Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

নতুন বৃত্তি ঘোষণা

'পিপলএনটেক'র নিউইয়র্ক ক্যাম্পাস উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

'পিপলএনটেক'র নিউইয়র্ক ক্যাম্পাস উদ্বোধন করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
নিউইয়র্কে পিপলএনটেকের ক্যাম্পাস উদ্বোধনকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, ছবি: সংগৃহীত
সেন্ট্রাল ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

যুক্তরাষ্ট্রে প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ এবং জব প্লেসমেন্টের জন্য শীর্ষ আইটি প্রতিষ্ঠান পিপলএনটেক এর সুপরিসর নিউইয়র্ক ক্যাম্পাসের উদ্বোধন করেছেন বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে মোমেন।

রোববার (৭ এপ্রিল) বেলা ২টার দিকে অ্যাস্টোরিয়ার ৩৬ স্টেশন সংলগ্ন সোশ্যাল সিকিউরিটি অ্যাডমিনেস্ট্রেশন ভবনের তৃতীয় তলায় অবস্থিত এই নতুন ক্যাম্পাস উদ্বোধন করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে মোমেন।

প্রায় ৬ হাজার স্কয়ার ফিটের এই সুসজ্জিত ক্যাম্পাসে এক সাথে ৩ শতাধিক শিক্ষার্থীকে প্রশিক্ষণ দেয়া যাবে বলে জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বকর হানিফ।

এ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন, নিউইয়র্ক কনস্যাল জেনারেল সাদিয়া ফয়জুন্নেসা, পিপলএনটেক প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বকর হানিফ, প্রেসিডেন্ট ফারহানা হানিফ সহ শতাধিক আমন্ত্রিত অতিথি এবং প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

নতুন ক্যাম্পাস উদ্বোধন প্রাক্কালে, প্রবাসী অভিবাসীদের প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ দানের এই প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগকে 'ম্যাজিক' সমপর্যায়ে উল্লেখ করে, এর প্রতিষ্ঠাতা আবু হানিফকে ভূয়সী প্রশংসা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন। ড. মোমেন এর সম্মানার্থে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য নামে আরও ১ লাখ ডোলার স্কলারশিপ এর ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি।

উল্লেখ্য এর আগে গত বছর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের জন্য এক মিলিয়ন ডলার সমমানের স্কলারশিপ প্রদান করা হয়। যার অধীনে ভার্জিনিয়া আর নিউইয়র্ক সহ পিপলএনটেক এর ৮টি ক্যাম্পাসে বর্তমানে ২৯৫ জন শিক্ষার্থী প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন।

পিপলএনটেক এর মূল ক্যাম্পাসটি ভার্জিনিয়ার ফায়ারফ্যাক্সে অবস্থিত। এর আগে নিউইয়র্ক এর স্টাইনওয়ে’র একটি ভবনে নিউইয়র্ক ক্যাম্পাস এর কার্যক্রম চলছিল। এখন শিক্ষার্থীদের চাপে এবং আরও অধিক পরিমাণ শিক্ষার্থীদের এক সাথে প্রশিক্ষণ দানের জন্য এই সুবিশাল ক্যাম্পাস চালু হল, যার আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হলো ৭ এপ্রিল ২০১৯ থেকে।

যুক্তরাষ্ট্রের শিক্ষা অধিদফতরের সাথে নিবন্ধনকৃত একমাত্র বাংলাদেশি উদ্যোগের প্রযুক্তি প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান এরই মধ্যে গত ১৫ বছরে প্রায় ৫৫০০ শিক্ষার্থীকে চাকরির সংস্থান করেছে। যাদের প্রত্যেকেই ৮০ হাজার থেকে ২২০ হাজার ডলার পর্যন্ত আয় করছেন প্রতি বছর। এর বাইরে, বাংলাদেশে গ্রিনরোড আর ধানমণ্ডি ক্যাম্পাসেও প্রশিক্ষণ ক্যাম্পাস রয়েছে, যেখান থেকে ডিগ্রি নিয়ে, মাসে ৫০ হাজার থেকে ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় করছেন মেধাবী পিপলএনটেক শিক্ষার্থীদের অনেকেই।

