Alexa

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র হচ্ছেন টিটু

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র হচ্ছেন টিটু

মসিক নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু/ ছবি: সংগৃহীত

ময়মনসিংহ: ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইকরামুল হক টিটুকে সমর্থন জানিয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছেন জতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী জাহাঙ্গীর আহমদ। 
 
মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) বিকালে ময়মনসিংহ নগরীর একটি কমিউনিটি সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে জাহাঙ্গীর আহমদ আনুষ্ঠানিকভাবে টিটুকে সমর্থন দিয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন।

 
এ ঘোষণার মধ্য দিয়ে মসিক নির্বাচনে একক প্রার্থী থাকায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেয়র নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।
 
সংবাদ সম্মেলন শেষে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারাও সেখানে যোগ দেন। পরে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টি কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সুন্দর ও মডেল ময়মনসিংহ গড়ে তোলার ঘোষণা দেন।

এ সময় জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাড. জহিরুল হক খোকা, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন বাবুল, মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি এহতেশামুল আলম, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আমিনুল হক শামীম, জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি অ্যাড. সোহরাব উদ্দিন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কেন প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেন এমন প্রশ্নের জবাবে জাহাঙ্গীর আহমেদ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ইকরামুল হক টিটুকে নৌকার প্রার্থী করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা জানিয়ে ও মহাজোটের স্থানীয় রাজনীতির সহাবস্থানের প্রতি সমর্থন জানিয়ে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিলাম।’

সংবাদ সম্মেলন শেষে এসে যোগ দেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ইকরামুল হক টিটু। এই সময় তার সঙ্গে ছিলেন জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতারা।

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী জাহাঙ্গীর আহমেদ নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর কারণে বিরোধীদলীয় উপনেতা বেগম রওশন এরশাদ ও মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি জাহাঙ্গীর আহমেদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন ইকরামুল হক টিটু।

তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলের উপনেতার ইচ্ছা অনুযায়ী ময়মনসিংহকে একটি মডেল নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে সম্মিলিতভাবে কাজ করে যাবো। এক পরিবারের মতো একে অপরে মিলেমিশে ময়মনসিংহকে সমৃদ্ধ ময়মনসিংহ গড়ার লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, গত ৮ এপ্রিল মেয়র পদে পাঁচ প্রার্থী মনোনয়ন জমা দেন। পরে ১০ এপ্রিল যাছাই বাছাইয়ে দাখিলকৃত ভোটারদের জাল স্বাক্ষর জমা দেয়ায় তিন স্বতন্ত্র প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করেন অঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও মসিকের রিটার্নিং কর্মকর্তা। পরে বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আপিল করেও প্রার্থিতা ফিরে পাননি তারা।

ফলে এখন শুধুই আনুষ্ঠানিকতা বাকি। তফসিল অনুযায়ী আগামী ৫ মে অনুষ্ঠিত হবে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচন।

আপনার মতামত লিখুন :