Barta24

রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯, ১০ ভাদ্র ১৪২৬

English

'১০ টাকা দিন সিনেমা বানাবো'

'১০ টাকা দিন সিনেমা বানাবো'
এস এম নজরুল ইসলাম ও আসিফ নূর, ছবি: রুদ্র আজাদ
ফয়েজুল ইসলাম রিমেল
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

সন্ধ্যা হয়ে এসেছে, যে যার কাজে ব্যস্ত কেউবা উদাস মনে হেঁটে চলেছেন আবার কেউবা মুক্তমঞ্চের গানে মেতেছেন, কেউবা কোরাসের পর কোরাসে সুর মিলিয়ে চলছেন। মানুষের আসা যাওয়ার পথের একপাশে দুজন উদ্যমী তরুণ দাঁড়িয়ে আছেন। মাথায় টুপি, মুখে হালকা হালকা দাড়ি হাতে একটা বক্স।

বাক্সটি বুকের সাথে জড়িয়ে দাঁড়িয়ে আছেন। মনে হচ্ছে এই বাক্সটিতেই যত সম্বল। বাক্সের গায়ে লেখা রয়েছে '১০ টাকা দিন সিনেমা বানাবো’। কৌতূহল বশত তাদের কাছে গেলাম। দেখতে পেলাম পাশে একটা ব্যানারও আছে। সেখানে একই কথা লেখা। এছাড়া একটি সিনেমা নিয়ে নানা তথ্য দেয়া আছে। কৌতূহলের মাত্রা আরও বেড়ে গেল। জিজ্ঞাসা করেই ফেললাম অকপটে হাসিমাখা মুখে উত্তর দিতে থাকল।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সদ্য শেষ হওয়া হিম উৎসবে এভাবেই কথা হয় দুই তরুণ সিনেমা নির্মাতার সাথে। একজন হলেন এস এম নজরুল ইসলাম, ঢাকা কলেজে দর্শন থেকে মাস্টার্স করেছেন। অন্যজন হলেন আসিফ নূর, ফুডেড ইঞ্জিনিয়ারিং এর উপর ডিপ্লোমা করছেন নরসিংদী পলিটেকনিক থেকে।

জানালেন তারা দুইজন দুইদিকের মানুষ হলেও তাদের সিনেমা স্বপ্ন এক পথে এনে দিয়েছে। চলচ্চিত্রের ধারণাটি তখনই মাথায় আসলো, যখন দেখলো চলচ্চিত্রের মাধ্যমে সমাজের পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব। আর এটাই সবচেয়ে বড় ও শক্তিশালী মাধ্যম। তারা চান সিনেমার মাধ্যমে সমাজকে অন্যায্য অনাচার মুক্ত করে শোষণ মুক্ত করে তুলতে। সেই লক্ষ্যে সিনেমা বানানোর প্রয়াস। তবে বানাতে চাইলেই তো আর হয় না। প্রয়োজন অর্থের, লোকবলের যা তাদের নেই।

কথা বলতে চাইলে গল্পের পসরা সাজিয়ে বসলেন এস এম নজরুল ইসলাম বললেন, ‘আসলে আমরা একটা ফিচার ফিল্ম বানাতে চাচ্ছি সেটা হবে ফুল লেন্থের। শামসুল হক স্যারের একটি ছোট গল্প আছে ‘মোমবাতি’ আর সেটির ছায়া অবলম্বনেই হবে আমাদের সিনেমাটি। এটার দিয়েছি ন্যাম্পো। এটা আসলে একটা রাজনৈতিক ব্যঙ্গাত্মক রচনা।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/21/1548086897416.gif

তিনি আরও বলেন, ‘সিনেমার মাধ্যমে আমরা আসলে বলতে চাই যে মানুষের আসল স্বাধীনতা কি। কেন মানুষ না খেয়ে মরে? মানুষ রাস্তায় ঘুমাচ্ছে, ফুটপাতে ছোট শিশুরা ভিক্ষা করছে। অথচ শাসকগোষ্ঠী বলছে দেশে কোন গরীব মানুষ নাই। এ দেশে কেউ না খেয়ে থাকে না। আমরা শাসকগোষ্ঠীর এসব মিথ্যাচার তুলে এনেছি। আমরা প্রশ্ন ছুড়ে দিতে চাই সবার কাছে। আমি চাই সিনেমার মাধ্যমে দেশের প্রতিটা মানুষের কাছে যেতে। তেমন সিনেমা হচ্ছে না এমনটা নয় তবে বিশ্লেষণের বিষয় হলো সিনেমাটি কতটুকু মানুষের প্রয়োজনের দিকগুলো তুলে ধরছে। আমরা সেটা চাই।’

১০ টাকা দিন সিনেমা বানাবো প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তারা বলেন, ‘১০টাকা দিন সিনেমা বানাবো এই ক্যাম্পেইনের মাধ্যমে আমরা এ সিনেমার জন্য ফান্ডিং করার চেষ্টা করছি। গত তিনদিন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আমরা আমাদের কার্যক্রম চালাচ্ছি। এর আগে ঢাকা লিট ফেস্টে, নবান্ন উৎসবে, শিল্পকলা একাডেমিতে গণচাঁদা তুলেছিলাম। এ পর্যন্ত আমাদের সংগ্রহ ২০ হাজার টাকা।’

