Barta24

বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

১৫ ফেব্রুয়ারি বঙ্গভবনে ‘ফাগুন হাওয়ায়’ দেখবেন রাষ্ট্রপতি

১৫ ফেব্রুয়ারি বঙ্গভবনে ‘ফাগুন হাওয়ায়’ দেখবেন রাষ্ট্রপতি
রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ ও ‘ফাগুন হাওয়ায়’ ছবির দৃশ্য
বিনোদন ডেস্ক


  • Font increase
  • Font Decrease

বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘ফাগুন হাওয়ায়’। আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে তৌকির আহমেদ পরিচালিত সিনেমাটি। অনেকদিন আগে ঘোষণা করা হয়েছিলো রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ সিনেমাটি দেখবেন। তবে কখন দেখবেন সেই তারিখ চূড়ান্ত ছিলো না।

অবশেষে সিনেমাটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ইমপ্রেস টেলিফিল্মস বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বঙ্গভবনে ‘ফাগুন হাওয়ায়’ দেখবেন রাষ্ট্রপতি। একইদিন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে সিনেমাটি। রাষ্ট্রপতি মূলত সিনেমাটির প্রদর্শনীর উদ্বোধন করবেন।

ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড ও চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর এবং পরিচালক ও বার্তাপ্রধান শাইখ সিরাজ গত ২৮ জানুয়ারি মহামান্য রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রটি সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন এবং তাকে চলচ্চিত্রটি দেখার আমন্ত্রণ জানালে রাষ্ট্রপতি এ বিষয়ে ইতিবাচক মত দেন।

তার আগ্রহ ও সময়কে প্রাধান্য দিয়ে বঙ্গভবনে চলচ্চিত্রটির বিশেষ প্রর্দশনী হবে ১৫ ফেব্রুয়ারি বিকেলে। রাষ্ট্রপতির প্রদর্শনীর উদ্বোধন শেষে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে চলচ্চিত্রটি উপভোগ করবেন।

ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত ছবিটির সংলাপ, চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন তৌকীর আহমেদ। এরইমধ্যে প্রকাশ পেয়েছে ছবিটির পোস্টার, টিজার, ট্রেলার ও গান। যা বেশ সাড়া পাচ্ছে।

টিটো রহমানের ‘বউ কথা কও’ গল্পের অনুপ্রেরণায় নির্মিত হয়েছে ‘ফাগুন হাওয়ায়’। ঐতিহাসিক কাহিনী নির্ভর ছবিটির কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেছেন সিয়াম ও তিশা। তাদের পাশাপাশি আরও রয়েছেন- বলিউড অভিনেতা যশপাল শর্মা, আবুল হায়াৎ, আফরোজা বানু, ফারুক হোসেন, সাজু খাদেম, আজাদ সেতু, হাসান আহমেদ প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :

উজমা হবেন শ্রদ্ধা

উজমা হবেন শ্রদ্ধা
শ্রদ্ধা কাপুর ও উজমা আহমেদ

উজমা আহমেদকে যারা চেনেন না তাদের জন্য শুরুতেই একটা সত্যি ঘটনা বলা যাক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে তাহির আলি নামে একজনের সঙ্গে তার পরিচয় হয়েছিলো। বন্ধুত্বের টানে তাহিরের সঙ্গে দেখা করতে পাকিস্তানের ইসলামাবাদ গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানে গিয়ে বন্দুকের মুখে পড়তে হয় তাকে।

দিল্লির এই তরুণীর মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে জোরপূর্বক বিয়ে করেন তাহির। এমনকি উজমা যেনো কখনও দিল্লিতে ফিরতে না পারেন সেজন্য তার পাসপোর্টসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আটকে রেখেছিলেন তাহির। কিন্তু কোনো একভাবে পাকিস্তানি আদালতের শরণাপন্ন হন উজমা। পান সুবিচার।

রূপালি পর্দায় উজমা আহমেদের চরিত্র ফুটিয়ে তুলবেন বলিউড অভিনেত্রী শ্রদ্ধা কাপুর। ইতোমধ্যে তিনি কাজটি করতে সম্মতি জানিয়েছেন।

শিবম নায়ার পরিচালিত নাম চূড়ান্ত না হওয়া ছবিটিতে ভারতের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের চরিত্রটি রাখা হবে। তবে তার ভূমিকায় কে অভিনয় করবেন তা এখনও জানা যায়নি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561564688203.jpg
পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের সঙ্গে উজমা আহমেদ

 

শ্রদ্ধা কাপুর এখন ‘সাহো’ ছবি নিয়ে ব্যস্ত। এতে তার সহশিল্পী হিসেবে দেখা যাবে ‘বাহুবলী’ তারকা প্রভাসকে। এছাড়া ৩২ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর হাতে আছে রেমো ডি’সুজার ‘স্ট্রিট ড্যান্সার থ্রিডি’ (বরুণ ধাওয়ান) ও নিতেশ তিওয়ারির ‘ছিচ্চোরে’ (সুশান্ত সিং রাজপুত)।

ভাইয়ের সঙ্গে ঝগড়ায় পুলিশ ডেকেছিলেন একতা

ভাইয়ের সঙ্গে ঝগড়ায় পুলিশ ডেকেছিলেন একতা
একতা কাপুর ও তুষার কাপুর

পরিবারের সঙ্গে তিরুপাতি ঘুরতে গিয়েছিলেন প্রযোজক একতা কাপুর। আর সেসময় কোনো এক কারণে ছোট ভাই তুষার কাপুরের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে পড়েছিলেন তিনি। দুই ভাই-বোনের ঝগড়া নাকি এতোটাই বেড়ে গিয়েছিল যে একতাকে বাধ্য হয়ে পুলিশ ডাকতে হয়েছিল।

সোনি এন্টারটেইনমেন্ট চ্যানেলে প্রচারিত কমেডি শো ‘দ্য কপিল শর্মা শো’-এর একটি পর্বের শুটিং করতে এসে এমনটা নিজে মুখেই স্বীকার করেছেন একতা কাপুর।

এ প্রসঙ্গে একতার ভাষ্য, ‘অন্যান্য ভাই-বোনদের মতো আমার ও তুষারের মাঝেও অনেক ঝগড়া হয়। আপনারা যেনে অবাক হবেন যে, একবার আমরা পরিবারের সবাই মিলে তিরুপাতি গিয়েছিলাম। সেখানে কোনো এক কারণে তুষারের সঙ্গে আমার অনেক ঝগড়া হয়। এমনকি ও আমার নাকে ঘুষিও মেরেছিল সেসময়। পরে আমি পুলিশকে ফোন দেই।’
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/26/1561559452507.jpgযোগ করে একতা আরও বলেন- যদি কখনও কোনো ফ্যামিলি ট্রিপ হয় তাহলে এই দুই ভাই-বোন এক গাড়িতে চড়েন না। ঝগড়া এড়ানোর জন্য নাকি তারা এমনটা করে থাকেন।

এদিকে, তুষার কাপুর বলেন- ‘আমরা যখন একসঙ্গে স্কুলে যেতাম তখনও আমাদের মাঝে অনেক লড়াই হতো। একে অপরের শার্টের বোতাম ছিড়ে ফেলতাম।’

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র