বিস্তারিত জানতে এবং ড. মোমেন স্কলারশিপ সম্পর্কে জানতে www.piit.us এই ওয়েব সাইটে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

বার্সেলোনা বাংলা স্কুলের শিক্ষা সফর অনুষ্ঠিত

বার্সেলোনা বাংলা স্কুলের শিক্ষা সফর অনুষ্ঠিত
ছবি: সংগৃহীত

স্পেনে বেড়ে ওঠা বাংলাদেশি প্রবাসীদের শিশু-কিশোরদের বাঙালি কৃষ্টি ও সংস্কৃতির ধারণা দেওয়ার লক্ষ্যে প্রতি বছরের ন্যায় এবারও বার্সেলোনা বাংলা স্কুলের শিক্ষা সফর অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Bengali-expat

গত রোববার (২১ জুলাই) বার্সেলোনা শহর থেকে প্রায় ২০০ কিলোমিটার দূরে লিয়েদা (LLEIDA) পর্যটন স্টটে এর আয়োজন করা হয়। বাংলা স্কুল বার্সেলোনার শিক্ষক, অভিভাবক, শিক্ষার্থী এবং স্থানীয় বাংলাদেশি প্রবাসী নেতৃবৃন্দ এতে অংশ নেন।

Bengali-expat

স্কুলের শিক্ষক জাহাঙ্গীর আলম ও জিনাত শফিক দিনব্যাপী এই শিক্ষা সফর পরিচালনা করেন। এতে বিভিন্ন খেলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পুরস্কার বিতরণীর আয়োজন করা হয়। সফর পরিণত হয় স্কুলের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকদের মিলনমেলা।

Bengali-expat

খেলাধুলা ও মধ্যাহ্ন ভোজের পর সফরের দ্বিতীয় পর্বে অনুষ্ঠিত হয় বাংলা স্কুল বার্সেলোনার বার্ষিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ছাত্র/ছাত্রীদের ফলাফল ঘোষণা ও সার্টিফিকেট বিতরণ। স্কুলের সভাপতি আলা উদ্দিন হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন স্কুল পরিচালনা কমিটি সাধারণ সম্পাদক জুয়েল আহমদ ও স্কুলশিক্ষিকা জিনাত শফিক।

Bengali-expat

অনুষ্ঠানে বার্সেলোনায় বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে উপস্থিত ছিলেন বাংলা স্কুল বার্সেলোনার সাবেক সভাপতি শাহ আলম স্বাধীন, উপদেস্টা আওয়াল ইসলাম, সংগঠক নজরুল ইসলাম চৌধুরী, কমিউনিটি নেতা শফিউল আলম শফি, কমিউনিটি নেতা জাহাঙ্গীর আলম, উত্তম কুমার, কাজী আমির হোসেন আমু, শফিক খান, শামিম হাওলাদার, শফিক ইসলাম, স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের প্রচার সম্পাদক লায়বুর রহমান, স্পেন বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য সাংবাদিক মো. ছালাহ উদ্দিন, জাফর আহমেদ প্রমুখ।

Bengali-expat

এছাড়া বাংলা স্কুলের শিক্ষকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাসুদা পারভিন (মুন্নি) সায়মা রুনু, সামসুজামাল পাহেল, শাহানা ইয়ামিন, লামিয়া নাজনিন, জেরিকো স্পন্দন প্রমুখ।

মাদ্রিদে খুলনা কল্যাণ সমিতির বনভোজন

মাদ্রিদে খুলনা কল্যাণ সমিতির বনভোজন
মাদ্রিদ শহরের অদূরে পিকনিক স্পট কাসালেগাসে এ বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

খুলনা বিভাগীয় কল্যাণ সমিতি মাদ্রিদ, স্পেনের উদ্যোগে বার্ষিক বনভোজন-২০১৯ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (২১ জুলাই) মাদ্রিদ শহরের অদূরে পিকনিক স্পট কাসালেগাসে এ বনভোজন অনুষ্ঠিত হয়। এ দিন বেলা ১১টায় মাদ্রিদ থেকে বাস ভ্রমণের মাধ্যমে শুরু হয় বনভোজনের অনুষ্ঠান।

