলে না হয়ে মেয়ে হলে কেমন দেখাত ইত্যাদি। এসব নিয়েও একসময় কম মাতামাতি হয়নি। কিন্তু লক্ষ করলে দেখা যায়, যখনই এমন কোনো অ্যাপ্স ভাইরাল হয় তার পরপরই অনেকের আইডি হারিয়ে যেতে থাকে। সাম্প্রতিক সময়ে অনেক আইডি ডিজেবল কিংবা ফেসবুক কর্তৃক সাময়িক নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হয়েছে।

তাই বলে কি এসব অ্যাপ্স ব্যবহার করব না? হ্যাঁ, করবেন। মানুষের জীবনে বিনোদনের দরকার আছে। তবে বিনোদন যেন দুশ্চিন্তার কারণ না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকা জরুরি।

কিভাবে নিজেকে নিরাপদ রাখা যায়?

এসব অ্যাপ্সের কবল থেকে নিজেকে নিরাপদ রাখতে ব্যবহার শেষে অ্যাপ্সটি আনইন্সটল করে দিতে পারেন। অন্তত ফোর্স স্টপ করে রাখতে পারেন যেন সেটি আপনার অগোচরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার কোনো তথ্য হাতিয়ে নিতে না পারে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/16/1563263095036.jpg
সেটিংস এন্ড প্রাইভেসি সেকশনে থাকা অ্যাপ্স অপশন থেকে নির্দিষ্ট অ্যাপস রিমুভ করা যায় ◢

 

আর যেসব অ্যাপ্সের ক্ষেত্রে ফেসবুকের কানেকশন দরকার হয় সেসব ব্যবহারের পরে ফেসবুকের সেটিংস এন্ড প্রাইভেসি সেকশনে থাকা অ্যাপ্স অপশন থেকে নির্দিষ্ট অ্যাপ্সটি রিমুভ করে দিতে পারেন। এ সাবধানতা অবলম্বনের ফলে অ্যাপ্সটি পরবর্তী সময়ে আপনার কোনো তথ্য হাতিয়ে নিতে পারবে না।

নিয়ম মেনে সচেতনতার সাথে প্রযুক্তির ব্যবহার করলে এটি আপনার জন্য অকল্যাণ নয়, বরং কল্যাণই বয়ে আনবে।

আপনার মতামত লিখুন :

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ফেসবুকের গ্রুপ চ্যাট সেবা

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ফেসবুকের গ্রুপ চ্যাট সেবা
ছবি: সংগৃহীত

বন্ধুদের সাথে ঘুরতে যাবার পরিকল্পনা বা আড্ডা, কিংবা অফিসে সহকর্মীদের মাঝে যোগাযোগ সহজ করতে গ্রুপ চ্যাটের জনপ্রিয়তা ছিল তুঙ্গে। এখন সেই সেবাকে ব্যক্তিগত তথ্যের নিরাপত্তার খাতিরে বন্ধ করতে যাচ্ছে ফেসবুক।

শনিবার (১৭ আগস্ট) কমিউনিটি লিডারশিপ সার্কেল ফ্রম ফেসবুক-এ প্রকাশিত এক পোস্টে উল্লেখ করা হয়, আগামী ২২ আগস্ট থেকে বন্ধ করে দেয়া হবে গ্রুপ ফিচার। এর ফলে তখন থেকে শুধু গ্রুপের পূর্বের চ্যাটগুলো পড়া যাবে।

পোস্টে আরও জানানো হয়, বর্তমানে ফেসবুকের যে কাঠামো তৈরি করা হয়েছে, তার সাথে গ্রুপ চ্যাট ফিচারটি যায় না বলে ফেসবুক এই সুবিধাটি বন্ধ করে দিতে যাচ্ছে। এছাড়াও ফেসবুক তার ব্যবহারকারীদের তথ্যের সুরক্ষা দিতেও বদ্ধ পরিকর।

তবে ফ্রেন্ডলিস্টে না থাকা বন্ধুদের সাথে গ্রুপ চ্যাট করা না গেলেও, ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা বন্ধুদের সাথে গ্রুপ চ্যাট করা যাবে। তবে সেবার ধরণটি কী হতে পারে তা নিয়ে এখনই মুখ খুলছে না ফেসবুক।

কৃষক ইউটিউবারের আয় ৪ হাজার মার্কিন ডলার!