আমাদের সিনেমা বানাতে মোট ৪০ লাখ টাকা লাগবে। আর এই টাকা সংগ্রহ করার জন্য আমরা ২০১৯ সাল পুরোটা ক্যাম্পেইন করতে চাই। সাধারণ মানুষের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। যে যেভাবে পারছে আমাদের সাহায্য করছে। আমরা চাচ্ছি পুরা ফান্ডিংটা এভাবে করতে। যদি  একজনের কাছ থেকে ১০ টাকা নিয়ে থাকি তাহলে ৪০ লাখ টাকা যোগাড় করতে হলে ৪০ হাজার মানুষের কন্ট্রিবিউশন লাগবে। সেক্ষেত্রে দেখা যায় যারা টাকা দিচ্ছে সবাই প্রডিউসার। সেই হিসেবে আমাদের সিনেমাটার প্রডিউসার হবে ৪০ হাজার।’

আপনার সিনেমার জন্য কেউ যদি অনুদানের ব্যবস্থা কওে তবে নিবেন কিনা? এমন প্রশ্নে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা দশ টাকা নেওয়ার মাধ্যমে এই ম্যাসেজ দিতে চাই যে মানুষের স্বপ্ন থাকলে সবকিছু সম্ভব। নতুন প্রযোজকরা আমাদের দেখে উৎসাহিত হবে। এই মেসেজটা আমরা সকলের কাছে পৌঁছে দিতে চাই।’

এছাড়া সিনেমাটি বানানোর জন্য দেশের নামকরা প্রযোজকদের দ্বারে দ্বারে ঘুরলেও কোন ব্যবস্থা হয় নি। এজন্য সাধারণ মানুষের টাকায় সিনেমাটি বানানোর সিদ্ধান্ত নেন তারা।

আপনার মতামত লিখুন :

পোস্টারে ‘রিকশা গার্ল’

পোস্টারে ‘রিকশা গার্ল’
‘রিকশা গার্ল’ সিনেমার পোস্টার, ছবি: সংগৃহীত

গত এপ্রিলে পাবনায় প্রথম দফায় শুটিং শুরু হয় অমিতাভ রেজার দ্বিতীয় সিনেমা ‘রিকশা গার্ল’র। জুলাই মাসে গাজীপুরের বঙ্গবন্ধু ফিল্ম সিটিতে টানা কয়েকদিন শুটিং শেষে সিনেমাটির শুটিং শেষ হয়েছে। আর আজ প্রকাশ হল ‘রিকশা গার্ল’র প্রথম পোস্টার।

পোস্টারে দেখা যাচ্ছে, শ্যাম বর্ণের এক কিশোরীর মুখ। মায়াবী মুখটার সঙ্গে চোখে আছে না বলা অনেক গল্প। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্টারটি সাড়া ফেলেছে।

পোস্টার সম্পর্কে সিনেমাটির পরিচালক অমিতাভ রেজা চৌধুরী বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, ‘পোস্টারের মত নির্ভীক দুরন্ত এক মেয়ের অজানা পথে সাহসী পথচলার গল্প বলা হয়েছে সিনেমায়। সিনেমাটি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের নাম উজ্জ্বল করবে বলে আমি মনে করি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/25/1566721052716.jpg

ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন লেখিকা মিতালি পারকিনসের ‘রিকশা গার্ল’ উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে ‘রিক্সা গার্ল’। এতে কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন নভেরা চৌধুরী। এছাড়া আরও অভিনয় করছেন চম্পা, মোমেনা চৌধুরী, নরেশ ভূঁইয়া, নাসির উদ্দিন খান, অ্যালেন শুভ্র, রূপকথা, অশোক বেপারী প্রমুখ।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/25/1566720859140.jpg

সিনেমাটি প্রযোজনা করেছেন এরিক জেমস্ এডামস। যৌথভাবে নির্বাহী প্রযোজক হিসেবে রয়েছেন ফরিদুর রেজা সাগর এবং জিয়াউদ্দিন আদিল। চিত্রনাট্য করেছেন নাসিফ ফারুক আমিন এবং শর্বরী জোহরা আহমেদ।

আগামী বছর মার্চ মাসে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে সিনেমাটির।

আবারও গানে গানে প্রশ্ন রেখেছেন ‘গাল্লিবয়’ রানা

আবারও গানে গানে প্রশ্ন রেখেছেন ‘গাল্লিবয়’ রানা
ইউটিউবে গাইছেন রানা, ছবি: সংগৃহীত

কামরাঙ্গীরচরের ৮ নম্বর গলিতে বেড়ে ওঠা রানাকে নিয়ে প্রথম ‘গাল্লিবয়’ নামের একটি গান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র মাহমুদ হাসান তবীব। তারপর থেকে 'গাল্লিবয়' রানা ইন্টারনেট জুড়ে ভাইরাল। খবরের শিরোনাম হয়েছে বিবিসি থেকে আল জাজিরার।

‘গাল্লিবয়’, ‘গাল্লিবয় পার্ট-২’র পর আবারও সেই রানা গতকাল (২৪ আগস্ট) ‘গাল্লিবয় পার্ট-৩’ শিরোনামের গান গেয়েছেন। যেখানে গানে গানে পথ শিশুদের স্কুল ও বাজেট নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে রানা। গানে সমাধানও দিয়েছেন মাহমুদ হাসান তবীব।

মাহমুদ হাসান তবীব নিজের ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করেছেন গানটি। বরাবরের মতোই গানটির কথা, সুর ও ভিডিও নির্মাণ করেছেন মাহমুদ হাসান তবীব।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/25/1566716982720.jpg

এই বছরের মে-জুন মাসের রানার সঙ্গে পরিচয় হয় তবীবের। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ঘুরে র‌্যাপ গান শোনাতো রানা। তবীবের সঙ্গে রানার পরিচয়ের পর বলিউডের 'গাল্লিবয়' নাম জুড়ে দেন রানার নামের সঙ্গে। তারপর রানার গাওয়া 'গাল্লিবয়' নামের একটি গান সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেন তিনি।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র