ইসিতে দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে আপিল শুনানি

ইসিতে দ্বিতীয় দিনের মতো চলছে আপিল শুনানি। ছবি: বার্তা২৪.কম

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে মনোনয়নপত্র বাছাই শেষ হয়েছে ২ ডিসেম্বর। সারা দেশ থেকে এই বাছাই প্রক্রিয়ায় বাদ পড়া প্রার্থীদের মধ্যে ৫৪৩ জন্য তাদের প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে আপিল করেছেন।

আর এ কারণে প্রার্থীদের জন্য নির্বাচন কমিশন ৩ দিন বরাদ্দ করে আপিল শুনানির জন্য। আজ শুক্রবার (৭ ডিসেম্বর) দ্বিতীয় দিনের মতো শুনানি শুরু হয়েছে। ইসির অস্থায়ী এজলাসে পর্যায়ক্রমে আপিল নং ১৬১ থেকে ৩১০ পর্যন্ত শুনানি করা হবে।

সকাল ১০টা ৪ মিনিটে নির্বাচন কমিশনের ১০ তলায় সিইসির নেতৃত্বে বাকি আরও ৪ কমিশনারের অধীনে এ শুনানি কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

অন্যদিকে শুনানি শুরু হওয়ার আগে সকাল ৮টা থেকে দেখা গেছে, ১৬১ থেকে ক্রমিক নং অনুসারে আপিলকারীদের ইসির অস্থায়ী এজলাসে প্রবেশ করানো হচ্ছে। আর যাদের এখন এজলাসে ডাকা হচ্ছে না, তারা কমিশন অফিসের বাইরে অবস্থিত বিভিন্ন কাউন্টার থেকে নিজেদের শুনানির সময় জেনে নিচ্ছেন।

এ সময় আপিলকারীর সঙ্গে তাদের নিজ নিজ আইনজীবীদের তৎপরতাও ছিল চোখে পরার মতো।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, সকাল ১০টা থেকে শুরু হওয়া এই আপিল শুনানি চলবে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। তবে এ সময়ের মধ্যে ১৬১-৩১০ পর্যন্ত ১৫০ জনের আপিল শুনানি যদি শেষ না হয় তাহলে ইসির অস্থায়ী এজলাসের কার্যক্রম চলমান থাকবে বলেও জানা গেছে।

এদিকে ইসি সূত্রে আরও জানা গেছে, প্রার্থিতা ফিরে পেতে নির্বাচন কমিশনে তিনদিনে আপিল করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াসহ ৫৪৩ জন। প্রথম দিনে ৮৪, দ্বিতীয় দিন ২৩৭ ও তৃতীয় দিনে ২২২টি আবেদন ইসিতে করা হয়। ৬ থেকে ৮ ডিসেম্বব প্রার্থীদের আপিল গ্রহণের ওপর শুনানি চলবে। নির্বাচন ভবনের লিফটের ১০ তলায় এ জন্য এজলাস তৈরি করা হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ অন্যান্য কমিশনাররা সেখানে উপস্থিত থেকে আপিল শুনানি গ্রহণ করবেন।

আরও জানা যায়, ৬ তারিখ ১ থেকে ১৬০ পর্যন্ত ক্রমিক নম্বরের আপিল আবেদনের শুনানি হয়েছে। ৭ ডিসেম্বর ১৬১ থেকে ৩১০ পর্যন্ত এবং ৮ ডিসেম্বর ৩১১ ক্রমিক নম্বর থেকে ৫৪৩ পর্যন্ত আবেদনের আপিল শুনানি গ্রহণ করবে কমিশন।

উল্লেখ, গতকাল বৃহস্পতিবার (৬ ডিসেম্বর) প্রথম দিনে ক্রমিক নং ১-১৬০ জনের আপিল শুনানি শেষ হয়। এই শুনানিতে ৮১ জনের আপিল মঞ্জুর, ৭৭ জনের বাতিল ও ২ জনের আপিল স্থগিত রাখে ইসির অস্থায়ী এজলাস। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ১ জন, বিএনপির ৩৯ জন ও ১৩ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী তাদের বাতিল হওয়া মনোনয়ন ফিরে পান এবং আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার জন্য যোগ্যতা অর্জন করেন।

নির্বাচন এর আরও খবর

//election count down //sticky sidebar