চাঁদপুর-৫: কার ভাগ্যে রয়েছে নৌকা?

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
চাঁদপুর-৫। ছবি: সংগৃহীত

চাঁদপুর-৫। ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চাঁদপুর-৫ (হাজীগঞ্জ-শাহরাস্তি) নির্বাচনী এলাকায় ছাড় দিতে নারাজ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ। এ আসনে এক ডজন প্রার্থী নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছে আওয়ামী লীগ।

এদিকে আওয়ামী লীগ নেতা বর্তমান সাংসদ মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তমের এবারই শেষ নির্বাচন।

অন্যদিকে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সৈয়দ বাহাদুর শাহকে নিবন্ধন রক্ষায় বাধ্যতামূলক নির্বাচন করতে হচ্ছে। মহাজোটের অংশীদারিত্ব নিয়ে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশও ছাড় দিতে নারাজ। ভোটারদের মাঝে শোরগোল হচ্ছে কার ভাগ্যে জুটবে নৌকা? মেজর আব. রফিকুল ইসলাম নাকি সৈয়দ বাহাদুর শাহ!

ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সৈয়দ বাহাদুর শাহ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মহাজোটের অংশ হিসেবে আমার দলটি নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করবে মর্মে ইসির কাছে চিঠি পাঠিয়েছেন। ইতোমধ্যে মহাজোটের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ২৪/ ২৫ নভেম্বর নৌকা প্রতীকে নির্বাচন কমিশন থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করব ইনশাল্লাহ।’

তিনি বলেন, ‘মহাজোটের অংশ হিসেবে নৌকা প্রতীকেই নির্বাচন করব। এবার আমার দল নির্বাচনে না গেলে নিবন্ধন বাতিল বলে গণ্য হবে। অবশেষে যদি মহাজোট থেকে মনোনয়ন না পাই, তাহলে চেয়ার প্রতীক থেকে পৃথকভাবে নির্বাচন করতে হবে।’

এই আসনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন ১৩ জন। তারা হলেন- সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও সাংসদ মেজর রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম, সংরক্ষিত নারী আসনের এমপি নূরজাহান বেগম মুক্তা, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য অধ্যাপক একেএম ফজলুল হক, পাওয়ার সেলের ডিজি ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসাইন, ইঞ্জিনিয়ার সফিকুর রহমান, ব্রিগেডিয়ার অব. সালাহউদ্দিন, কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের সভাপতি মো. সফিকুল আলম ফিরোজ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সহ-সম্পাদক ড. এসএম মোস্তফা কামাল, উপজলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুর রশিদ মজুমদার, কেন্দ্রীয় যুব লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাসরিন জাহান শেফালি, হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হেলাল উদ্দিন মিয়াজী, সাবেক এমপি মরহুম আ. রবের ছেলে খালেদুর রব মিঠু ও আওয়ামী লীগ সমর্থক আলী আহসান মাহমুদ।

এদের মধ্যে আলোচনায় রয়েছেন মাত্র তিনজন। তারা হলেন- সাংসদ মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম, পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন ও জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ইঞ্জিনিয়ার সফিকুর রহমান।

তিনবারের সাংসদ মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম। তিনি মুক্তিযুদ্ধের ১নং সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, তত্ত্ববধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা। দীর্ঘদিন ধরে তিনি স্থানীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে উঠান বৈঠক করে উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন।

স্থানীয় নেতা-কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তমই আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পাচ্ছেন। ইতোমধ্যে তিনি পোস্টার ও লিফলেট প্রকাশনার কাজও শেষ করেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী মো. মাঈনুদ্দিন জানান, মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তম এই আসনে নৌকার মনোনয়ন পাবেন সেটা নিশ্চিত। নেতা-কর্মীদের কোনো দুশ্চিন্তা করার কারণ নেই। আওয়ামী লীগ থেকে নৌকা প্রতীকে মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীরউত্তমকে বিজয় করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

চাঁদপুর জেলা নির্বাচন কার্যালয়ের সূত্রমতে, চাঁদপুর-৫ আসনে হাজীগঞ্জ উপজেলায় ২ লাখ ৪২ হাজার ৭৯১ জন ভোটার এবং শাহরাস্তি উপজেলায় ১ লাখ ৭৪ হাজার ৯৪৯ জন ভোটার রয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :