Alexa

মসিকের প্রতীক্ষিত ভোটে আবহাওয়াই কি প্রতিপক্ষ?

মসিকের প্রতীক্ষিত ভোটে আবহাওয়াই কি প্রতিপক্ষ?

শনিবার দিনভর ময়মনসিংহ নগরীতে থেমে থেমে বৃষ্টি হয়েছে/ ছবি: বার্তা২৪.কম

জমজমাট প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন (মসিক) নির্বাচনে কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থীরা। ভোটারদের দ্বারা পরীক্ষিত হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন রোববারের (৫ মে)। কাঙ্ক্ষিত সেই দিনটির একদিন আগেই ঘূর্ণিঝড় ফণীর ছোবলে বিরূপ আবহাওয়ায় তাদের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ।

উৎসবের দিনটিতে শেষ পর্যন্ত আবহাওয়াই কি তাদের মূল প্রতিপক্ষ হয়ে উঠে কিনা এমন ভাবনাও পেয়ে বসেছে তাদের। ফলে অনবরত প্রার্থনা চলছে, ভোটের সকালটা অন্তত মেঘহীন হোক। এমনটি হলে কেন্দ্রে কেন্দ্রে থাকবে ভোটারের উপস্থিতি।

ভোটের আগের রাতে বার্তা২৪.কম-কে এমনটিই জানিয়েছেন একাধিক কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থী।

রোববার (৫ মে) সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে ভোটগ্রহণ চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এ নির্বাচনকে ঘিরে ইতোমধ্যেই সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে শনিবার (৪ মে) সকাল থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে নির্বাচনী সরঞ্জাম।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/04/1556989396842.gif

ভোটারকে ভোটকেন্দ্রে নেওয়ার দায়িত্ব প্রার্থীর, সর্বশেষ ময়মনসিংহ সফরকালে এমন বাণীই শুনিয়ে গেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা। তাঁর আহ্বানে সাড়া দিয়ে নাওয়া-খাওয়া ভুলে ভোটারদের দ্বারে দ্বারেই ছুটেছেন সাধারণ ও সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর প্রার্থীরা। কিন্তু ভোটের আগের দিন তাদের আকস্মিক প্রতিপক্ষ হয়ে উঠেছে বৈরী আবহাওয়া।

ফণীর আঘাতে উপকূল লণ্ডভণ্ড হলেও ময়মনসিংহ ছিল মুক্ত। কিন্তু বড় দুর্যোগের রেশ বলে কথা! ময়মনসিংহের ওপর দিয়ে ফণী সেখানে আঘাত হানায় শনিবার (৪ মে) দিনমান ময়মনসিংহের আকাশ থেকে অঝোরে বৃষ্টি ঝরেছে। ভোটারদের উদ্ধুদ্ধ করতে প্রার্থীদের সব রকমের পদক্ষেপ বুঝি ম্লান হতে বসেছে প্রকৃতির এই হেয়ালীপনায়।

নগরীর ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী শামছুল হক লিটন বলছিলেন, ‘প্রার্থীরা দ্বারে দ্বারে ছুটেছেন। ভোটাররাও কথা দিয়েছেন ভোটকেন্দ্রে যাওয়ার। কিন্তু প্রকৃতি যেভাবে বাঁধ সেধেছে এমনটি হলে হতাশায় ডুবতে হবে প্রতিটি প্রার্থীদেরই।’ কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ নিয়েই বলছিলেন এই প্রার্থী।

সংরক্ষিত ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী খোদেজা আক্তার বলেন, ‘ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে ভোট দিতে উন্মুখ হয়ে আছেন ভোটাররা। আবহাওয়া সেই উন্মাদনায় চিড় ধরাতে চাইছে। তবে প্রথম ভোট হওয়ায় সব প্রতিকূলতা পায়ে মাড়িয়ে ঠিকই ছুটবেন প্রার্থীরা।’

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটের আগেই মেয়র পেয়েছে ময়মনসিংহ মহানগরবাসী। কোনো প্রতিপক্ষ না থাকায় ময়মনসিংহ পৌরসভার শেষ মেয়র মো: ইকরামুল হক টিটু নির্বাচিত হয়েছেন সিটির প্রথম মেয়র।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/04/1556989425576.gif

প্রথমেই ধারণা করা হয়েছিল, মেয়র পদে ভোট না হওয়ায় প্রচার-প্রচারণা জমবে না। কিন্তু কাউন্সিলর প্রার্থীরা সেই ভুল ভাঙিয়ে দিয়েছেন। জাতীয় নির্বাচনের স্টাইলেই প্রচারপত্র তৈরি করে ভোটারদের দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করেছেন।

নগরীর ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটার মুনতাসির সুমন বলছিলেন, ‘ভোটের দিনটি উৎসবমুখর হবে এমন আশা ছিল। কিন্তু আকস্মিক সুপার সাইক্লোন ফণীর আঘাতে ময়মনসিংহের প্রকৃতি বিষণ্ণ। এমন বিষণ্ণ দিন আমরা চাই না। উচ্ছ্বাস নিয়েই ভোটকেন্দ্রে যেতে চাই।’

এ নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে ৩৩টি সাধারণ ওয়ার্ডে ২৪২ জন এবং সংরক্ষিত ১১ টি ওয়ার্ডে ৭০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ১২৭টি ভোটকেন্দ্রে নারী-পুরুষ মিলিয়ে মোট ভোটার রয়েছেন দুই লাখ ৯৬ হাজার ৯৩৮ জন।

আপনার মতামত লিখুন :