প্রার্থিতা ফিরে পেলেন ১৩ স্বতন্ত্র

ছবি: বার্তা২৪.কম

আসন্ন সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণের জন্য মনোনয়নয়পত্র বাতিলে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করে প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন ১৩ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী।

বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) আপিল শুনানির প্রথম দিনের কার্যক্রম পর্যালোচনা করে এ তথ্য পাওয়া গেছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নূরুল হুদার নেতৃত্বে পূর্ণাঙ্গ কমিশন প্রথম দিনের মত আপিল শুনানি করেন। এতে আপিলের আবেদনকারীদের মধ্যে ১ থেকে ১৬০ ক্রমিক পর্যন্ত আবেদন নিষ্পত্তি হয়।

স্বতন্ত্র যেসব প্রার্থীর আবেদন মঞ্জুর হয়েছে তারা হলেন- ময়মনসিংহ-২ আসনের মো. আবু বকর সিদ্দিক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ মোহাম্মদ মোখলেছুর রহমান, লক্ষ্মীপুর-১ মাহবুব আলম, বরিশাল-২ মোয়াজ্জেম হোসেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আশরাফ উদ্দিন, রংপুর-১ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান, গাইবান্ধা-৩ মোহাম্মদ আবু জাফর, কুড়িগ্রাম-৪ মোহাম্মদ ইউনুস আলী, বরিশাল-২ মোহাম্মদ আনিচুজ্জামান, সিলেট-৫ ফয়জুল মুনির চৌধুরী, গাইবান্ধা-৪ আব্দুর রহিম সরকার, চট্টগ্রাম-১৬ মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম ও বগুড়া-৫ আসনের মোহাম্মদ আব্দুর রউফ মন্ডল জন।

আর স্বতন্ত্র যাদের আবেদন নামঞ্জুর হয়েছে তারা হলেন- চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের নবাব মো. শামছুল হুদা, দিনাজপুর-২ মোকাররম হোসেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ মো. তৈয়ব আলী, দিনাজপুর-১ মোহাম্মদ পারভেজ হোসেন, ফেনী-১ মিজানুর রহমান, কিশোরগঞ্জ-৩ ড. মিজানুল হক, রাঙ্গামাটি অমর কুমার দে।

বগুড়া-৪ আসনের মোহাম্মদ আশরাফুল হোসেন আলম (হিরো আলম), সাতক্ষীরা-১ এসএম মুজিবুর রহমান, ব্রাহ্মবাড়িয়া-৩ মো. বশির উল্লাহ, নওগাঁ-৪ আফজাল হোসেন, লক্ষ্মীপুর-২ আবুল ফয়েজ ভুঁইয়া, কুমিল্লা-২ মো. সারওয়ার হোসেন, কুমিল্লা-৪ মাহবুবুল আলম, নোয়াখালী-৩ এইচ আর এম সাইফুল ইসলাম, লালমনিরহাট-১ আবু হেনা মো. এরশাদ হোসেন, নীলফামারী-৪ আখতার হোসেন বাদল।

নীলফামারী-৪ আসনের মিনহাজুল ইসলাম, কুড়িগ্রাম-৪ আবুল হাশেম, কুড়িগ্রাম-১ মোহাম্মদ ওসমান গণি, ফেনী-৩ হাসান আহমদ, ময়মনসিংহ-১০ মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ, বগুড়া-২ মোহাম্মদ আবুল কাসেম, বাহ্মণবাড়িয়া-৫ নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া, নড়াইল-১ মোহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেন ও সাতক্ষীরা-১ আসনের নুরুল ইসলাম।

অন্যান্য দলের যেসব প্রার্থী প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন তাদের মধ্যে রয়েছেন: জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির সাতক্ষীরা-২ আসনের মো. আফসার আলী, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির পটুয়াখালী-১ সুমন সন্যামত, জাতীয় পার্টির মাদারীপুর-১ জহিরুল ইসলাম মিন্টু, জাতীয় পার্টির গাজীপুর-২ মো. মাহবুব আলম, একই আসনে মো. জয়নাল আবেদীন।

জাতীয় পার্টির ব্রাহ্মবাড়িয়া-৩ আসনের জেসমিন নুর বেবী, রংপুর-৪ মোস্তফা সেলিম, বাংলাদেশ ইসলামীক ফ্রন্টের হাবিগঞ্জ-১ জুবায়ের আহমেদ, জাতীয় পার্টি ব্রাহ্মবাড়িয়া-৩ আব্দুল্লাহ আল হেলাল, বাংলাদেশ ইসলামিক ফ্রন্টের হাবিগঞ্জ-৪ মওলানা মোহাম্মদ ছোলাইমান খান রাব্বানী, নাটোর-৪ জাতীয় পার্টির মোহাম্মদ আলাউদ্দীন মৃধা, চাঁদপুর-৫ এলডিপি’র মোহাম্মদ নেয়ামুল বশির, কুড়িগ্রাম-৪ জাকের পার্টির শাহ আলম, জিনাইদহ-৩ জাতীয় পার্টির কামরুজ্জামান স্বাধীন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৩ ইসলামীক আন্দোলন বাংলাদেশে’র সৈয়স আনোর আহাম্মদ লিটন।

ব্রাহ্মবাড়িয়া-৫ আসনে জাতীয় পার্টির মামুনুর রশীদ, ঢাকা-১৪ জাকের পার্টির জাকির হোসেন, ময়মনসিংহ-৮ এলডিপির এমএ বাশার, কুড়িগ্রাম-৪ গণফোরামের মাহফুজার রহমান, কুড়িগ্রাম-৬ জাকের পার্টির মুহাম্মদ ফয়সাল বিন শালিক, চট্টগ্রাম-১০ জাসদের আনিরসুর রহমান, কুমিল্লা-১১ জাকের পার্টির তাজুল ইসলাম বাবুল।

কুমিল্লা-৫ আসনে ইসলামী ঐক্যজোটের মো. শাহ আলম, যশোর-৬ জাকের পার্টির সাইদুজ্জামান, নড়াইল-২ জেএসডি’র ফকির শওকত আলী, সিরাজগঞ্জ-৪ ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশে’র আব্দুর রহমান, সিরাজগঞ্জ-৬ বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মো. হাবিবুর রাহমান, বগুড়া-২ বিএমএলের শফিকুল ইসলাম।

জাতীয় পার্টির মাদারীপুর-৩ আসনের মুহাম্মদ আব্দুল খালেক, ঠাকুরগাঁও-৩ বিকল্প ধারা বাংলাদেশের এসএম খলিলুর রহমান, নেত্রকোণা-১ বাংলাদেশ মুসলিম লীগের মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম, জাপার ময়মনসিং-২ মোহাম্মদ এমদাদুদল হক, খুলনা-২ জাপার এসএম এরশাদুজ্জামান।

নির্বাচন এর আরও খবর

//election count down