কৃষক ইউটিউবারের আয় ৪ হাজার মার্কিন ডলার!
দার্শান সিং, ছবি: সংগৃহীত

ভারতের দার্শান সিং নামের একজন ইউটিউবার তার চ্যানেলে কৃষি কাজের প্রয়োজনীয় তথ্য এবং বিভিন্ন টিপস দিয়ে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে।

তার ভিডিওর মূল বিষয় হচ্ছে কৃষি সংক্রান্ত ভিডিও তৈরি করা। যদিও তিনি আদতে নন তবে অনেকেই তাকে এখন কৃষক ইউটিউবার বলেন। তার ভিডিওতে কৃষি কাজে কৃষকদের জন্য প্রয়োজনীয় বিষয়গুলোকে কেন্দ্র করে ভিডিও বানান।

দার্শান সিং বলেন, ‘ইউটিউব থেকে ব্যাপক অনেক সাড়া পেয়েছি। এখন যেখানেই যাই সবাই আমাকে কিভাবে যেন চিনে ফেলে। প্রায় সব জায়গাতেই মানুষের সঙ্গে দেখা হয় পরিচিত হই। নতুন নতুন মানুষের সঙ্গে পরিচিত হতে ভালোই লাগে।'

তিনি জানান, তার মূল লক্ষ্যই হচ্ছে এমন সব প্রয়োজনীয় তথ্য খুঁজে বের করতে যা কৃষকরা আগে জানতেন না। সেসব তথ্যকে কৃষকদের জন্য সহজভাবে তাদের কাছে তুলে ধরা।

তার ভিডিওর মধ্যে রয়েছে- কিভাবে একটি দুগ্ধ খামারের কার্যক্রম শুরু করবেন, কিভাবে জমিতে বীজ বপন করবেন, কিভাবে গবাদি পশুদের পরিচর্যা করেবন ইত্যাদি।
এছাড়া তিনি কৃষি কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি নিয়েও রিভিউ করেন। কোন যন্ত্রটি কিভাবে ব্যবহৃত হবে, কি কি সুবিধা-অসুবিধা আছে সেগুলো কৃষকদের জানার স্বার্থে ভিডিওর মাধ্যমে তুলে ধরেন।

দার্শান জানান, শুরুর দিকে কোনো কোম্পানি তাকে পণ্য রিভিউর জন্য সুযোগ দিত না। কিন্তু যখন তার ভিডিওতে লাখ লাখ ভিউ হতে শুরু করে তখন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে তাদের পণ্য রিভিউ করার জন্য।

গুরতান সিং নামের একজন কৃষক জানান, তিনি ইউটিউবে দার্শানের গবাদি পশু পালন বিষয়ের ভিডিও গুলো দেখে উপকৃত হয়েছেন। যা তাকে ছোট গবাদি পশু লালন-পালন সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্য সম্পর্কে জানতে সাহায্য করেছে।

কনটেন্ট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মানুষ যখন আমাকে জিজ্ঞেস করে কিভাবে ভিডিওতে বেশি ভিউ পাওয়া যাবে, কিভাবে সাবস্ক্রাইবার বাড়াবো ইত্যাদি। কিন্তু আমি তাদের উদ্দেশে বলব, যদি আপনার কনটেন্ট ভাল হয় তাহলে মানুষ অবশ্যই দেখবে।’

দার্শানের ইউটিউবের চ্যানেলে সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা ২০ লাখ। আর ইউটিউব চ্যানেল থেকে মাসে তিনি ৪০০০ মার্কিন ডলার আয় করেন। এখন তিনি একজন ফুল টাইম ইউটিউবার।

আরও পড়ুন: খাবার খেয়েই মাসে যার আয় কোটি টাকা

সূত্র: বিবিসি

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র