ভূমধ্যসাগরের কোলে প্রকৃতির নৈসর্গিক সৌন্দর্যে মোড়া বনভোজনের স্পটটি বাংলাদেশি অভিবাসীদের পদচারণায় মুখরিত ছিল সারা দিন। সর্বস্তরের প্রবাসীদের উপস্থিতিতে পরিণত হয়েছিল এক টুকরো বাংলাদেশে।

প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যের ছোট কাসালেগাস নদীর তীর বাংলা ভাষাভাষীদের কলকাকলিতে মুখরিত হয়ে ওঠে। শিশু-কিশোরদের বাঁধভাঙা আনন্দ-উচ্ছ্বাস ছিল চোখে পড়ার মতো। নারী, পুরুষ ও শিশুদের অংশগ্রহণে বিভিন্ন খেলার ইভেন্ট, র‌্যাফেল ড্র ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে সাজানো ছিল পুরো কর্মসূচি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563788975597.jpg
অনুষ্ঠানে গান, নৃত্য, আবৃত্তি ও কৌতুক পরিবেশিত হয় 

 

খুলনা বিভাগীয় কল্যাণ সমিতি মাদ্রিদ, স্পেনের সভাপতি সৈয়দ মাসুদুর রহমান নাসিম ও সাধারণ সম্পাদক টিটন বিশ্বাসের তত্ত্বাবধায়নে এবং কামরুল হাসান এর পরিচালনায় বনভোজনের অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়। দিনব্যাপী এ আয়োজনে প্রধান অতিথি  ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি কাজী এনায়েতুল করিম তারেক।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563789210367.PNG
আয়োজনে প্রধান অতিথি  ছিলেন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ইন স্পেনের সভাপতি কাজী এনায়েতুল করিম তারেক।

 

বিশেষ অতিথি ছিলেন বৃহত্তর ঢাকা অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এম এইচ সোহেল ভূঁইয়া, কমিউনিটি নেতা নূর হোসেন পাটোয়ারী, মোজাম্মেল হোসেন মনু, বিক্রমপুর-মুন্সিগঞ্জ সমিতির সভাপতি মোমিনুল ইসলাম স্বাধীন, বৃহত্তর ফরিদপুর কল্যাণ সমিতি স্পেনের সভাপতি হেমায়েত খান, ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসাইন, আবু সিদ্দিক নয়ন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে একের পর এক কৌতুক এবং দেশীয় গান অনুষ্ঠানকে করে তুলেছিল প্রাণবন্ত। অসংখ্য গান, নৃত্য, আবৃত্তি ও কৌতুকসহ সবকিছু যেন সবাইকে হারিয়ে দিয়েছিল প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশে। অনুষ্ঠানের বিশেষ আকর্ষণ ছিল বাংলাদেশি খাবারের আয়োজন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/22/1563789058451.jpg
শেষ পর্বে র‍্যাফেল ড্র বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়

 

জোহরের নামাজের পর সংগঠনের সিনিয়র সহসভাপতি রবিউল ইসলাম রফিক, সহ সভাপতি মোঃ রতন এবং হুমায়ুন কবিরের তত্ত্বাবধানে বাঙালী রকমারি সুস্বাদু খাবার পরিবেশন করা হয়। এ পর্বে সংগঠনের অর্থ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক কাজী শুভ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুজ্জামান,বাপ্পী রহমান, তরিকুল ইসলাম, শামীম রেজা, সেলিম সরকার,মোঃ সবুজ, নূর হোসেনসহ সংগঠনের অন্য নেতা ও সদস্যরা সহযোগিতা করেন। শেষ পর্বে র‍্যাফেল ড্র বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়।

দিন শেষে সমিতির সভাপতি সৈয়দ মাসুদুর রহমান নাসিম ও সাধারণ সম্পাদক টিটন বিশ্বাস  উপস্থিত অতিথি, সদস্য ও কমিউনিটি নেতৃবৃন্দের  প্রতি ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে বনভোজনের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র