'মৃত-প্রবাসীদের বাদ দিলে পুনঃভোটের দরকার হবে না'

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি প্রার্থী আবদুস সাত্তার ভূঞা, ছবি: বার্তা২৪

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, বার্তা২৪.কম

আগামী ৯ জানুয়ারি একাদশ সংসদ নির্বাচনের ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের স্থগিত হওয়া তিনটি কেন্দ্রের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। স্থগিত হওয়া তিন কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা থেকে মৃত ও প্রবাসীদের বাদ দিলে প্রতিপক্ষ স্বতন্ত্র প্রার্থী থেকে ভোটে অনেক বেশি এগিয়ে থাকবেন বলে মন্তব্য করেছেন এ আসনের ধানের শীষ প্রার্থী।

তবে নির্বাচন কমিশন তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নিলে ওই তিন কেন্দ্রে পুনঃভোটের প্রয়োজন হবে না বলে জানান এ আসনের বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আবদুস সাত্তার ভূঞা।

শনিবার (৫ জানুয়ারি) দুপুরে সাড়ে ১২টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরশহরের সবুজবাগ এলাকায় নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করে এ অভিযোগ করেন সাত্তার।

ধানের শীষের এ প্রার্থী বলেন, 'আমার ভোটারদের স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে কতিপয় দুষ্কৃতকারী লোকজন বাড়ি-বাড়ি গিয়ে হুমকি ও ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে বলছে যে, ৯ তারিখের পুনঃনির্বাচনের দিন ভোট কেন্দ্রে যেন আমার দলীয় এজেন্ট কিংবা আমাকে ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকে নতুবা জানমালের ক্ষতি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করবে। যার জন্য আমিসহ আমার দলীয় লোকজন চরম উৎকণ্ঠায় রয়েছে।'

সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি হাফিজুর রহমান মোল্লা কচি, সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক, সরাইল উপজেলা বিএনপির সভাপতি আবদুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেনসহ জেলা ও উপজেলার নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ (সরাইল ও আশুগঞ্জ) আসনের তিনটি কেন্দ্রে অনিয়ম ও গোলযোগের কারণে ভোট গ্রহণ স্থগিত করা হয়। স্থগিত হওয়া ওই তিন কেন্দ্র হলো- যাত্রাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সোহাগপুর (দক্ষিণ) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।

এ তিন কেন্দ্রের মোট ভোটার সংখ্যা ১০ হাজার ৫৭৪। আর সাত্তার ১০ হাজার ১৫৯ ভোটে এগিয়ে আছেন। এই ১০ হাজার ৫৭৪ ভোটারের মধ্যে অনেক প্রবাসে রয়েছেন। এছাড়া অনেকের মৃত্যুও হয়েছে।

 

নির্বাচন এর আরও খবর